বাংলাদেশ গুটিয়ে গেল ১৬৯ রানে

,
প্রকাশিত : ০৬ নভেম্বর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

টার্গেট ছিলো ৩২১ রান। বাংলাদেশ গুটিয়ে গেল ১৬৯ রানে। জিম্বাবুয়ে ম্যাচ জিতলো ১৫১ রানের বিশাল ব্যবধানে। সিলেট টেস্ট শুরুর আগে আকাশে উড়ছিলো বাংলাদেশ দল। বড় হারে সেই দল এখন মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়েছে। দুই টেস্টের সিরিজে জিম্বাবুয়ে এগিয়ে গেল ১-০ ব্যবধানে।

টানা ১১ টেস্টে হারের পর জিম্বাবুয়ে কোন টেস্ট ম্যাচ জিতলো। আর দেশের বাইরে এই প্রথম ১৭ বছর পর টেস্ট ম্যাচ জিতলো জিম্বাবুয়ে।

চতুর্থদিনের সকালের শুরুটা বাংলাদেশের মন্দ হয়নি। শুরুর একঘন্টা নিরাপদেই কাটিয়ে দেন ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। সমস্যার শুরু ওপেনিং জুটি ভাঙ্গতেই। ৫৬ রানে ভাঙ্গে ওপেনিং জুটি। লিটন দাস ফিরলেন উইকেটে সেট হওয়ার পর। মমিনুল হক শেষ কবে টেস্ট ম্যাচে ভালো খেলেছিলেন সেটা খুঁজে বের করতে হলে পরিসংখ্যান ঘাঁটতে হচ্ছে! মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ প্রথম ইনিংসে শূণ্য রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসে করলেন মাত্র ১৬। জায়গা বদলে একটু নিচের দিকে নেমেও উইকেট বাঁচাতে পারলেন না নাজমুল হোসেন শান্ত। লাঞ্চে গেল বাংলাদেশ ১১১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে।

ম্যাচে তখনই মুলত একটাই অপেক্ষা-কত রানে হারছে বাংলাদেশ? সেই অপেক্ষা শেষ করতেও বেশি সময় লাগলো না। চা বিরতির আগেই অলআউট বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে দলের স্কোর দেড়শ ছাড়ালো আরিফুল হকের ওয়ানডে স্টাইলের ব্যাটিংয়ের কারনে। আশপাশ থেকে কোন ব্যাটসম্যানের সহায়তা না পেয়ে আরিফুল ভাবলেন-হারছিই যখন, তখন খানিকটা রান তুলেই হারি! তবে টেস্ট ম্যাচে এমন ব্যাটিং করে বেশিক্ষণ টেকা যায় না। আরিফুল শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে যখন আউট হলেন তখন স্কোরবোর্ডে বাংলাদেশের জমা মাত্র ১৬৯ রান। একটু মনে করিয়ে দেই প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ গুটিয়ে গিয়েছিল ১৪৩ রানে।

সিলেট টেস্টের পুরো ম্যাচ জুড়ে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ যা করলো তাকে ব্যাটিং বলে না-বলে ব্যাটিংয়ের ছিরি! প্রথম দফায় খেললো মাত্র ৫১ ওভার। দ্বিতীয় ইনিংসে লড়াই শেষ ৬৩.১ ওভারে।

জিম্বাবুয়েকে বধ করতে বাংলাদেশ স্পিন উইকেট সাজিয়েছিলো। কিন্তু সিলেটের সেই উইকেটে নিজেই বধ বাংলাদেশ! দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের ১০ উইকেটের মধ্যে ৯ উইকেটই শিকার করলেন জিম্বাবুয়ের স্পিনাররা। খুব যে আহামরি কোন বোলিং করেছে জিম্বাবুয়ে; তা কিন্তু নয়। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরাই বাজে শট খেলে উইকেট খুঁইয়ে দিয়ে এসেছেন। দুই ইনিংসেই বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং এবং আউটের ধরণ জানাচ্ছে-পুরো দল যেন পিকনিক মুডের ক্রিকেট খেলতে নেমেছিল!

সংক্ষিপ্ত স্কোর: জিম্বাবুয়ে ১ম ইনি: ২৮২/১০ (১১৭.৩ ওভারে, মাসাকাদজা ৫২, চারি ১৩, টেলর ৬, শন উইলিয়ামস ৮৮, সিকান্দার রাজা ১৯, মুরস ৬৩*, চাকাভা ২৮, অতিরিক্ত ১, আবু জায়েদ ১/৬৮, তাইজুল ৬/১০৮, নাজমুল ইসলাম ২/৪৯, মাহমুদউল্লাহ, ১/৩)। বাংলাদেশ ১ম ইনিং: ১৪৩। জিম্বাবুয়ে ২য় ইনি: ১৮১/১০ (৬৫.৪ ওভারে, মাসাকাদজা ৪৮, টেলর ২৪, শন উইলিয়ামস ২০, সিকান্দার রাজা ২৫, চাকাভা ২০, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ১৭, তাইজুল ৫/৬২, মিরাজ ৩/৪৮, নাজমুল ২/২৭)। বাংলাদেশ ২য় ইনি: ১৬৯/১০ (৬৩.১ ওভারে, লিটন ২৩, ইমরুল ৪৩, মমিুনল ৯, মাহমুদউল্লাহ ১৬, নাজমুল হোসেন ১৩, মুশফিক ১৩, আরিফুল হক ৩৮, মেহেদি মিরাজ ৭, সিকান্দার রাজা ৩/৪১, মাভুতা ৪/২১, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ২/৩৩)।

ফল: জিম্বাবুয়ে ১৫১ রানে জয়ী। ম্যাচসেরা: শন উইলিয়ামস। দ্বিতীয় টেস্ট: ১১-১৫ নভেম্বর, ঢাকা।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন