বাঁধার প্রাচীর

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ০১ মে, ২০২১     আপডেট : ৫ মাস আগে
  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মোঃ নিজাম উদ্দিন , যে কোন ব্যক্তির সফলতার পিছনের গল্পে জড়িয়ে থাকে অনেক কঠোর কঠিন পরিশ্রম ত্যাগ দুরন্ত প্রচেষ্টা, যোগ্যতা সামর্থ নিয়ে লক্ষ্যে পৌছানোর প্রতি গভীর মনোযোগ। সে ব্যক্তিকে কখনও অসিম সাহসী আবার কখনও বা অসম্ভব কৌশলী হতে হয়। যে কোন আকাংখা লক্ষ্য পরিকল্পনা সফলতার পিছনে ছুটলে, শত বাঁধা পিছুটান কাংখিত গন্তব্যে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হতে পারে। কখনও সে বাঁধা নিজের কোন ভূলে অথবা কোন প্রিয়জনের হিংসা ষড়যন্ত্রে কারনে হয়ে থাকে ।
আপনার সম্মান সাফল্য অনেক নিকটজনেরা মেনে নিতে পারেনা,কারন তারা আপনার মতো হতে পারেনি হয়তো হতে পারার সম্ভাবনাও ক্ষীন। না হয় তার যোগ্যতা সামর্থের যতেষ্ট অভাব,হয়তো সেটাই তার মানষিকতা। হয়তো যোগ্যতার মানদন্ডে নিজেকে যাচাই করার বিচারশক্তি নিজে হারিয়ে পেলেছে।
কিছু মানুষ অর্থকে বড় যোগ্যতা মনে করে, তারা ভূলে যায় আব্রাহাম লিংকন, লেনসন ম্যান্ডেলা, নরেন্দ্র মুদি, মাহাথির মোহাম্মদ,আবুল কালাম আজাদ,
কেজরীওয়াল,ডেবিড ক্যামেরুন,জিয়াউর রহমান,মাওলানা আব্দুল হামিদ খাঁন ভাসানীর মতো নেতাদের বিত্ত্ব সামর্থ টাকা পয়সা খুব বেশি ছিলনা। সক্রেটিস আইনস্ট্যাইন পেলে ম্যারাডোনা মেসি নেইমার শচীন টেন্ডুলকার ওয়াসিম আকরাম,আমাদের মোস্তাফিজ,মান্না দে, লতা মঙ্গেশকর,কুমার সানু, মাইক্যাল জ্যাকসন,রুনা লায়লা,অমিতাভ বচ্চন,শাহরুখ খাঁন,টাইটানিকের জ্যাক রুজ,স্বমহিমায় পৃথিবীকে জয় করেছে আপন করে। স্বল্প পুঁজি নিয়ে বাংলাদেশে ডঃ ইউনিসের গ্রামীন ব্যাংক,আকিজ গ্রুপ,শ্যামলী পরিবহন,হানিফ পরিবহন আজ
সফলতার মহাগল্প। একজন ব্যক্তি বা প্রতিষ্টানের বড় পুঁজি হলো তার ব্যক্তিত্ব সততা ন্যায় নিষ্টা উত্তম নীতিবোধ তার ভালো আচরন এবং কর্ম কৌশল।

অন্যের সুনাম সফলতায় ত্রুটি খুঁজে অশান্তিতে নির্ঘুম থাকে,এমন ধরনের ব্যক্তি থেকে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রাখাই অনেক বড় সফলতা।
ভাল কাজ বা জনকল্যাণকর প্রতিযোগীতায় অংশ গ্রহন করলে মানুষের মন মানষিকতা উন্নত হয় সম্মান সুনাম বৃদ্ধি পায়। কোন পরাজয়েও মানুষ অনেক অনেক সম্মানিত পথে অগ্রসর হয়।
যে কোন সফল কর্মপ্রিয় বপ্লবী বিশ্বজয়ী মানুষের গল্পে মিশে আছে হাজরো বাঁধা অতিক্রম করার অবিরাম প্রচেষ্টা, দৃঢ় মনোবল। তারাই শিখিয়েছে কিভাবে সমুদ্র জয় করতে হয়,এভারেষ্টের চুড়াঁয় উটতে হয়,আকাশে পৌছাতে হয়। তারাই শিখিয়েছে কিভাবে সম্মানীত হতে হয়, কিভাবে ক্ষমতা সক্ষমতা ধরে রাখতে হয়।

জন্ম এবং মৃত্যুর মধ্যখানে সময় খুবই অল্প,সেই অল্পতেই গল্প হয়ে রয় কেউ বিশ্বময়,কেউ বেঁচে থাকে হাজার বছর হয়ে কৃর্তীময়। কেউ বা তার চেয়েও অনেক বেশী কিছু। আমি নিজের কাছে রয়ে গেলাম কিছু অধরা স্বপ্ন নিয়ে, অনেক ব্যর্থতার গল্প হয়ে।
কেউ বা হারিয়ে যায় ঝরা পাতা হয়ে কোন অচেনা পথে,কখনও বা নিজেকে অন্যকে কলঙ্কিত করে। এভাবেই তো মানুষ বেঁচে থাকে কারও আলোচনায় কোন ইতিহাস বা গল্প আড্ডায়।
আমি কি করেছি কি পারিনি হিসেব কষে দেখিনি কখনও, হয়তো আত্মভূলা নয়তো নিজের প্রতি চরম অবহেলায়।
ঝাপসা আধাঁরে গন্তব্য ঠিক করার চেষ্টা করেছি অনেক বার,অদৃশ্য অচেনা ধমকা হাওয়া আঘাত করেছে বহু বার। কখনও নিজের ভূলে কখনও বা বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে বাধাগ্রস্থ হয়েছি অনেক বার,তবুও কিছু কিছু ছোট্ট স্বপ্ন বুনি বার বার।

