প্রথম দিনে অনুপস্থিত সিলেট বোর্ডে ৭১৯

প্রকাশিত : ০২ এপ্রিল, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে

সিলেটে গতকাল সোমবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিন শান্তিপূর্ণভাবে অতিবাহিত হয়েছে। সিলেট শিক্ষা বোর্ডের অধীনে গতকালের বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষায় ৬১ হাজার ৩৫৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে অংশ নেয় ৬০ হাজার ৬৪০ জন পরীক্ষার্থী। পরীক্ষার প্রথম দিনেই অনুপস্থিত ছিল ৭১৯ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে সিলেটে ৩১৪, হবিগঞ্জে ১৩৩, মৌলভীবাজারে ১৫৭ এবং সুনামগঞ্জে ১১৫ জন রয়েছে। সিলেট শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো: কবির আহমদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
সিলেট জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, এইচএসসিতে গতকাল সোমবার প্রথমদিনে সিলেট জেলার ৩০টি কেন্দ্রে ২৫ হাজার ৭৪৮ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে অংশ নেয় ২৫ হাজার ৪৩৪ জন। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে আলীম পরীক্ষার প্রথম দিনে সিলেট জেলার ১০টি কেন্দ্রে ২ হাজার ১১২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিল ২ হাজার ৬৯ জন। আলীমে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪৩ জন। এইচএসসি (ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা) বিষয়ে সিলেট জেলার ৫টি কেন্দ্রে ৪৮৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে অংশ নেয় ৪৬৭ জন। এ বিভাগে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২২ জন। সিলেট জেলায় এইচএসসি (ভোকেশনাল) একটি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতকাল এইচএসসি (ভোকেশনাল) প্রথমদিনের পরীক্ষায় ১৯২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে অনুপস্থিত ছিল ৪ জন।
উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার থেকে শুরু হওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠু, সুন্দর ও নকলমুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, সিলেট এবং জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করে। সিলেট শিক্ষা বোর্ডে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৭৬ হাজার ৯০৩ জন। এর মধ্যে ছেলে ৩৪ হাজার ৯৫২ এবং মেয়ে ৪১ হাজার ৯৫১ জন। সিলেট অঞ্চলের চার জেলার ২শ ৮৫টি কলেজের শিক্ষার্থীরা ৮০টি কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছে। পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে সিলেটে ৩০টি, হবিগঞ্জে ১৮টি, মৌলভীবাজারে ১৩টি এবং সুনামগঞ্জে ১৯টি কেন্দ্র রয়েছে। এদিকে, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা গ্রহণে সিলেট শিক্ষাবোর্ডের ৪টি এবং প্রশাসনের আরো ২০টি ভিজিল্যান্স টিম কাজ করছে। পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। শুধুমাত্র কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অধ্যক্ষ) এবং ভ্যানু কর্মকর্তাকে স্মার্ট ফোন ব্যতীত সাধারণ ফোন ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে আধা ঘণ্টা আগেই পরীক্ষার্থীদের সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হচ্ছে। পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন রোধে বোর্ডের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে কঠোর হুঁশিয়ারী। পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস সম্পর্কিত গুজব ছড়ালে কিংবা অসদুপায় অবলম্বন করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলেও বোর্ডের পক্ষ থেকে হুঁশিয়ারী দেয়া হয়েছে।
উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষা, মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের অধীনে আলীম পরীক্ষা ও বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এইচএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষা নির্বিঘেœ সম্পন্ন করতে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি’র) পক্ষ থেকে গণ-বিজ্ঞপ্তি জারী করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, পরীক্ষা চলাকালীন সিলেট মহানগর পুলিশ আইন-২০০৯ সালের ধারা ২৯, ৩০, ৩১, ৩২ এর প্রদত্ত ক্ষমতা বলে পরীক্ষা কেন্দ্রের ২শ’ গজের মধ্যে জনসমাবেশ, মিছিল, ঢাকঢোল বাজানো, লাউড স্পিকার ব্যবহার, অস্ত্রশস্ত্র, বিস্ফোরক দ্রব্য, ইট পাথর, ইত্যাদি বহন ব্যবহারসহ শান্তিশৃঙ্খলা ও জননিরাপত্তার হুমকিস্বরূপ কোনো কাজ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিটি পরীক্ষাকেন্দ্রকে পরীক্ষা চলাকালীন অস্থায়ীভাবে সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে। এ আদেশ পরীক্ষা চলাকালীন প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

আরও পড়ুন