বাউল শাহ আব্দুল করিমের জন্মদিবস উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী লোক উৎসব

প্রকাশিত : ০৩ মার্চ, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: কোন মেস্তরী নাও বানাইছে কেমন দেখা যায়, আমি বাংলা মায়ের ছেলে.. জীবন আমার ধ্যন্য যে হায়.. জন্ম বাংলা মায়ের কোলে, বসন্ত বাতাসে সইগো বসন্ত বাতাসেৃ এই গানে গানে বসন্তের দিনে, মাঠির পিঞ্জিরায় সোনার ময়নারে…সহ অসংখ্য কালজয়ী গানের রচয়িতা বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের ১০৩তম জন্মদিবসে তার বাড়ীতে শুক্রবার/শনিবার দু’দিনব্যাপী শাহ আব্দুল করিম লোক উৎসব শুরু হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় শুরু হওয়া এই লোক উৎসবে দুরদুরান্ত থেকে তার হাজারো ভক্তবৃন্দের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে তার বাড়ির আঙ্গিনা।
এ উৎসব চলবে আজ শসিবার গভীর রাত পর্যন্ত । উজানধল গ্রামবাসী আয়োজিত লোক উৎসবকে কেন্দ্র করে দুই দিন ধরে বাউলসম্রাটের বাড়িতে বসেছে বাউলদের মিলন মেলা। শুধু বাউলই নয়, এ যেন সকল শ্রেণীর সকল পেশার মানুষের তীর্থস্থান। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নানা পেশার মানুষ এসেছেন এ মরমী সাধকের জন্মভুমি নিজ চক্ষে এক নজর দেখার জন্য, অনুভব করার জন্যে কিভাবে একটি অঁজপাড়া গাঁয়ে থেকে জগৎজোড়া খ্যাতি পেয়েছেন হাজারও জনপ্রিয় গানে ¯্রষ্টা এই চারণ কবি।
বাউল পুত্র শাহ নুর জালালের সভাপতিত্বে ও শাহ আবদুল করিম স্মৃতি পরিষদের কোষাধ্যক্ষ আপেল মাহমুদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত সরকারের যৌথ পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফুল ইসলাম।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সমবায় কর্মকর্তা রাজমনি সিংহ, সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি হিমাদ্রী শেখর ভদ্র, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি সোয়েব হাসান, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ চৌধুরী, অনলাইন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোশাহিদ আহমদ সহ লোক গবেষক জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারাবৃন্দ ।
আলোচনাসভা শেষে জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে শুরু সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠান। এসময় সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিখ্যাত ফোক শিল্পী শাহনাজ বেলী, বাউল সম্রাট আব্দুল করিমের প্রিয় শিষ্য বাউল আব্দুর রহমান, রনেশ ঠাকুর, সিরাজ উদ্দিন, বাউলিয়না ফয়সাল, আশিক সরকার প্রমুখ।
বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিমের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তার জীবদ্দশায় ২০০৬ সাল থেকে ধল গ্রামবাসীর উদ্যেগে আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হয় শাহ আব্দুল করিম লোক উৎসব। এই লোক উৎসবকে কেন্দ্র করে ভাটির জনপদ দিরাই উপজেলায় দেশের খ্যাতিমান বাউল গানের বাউল শিল্পীসহ বিভিন্ন গুনীজনের আগমন ঘটে ভরাম হাওরে কূলে বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের জন্মমাটি দিরাইয়ের উজানধল গ্রামে। শাহ আব্দুল করিমের গানে গানে মাতোয়ারা হয়ে উঠেছে দিরাইয়ের ভরাম হাওরে কূল।
এ ব্যাপারে বাউল পূত্র শাহ নুর জালাল জানান, আমার বাবা শাহ আব্দুল করিম জীবিত থাকা অবস্থায় ২০০৬ সাল তেকে উজান ধল গ্রামে লোক উৎসব শুরু হয়েছিল এবং আজ পর্যন্ত এ উৎসব চলে আসছে। এ উৎসবের দিনে দেশ বিদেশের অনেক ভক্তবৃন্দরা যারা আব্দুল করিমকে ভালবাসেন যারা তার গানকে ভালবাসেন তাদের ্ উপস্থিতি যেন মিলনমেলায় পরিণত হয়। তার অসংখ্য কালজয়ী গানকে সংরক্ষনের জন সরকার একটি সঙ্গীতালয় নির্মান করে দিবেন সেই প্রত্যাশা তার।
এ ব্যাপারে দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শরিফুর ইসলাম জানান,শাহ আব্দুল করিমের স্মৃতি রক্ষার্থে প্রতিবছর যে লোক উৎসব করে থাকে প্রশাসন সব সময় সহযোগিতা করে থাকে। তিনি বলেন আমরা তার পূত্র শাহ নুর জালালের সাথে বসে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান,অবকাঠামো সহযোগি এবং নিরাপত্ত বলয় জোরদার করা হয়েছে এব এই মরমী কবি শাহ আব্দুল করিমের উৎসবকে সরকারীভাবে পালনের জন্য সরকারের উচ্চমহলে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলেও জানানা তিনি।

আরও পড়ুন