বাংলাদেশকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ফিলিপাইন

প্রকাশিত : ০৬ অক্টোবর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

আহমদ ইয়াসিন খান
ভুল পাস আর সুযোগ মিসের মহড়ায় সেই চিরচেনা বাংলাদেশ ১-০ গোলে ফিলিপিনের কাছে হেরে হয়েছে গ্রুপ রানার্সআপ। আর স্বাগতিকদের হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিতে মাঠে নামবে ফিলিপাইন।
শুক্রবার সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টের ‘বি’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে ছিলেন না রেগুলার অধিনায়ক জামাল ভুইয়া।
সন্ধ্যে সাড়ে ৬টায় শুরু হওয়া ম্যাচে প্রথম থেকেই আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে বাংলাদেশ। ৪র্থ মিনিটেই স্কোর লাইন ১-০ হতে পারতো। রবিউলের লম্বা থ্রোতে হেড করেছিলেন দলপতি তপু বর্মন। কিন্তু ফিলিপাইনের গোলকিপার মাইকেল ক্যাসাসের দৃঢ়তায় জাল খুঁজে পায়নি বল।
৮ মিনিটে আবারো সুযোগ তৈরী করেন রবিউল। বাম প্রান্তে যাওয়া আক্রমনে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন তিনি। কিন্তু দুর্বল শটটি ঠেকাতে তেমন বেগ পেতে হয়নি ম্যাচসেরা মাইকেল ক্যাসাসকে।
১৪ মিনিটে একটি ভালো সুযোগ তৈরী করে ফিলিপাইন। কিন্তু রক্ষণে তপু বর্মণের কাছে ভেস্তে যায় সে আক্রমন।
২৪ মিনিটে স্কোর লাইন বদলে ফেলে ফিলিপাইন। স্বাগতিকদের মুহুর্মুহু আক্রমনের ফাঁকে একটি কাউন্টারে অসাধারণ গোল করেন কেনশিরো মাইকেল দানিয়েল।
প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আরো একটি আক্রমন করে ফিলিপাইন। কিন্তু জোভিন বেডিকের নেয়া শটটি লক্ষ্যে থাকেনি। আর কোন বিপদ না হওয়ায় ১-০ তে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জেমি ডে’র শিষ্যরা।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে বাংলাদেশ তাদের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি মিস করে। দলের আগোয়ান খেলোয়াড় জীবন একক প্রচেষ্ঠায় মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে ঢুকে পড়েন প্রতিপক্ষের সীমানায়। কিন্তু ডি-বক্সে ঢুকার পর খেই হারিয়ে ফেলেন। ফলে মিস হয় সবচেয়ে সহজ সুযোগটি।
এর পর আরো দুটি আক্রমন করে বাংলাদেশ, কিন্তু ফিনিশিংয়ের অভাবে সে সুযোগটিও জাল খুজে পায়নি।
৭০ মিনিটে আরো একবার হতাশ হতে হয় বাংলাদেশ শিবিরকে। ডান দিক থেকে যাওয়া আক্রমনে মাইনাস করেছিলেন সবুজ। কিন্তু ডি-বক্সের মধ্য থেকে নেয়া জীবনের হেডটি চলে যায় বাইরে।
ম্যাচের যোগ করা সময়ে কর্নার পায় বাংলাদেশ। সেখান থেকেও ম্যাচের ফল বদলাতে পারেননি তপু বর্মন-বিপলু’রা। ফলে ১-০ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় লাল-সবুজ জার্সিধারীদের। এই জয়ে গ্রুপসেরা হয়েছে ফিলিপাইন।

তবে ম্যাচ শেষে নিজেদের পারফরমেন্সে তুষ্টির কথা জানান বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে। সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানান, অনেক সুযোগ মিস হয়েছে। গোল হতে পারতো। কিন্তু ছেলেদের পরফরমেন্সে আমি খুশী। ফিলিপাইনের মতো দেশের সাথে এমন খেলা সত্যি অসাধারণ।
সেমিতে তাজিকিস্তান অথবা ফিলিস্তিনের যে কোন এক দলকে মোকাবেলা করতে হবে বাংলাদেশকে। দুটি দলই কঠিন প্রতিপক্ষ। কোচ জেমি ডে’রও একই মত। ‘তাজিকিস্তান আর ফিলিস্তিন, দুটি দলই শক্ত প্রতিপক্ষ। তাদের ফিটনেস আর টেকনিক অনেক উন্নত। এদের বিপক্ষে খেলা আসলেই কঠিন হবে।’
অপর দিকে, বাংলাদেশ দলের প্রশংসা করতে ভুলেননি ফিলিপাইন কোচ আন্দ্রেস গঞ্জালেস। ‘বাংলাদেশ দুর্দান্ত একটি দল। তাদের পারফরমেন্স অনেক ভালো ছিল। শক্ত প্রতিপক্ষের সাথে খেলে জয় পাওয়া অনেক সুখময়।’

ম্যাচে বাংলাদেশ অনেক সুযোগ মিস করেছে। ভুল পাসের ছড়াছড়ি ছিল। বাংলাদেশ দলের ভুল প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কোচ গঞ্জালেস জানান, ‘অনেকগুলো সুযোগ তাদের মিস হয়েছে। ফাইনাল পাস ও ফিনিশিংয়ের অভাব রয়েছে।
প্রথম ম্যাচে লাওসকে হারানো বাংলাদেশ গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে সেমিতে মাঠে নামবে। আজ শনিবার নেপাল ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার ম্যাচের উপর নির্ভর করবে লাল-সবুজের প্রতিপক্ষ কে হবে। সন্ধ্যে সাড়ে ৬টায় জেলা স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে।

পরবর্তী খবর পড়ুন : আমার প্রিয় শিক্ষক

আরও পড়ুন