ঘুরে দাড়াবার সামর্থ নিয়ে স্বপ্ন সাজাই ছোট্ট করে,অশুভ শক্তি আঘাত করে স্বপ্ন নীড়ে। ইনশা আল্লাহ সফল হব কোন একদিন প্রিয়জনদের স্নেহ ভালোবাসা পরিশ্রম আর কর্মগুনে।
মহান দয়াময় আল্লাহ উপর পূর্ণ বিশ্বাস এবং আস্থা রাখি সব সময়।
মহান আল্লাহ চাইলে যে কোন পরিবেশে যে কোন সময়ে একজন মানুষকে সম্মানীত করতে পারেন,হিংসা করে কারো অগ্রযাত্রা থামিয়ে দেওয়া যায় না। সমাজ রাজনৈতিক কর্মকান্ডে অনেক সুধীজন প্রিয়জনের আন্তরিক দোয়া সহযোগিতা ভালো পরামর্শ পেয়েছি,আমার সফলতার ছোট্ট গল্পে জড়িয়ে আছে এলাকার অনেকের অনেক ত্যাগ। আবার আমার চিন্তা সফলতাকে বাধাগ্রস্থ করতে অনেকের হিংসা অবহেলার লক্ষ্য বস্তুতে ছিলাম,মানুষের হিংসা অবহেলা সয়েই কাজ করে যেতে চেয়েছি।
অনুকুল পরিবেশে সবাই খাপ খাইয়ে নিতে পারলেও,আমি সব সময় নদীর উল্টো স্রোতে সাঁতার কেটেছি। প্রতিকুল পরিস্থিতে সংগ্রাম করে নিজেকে সফল করার চেষ্টা করেছি অনেক বার।
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের রাজনীতি থেকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের রাজনীতিতে সক্রিয় ভাবে জড়িত প্রায় ২যুগের বেশী সময় থেকে। দলের কার্যক্রমে নিবিড় ভাবে সম্পৃক্ত থেকেছি সমস্ত সামর্থ দিয়ে,মূল্যায়নও পেয়েছি বিভিন্ন পর্যায়ে। দায়িত্ব পালনে বা দায়িত্ব পেতে কারও সাথে প্রতিযোগিতায় ছিলাম না কখনও। শ্রেণীবেদে বড়দের যথার্ত সম্মান ছোটদের স্নেহ করার চেষ্টা করেছি। শুধু অনুভব করি কিছু মানুষের বেহিসেবি আচরন, নিরবে অনেকের সমালোচনা অবহেলা সয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি।

আমার ভালো কাজে সফলতায় যারা কষ্ট পায় নির্ঘুম থাকে তাদেরকে শুভাকাংখি বন্ধু ভাবি। তাদের কারনে আমি পথ চলি হিসেব করে,ভূল থেকে নিজেকে রক্ষা করার চেষ্টা করি প্রাণান্ত। সেই সকল বন্ধুদের জন্য দোয়া করি তারা যেন সুখে সম্মানে সুদীর্ঘ কাল বেঁচে থাকে,তারা যেন আমার ভূল গুলো খুঁজে আলোচনা সমালোচনা করে, তাদের সফলতা কল্যাণ কামনা করি।

জীবন সংগ্রামে পুরনো দিনের কিছু সফলতায় এখনও দেশ প্রবাসের চেনাজানা বন্ধু সুধী স্বজন আত্মীয় প্রিয়জনের উৎসাহ সহযোগিতা হৃদয় ভরে অনুভব করি,তাদের কারনে মাঝে মাঝে নিজের সমস্ত সাহস সামর্থ উজাড় করে দিতে মন চায়। গন্তব্য খোঁজে নিতে আল্লাহ যেন সহায় হন।

বেঁচে তাকার নামই শুধু জীবন না,আত্ম মর্যাদা সুখ সম্মান নিয়ে বেঁচে তাকাই জীবনের কৃতিত্ব সার্থকতা, সেটাই হলো আসল বীরত্ব।
হয়তো ইতিহাস হতে পারব না,চেষ্টা করি মানুষের স্নেহে ধন্য হতে, কারো কাছে গল্প হতে।
বাধা অতিক্রম করার মতো শক্তি সামর্থ এবং মানষিকতা তৈরী করতে পারলে যে কেউ ব্যক্তি জীবনে সফল হবে। আমিও সে পথের যাত্রী হওয়ার চেষ্টা করি অবিরত।

পাওয়া না পাওয়ার হিসেব নিয়ে পুরো পৃথিবী,যেটুকু পেয়েছি তার জন্য অগনিত শুকরিয়া আদায় করি মহান মাবুদের দরবারে। আমার কিছু পাওয়াটা যেন হয় জনকল্যাণে।।
মোঃ নিজাম উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান
খুরমা (উত্তর) ইউনিয়ন পরিষদ,ছাতক।
যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি।


  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

বিএনপি নেতা লিটনের মায়ের মৃত্যুতে বেলজিয়াম বিএনপির শোক

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী...

কমলগঞ্জে নিজ ঘরে বিদ্যুতায়িত হয়ে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : মৌলভীবাজারের...

নিম্ন আয়ের মানুষের মধ্যে ‘সীমান্তিক’র ইফতার বিতরণ

        সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর)...