পুলিশ এসল্ট মামলায় ৭ আসামীর বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ৩০ মার্চ, ২০২১     আপডেট : ৭ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমির আলী সিলেটের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া সিলেট কোতোয়ালী থানায় দায়ের করা ২০০৯ সালের পুলিশ এসল্ট মামলায় ৭ আসামীর বিভিন্ন মেয়াদে সাজা একটি পুলিশ এসল্ট মামলার দীর্ঘ বিচার শুনানি শেষে গত রবিবার জামায়াত-শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের ৭ জন নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেন এবং ৬ জন আসামীকে বেখসুর খালাস প্রদান করেন। গত রবিবার
সাজা প্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য আসামী হলেন গোলাগঞ্জ থানার মখদ্দস আলীর ছেলে জুনেদ আহমদ (২৪), ওসমানীনগর থানার গহরপুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে মোঃ বেলাল আহমেদ (২৬) কুলাউড়া থানার ভকমিশাইল গ্রামের জহির আলির ছেলে সাদিকুর রহমান(২৫), জালালাবাদ থানার ফখরুল আলম সেলিম (৩০)এবং বড়লেখার থানার টিপু( ৩০) এবং কোতোয়ালি থানার,দরগা মহল্লার বাসিন্দা নুরুল ইসলাম (৩৪) নামে ৬ আসামীকে ৭ বছরের কারাদণ্ড ও ১৫,০০০/= ( পনেরো হাজার) টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৩ মাসের বিনা শ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়,এবং অপর এক আসামী ওসমানীনগর থানার মোল্লাপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০,০০০/= ( দশ হাজার) টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৩ মাসের বিনা শ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়, এবং আব্দুর রাজ্জাক সহ এজাহার নামীয় ৬ আসামীকে বেখসুর খালাস প্রদান করা হয়।

এর আগে ০৮/১২/২০ ইং ও ০২/০২/২১ ইং এবং ১৬/০৩/২১ ইং তারিখে যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ২৮/০৩/২০২১ ইং তারিখ রায়ের জন্য দিন ধার্য্য করেন আদালত।

মামলায় বলা হয়, ২০০৯ ইং সালে জামায়াত-শিবিরের অবরোধ চলাকালে মিরাবাজারের দাদা পীরের মাজারের সামনে পিকেটিং চলাকালে পুলিশ সদস্যদের সাথে জামায়াত-শিবিরের নেতা কর্মীদের সংঘর্ষ হয়।সেই সংঘর্ষকালে জামায়াত-শিবিরের নেতা কর্মীদের দ্বারা ইট-পাটকেল ও ককটেল নিক্ষেপের ফলে কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হলে পরবর্তীতে পুলিশ বাদী হয়ে ১৩ আসামীর নামউল্লেখ করে সিলেট কোতোয়ালী থানায়, কোতোয়ালী জি,আর ৮০৩/২০০৯ ইং যা থানার মামলা নং_৪৩ ইং মামলা দায়ের করেন। মামলায় রাষ্ট্র পক্ষে মোট ১২ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রদান শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে আদালত উপরোক্ত রায় প্রদান করেন।

রায় ঘোষণার সময় আসামী জুনেদ আহমদ, সাদিকুর রহমান, নুরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন এবং বেলাল আহমেদ সহ অপর ৪ জন আসামী পলাতক ছিলেন।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন