বাজান

প্রকাশিত : ১৬ আগস্ট, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

তাসলিমা খানম বীথি: আমার পাশে যে মানুষটি হাত ধরে বসে আছেন, তিনি হলেন আমার নানা। ১১২ বছর বয়সেও চশমা ছাড়া পত্রিকা পড়তে পারেন তিনি। এখনো পুরো গ্রামে হেঁটে বেড়ান। নানা যে ক’দিন আমাদের বাসায় ছিলেন। আমার সাথে তেমন কথা হত না। কারন এশার নামাজ পড়ে তিনি ঘুমিয়ে যেতেন। সেদিন অফিস থেকে বাসায় যাবার পর আমাকে দেখে পাশে বসিয়ে বললেন, ঘরে পাওয়া যায় না কেন? সারাদিন কোথায় থাকি? আমি চাকরি করি বললেও নানা তা ভুলে যায়। কারন মাঝে মাঝে তার স্মৃতি হারিয়ে ফেলেন। তবে একবার মনে করে দিলে তা মনে থাকে। আমি যখন নেটে বসে পুরো পৃথিবীর খবর পড়ছি, তখন নানা আমাকে বলছে তার জন্য ৫টাকা দিয়ে লঙ্গি, পাঞ্জাবী আর চাদর কিনে দিতে। আমি হেসে বললাম-নানা এখন আপনার যুগ নেই। এখন হচ্ছে থ্রী, ফোর আর ফাইভ জি যুগ। নানাকে দেখে বৃদ্ধ বয়সের কথা ভাবছিলাম। বৃদ্ধ হলে মানুষ মানসিক আর শারীরিকভাবে কতটা অসহায় হয়ে যায়। গত শুক্রবার নামাজ পড়ে হাঁটতে বের হয়ে ফিরে আসেনি নানা। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে পাওয়া যাইনি। ছবিটি তোলার আগে ভাবেনি নানাকে হারিয়ে ফেলবো।

২. নানা যতবার সিলেটে আসেন কাউকে কিছু না বলে গ্রাম থেকে হুট করে একা চলে আসেন। কয়েক বছর ধরে তিনি এরকম করছেন। সিলেট এসে স্টেশন থেকে রিকশা ভাড়া বেশি নেয় বলে হেঁটে হেঁটে তিনি আমাদের বাসায় এসে পৌছবেন। আমার নানী যখন মারা যান তখন নানার বয়স ছিলো মাত্র ২৭ বছর। তারপর থেকে সে যে নানা সাদা কাপড় পড়তে শুরু করেছেন আর কখনো রঙিন কাপড় পড়েনি। ছোটবেলা থেকে আজো তাকে সাদা পাঞ্জাবীতে দেখে আসছি। একদিন তাকে এই সাদা কাপড় কেন পড়েন তা জিজ্ঞাসা করি। তিনি বললেন আমি তো বিধবা তাই। বুঝলাম নানীকে তিনি অনেক ভালোবাসেন। নানার সব কিছু ভুলে গেলেও এখনো নানীর স্মৃতি মনে রেখেছেন। আমার ছোট বোন আমিনার সাথে সারাদিন চলে নানা’র আড্ডা। সে আড্ডা মাঝে মাঝে আমিও থাকি। নানাকে যখন দুদিন খুঁজে পাচ্ছিলাম আম্মা তখন বাজান বাজান বলে কাঁদতেন। মামা নানাকে বাবা বললেও আম্মা তাকে বাজান বলেই ডাকে। শনিবার সকাল গড়িয়ে বিকেল তারপর রাত ২টা বাজে আম্মা তার বাজানের জন্য কাঁদছেন। আমরা দুই বোন মন খারাপ করে আম্মার পাশে বসে আছি। কিছুক্ষণ পর আম্মা তাহাজ্জুদের নামাজে বসলেন। আমরাও আম্মার সাথে নামাজ পড়ি। নামাজ পড়ে দুই বোন ঘুমিয়ে গেলেও আম্মা বসে থাকেন। ভোর হতেই আম্মা ডাকেন তার বাজান ফিরে এসেছেন। কয়েকদিন পর নানা তার নাড়ি টানে আবার গ্রামে চলে যান।
১৬ আগস্ট ২০১৮


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

তিন বিষয়ে ঐক্যফ্রন্টকে আশ্বস্ত করবে আ.লীগ

         আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বেশ...

লিও ক্লাব অব সিলেটের নতুন কমিটি গঠন

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: লিও ক্লাব...

স্বামী সিলেটের , স্ত্রী যুক্তরাজ্যের কাউন্সিলর

          সিলেট সিটি কর্পোরেশনের জনপ্রিয়...