বানরের উপদ্রব এই পরিস্থিতি থেকে দ্রুত প্রতিকার চায় নগরবাসী

প্রকাশিত : ০৭ মে, ২০১৯     আপডেট : ১০ মাস আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট নগরীতে বানরের উৎপাত যেন থামছেই না। প্রতিদিনই কাউকে না কাউকে কামড়ে দিচ্ছে বানর। ফলে বানরের উপদ্রবে অতিষ্ঠ সিলেট পৌর শহর এলাকার লোকজন। এর আগে বানরের উৎপাতের এই ঘটনা এই এলাকার তৎকালীন সংসদ সদস্য, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের দফতরেও গিয়ে পৌঁছেছিল। তবে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

সোমবার (৬ মে) বিকালে নগরীর ৫১ দরগাহমহল্লা রাজারগলির বাসিন্দা ফুল বিবি (৬০) নামের এক মহিলা বানরের কামড়ে আহত হন। ফুল বিবির ছেলে ফয়সাল হোসেন জানান, একটি বানর হঠাৎ তাদের বাসায় ঢুকে তার মায়ের পায়ে কামড় দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে রক্তাক্ত জখম হন তার মা। পরে তাকে সিলেট নগরীর শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

জানা য়ায়, সিলেট মহানগরীর কাজীটুলা, ঈদগাহ, গোয়াইটুলা, কলবাখানী, হাউজিং এস্টেট, রাজারগলিসহ সংলগ্ন অন্যান্য এলাকার বাসিন্দাগণ দীর্ঘদিন যাবৎ বানরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ। প্রতিদিন কয়েক শত বানরের বেপরোয়া তাণ্ডব আর আক্রমণে শিশু-কিশোরসহ বয়স্করা পর্যন্ত রেহাই পাচ্ছেন না।

ফলে ঐ এলাকার বাসিন্দারা রীতিমতো ভীতসন্ত্রস্ত অবস্থায় দিনাতিপাত করছেন। এই পরিস্থিতিতে গত বছরের আগস্টে আন্দোলন, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেন ভুক্তভোগীরা। তারা নিজেরা না পারছেন বানর তাড়িয়ে দিতে, না পারছেন বানরের আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে।

মজুমদারী এলাকার বাসিন্দা আবু সাঈদ বলেন, ‘যখন তখন বাসার ভেতরে প্রবেশ করে বানর খাবার-দাবার নিয়ে যায়। এ সময় শিশুদের দিকে তেড়ে আসে। কখনো কখনো আক্রমণও করে বসে। এই পরিস্থিতি থেকে দ্রুত প্রতিকার প্রয়োজন।’

সিলেট সিটি করপোরেশনের ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রেজাউল হাসান লোদী বলেন, ‘বানর আমাদের দেশের সম্পদ। তবে জননিরাপত্তা নিশ্চিত ও সম্পদ রক্ষার লক্ষ্যে বানরকুলকে লোকালয় থেকে অতি দ্রুত যত্ন সহকারে অন্যত্র নিরাপদ আশ্রয়স্থলে সরিয়ে নেওয়া অপরিহার্য হয়ে পড়েছে।’

প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘স্কুলের কোমলমতি শিশুরাও রাজপথে নেমে আন্দোলন করেছিল, কোনো আজে আসেনি।’

সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল হক বলেন, ‘বানর নিধন বা এদের প্রতি বিরূপ আচরণ কারো কাম্য নয়। এদের বাসস্থান নষ্ট করে দেওয়া, যথাযত খাবার না পাওয়ার জন্যই আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছে।’ তিনি বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন বলেও জানান।

আরও পড়ুন