পুরুষ থেকে নারী উত্তম

প্রকাশিত : ১৬ জানুয়ারি, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ড. আতি উল্লাহ বলেছেন, নারী ও পুরুষ সমান নয়। পুরুষের চেয়ে নারীর স্থান অনেক উপরে। কিন্তু নারী ও পুরুষের সমঅধিকার নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। পুরুষের সমান নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে কাজ চলছে। এটা কোনোভাবে সম্ভব নয়। নারীর অধিকার সব সময় উপরে থাকবে। এই অধিকার নিশ্চিত করে দিয়েছে ইসলামসহ অন্যান্য ধর্ম।
তিনি আজ ১৫ জানুয়ারি শাহপরানস্থ মা মনি কিন্ডার গার্টেন এন্ড প্রি ক্যাডেট একাডেমির নবীন বরণ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। এতে সভাপতিত্ব করেন স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. মুজিবুর রহমান ডালিম।
শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সাবেক সিনিয়র অধ্যাপক ড. আতি উল্লা নারী অধিকার বিষয়ে হাদিস উল্লেখ করে বলেন কন্যা সন্তান উত্তম। পবিত্র কুরআনের বানী উল্লেখ করে ড. আতি উল্লাহ বলেন, ছেলে সন্তানের জন্মের সময় বলা হয় উহা খবর। আর কন্যা সন্তান জন্মের সময় বলা হয় উহা সু খবর। এতেই প্রমাণিত নারীর স্থান অনেক উপরে। তিনি নারীর অধিকার বিষয়ে বলেন কন্যা সন্তান জন্মের পর লালন পালনসহ যাবতীয় ভরণ পোষন করেন পিতা। বিয়ের পর ভরন পোষণ করেন স্বামী। বৃদ্ধ বয়সে ভরন পোষণ করেন নিজ ছেলে সন্তান। মোট কথা জন্মের পর থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত নারীর ভরণ পোষণের দায়িত্ব পালন করেন পুরুষ। স্বাভাবিকভাবে নারীর সমান হওয়া পুরুষের পক্ষে সম্ভব নয়।
বিজ্ঞান সম্পর্কে ড. আতি উল্লাহ বলেন, অনেকে বলেন আমরা বিজ্ঞানের চরম উন্নতির যুগে বসবাস করছি। বিষয়টি মিথ্যা। কারণ বিজ্ঞান এখনো শিশু। আজ আমরা যারা স্মার্ট ফোন ব্যবহার করছি, ৫-৭ বছর পর দেখা যাবে এই স্মার্ট ফোন চলে গেছে ড্রেনে। তাই বিজ্ঞান আধুনিক নয়। আধুনিক হচ্ছে ইশ্বর তত্ব, সাহিত্য ও দর্শন।
ছাত্র রাজনীতি প্রসঙ্গ টেনে ড. আতি উল্লাহ বলেন, ছাত্র রাজনীতি করতে গিয়ে অনেক ছাত্রের প্রাণ ঝরে যায়। তাই ছাত্রাবস্থায় ছাত্র রাজনীতি সঠিক নয়। উপস্থিত অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের সন্তানরা যাতে ছাত্রাবস্থায় রাজনীতিতে প্রবেশ না করে সেদিকে নজর দেবেন। শিক্ষা জীবন শেষ করে রাজনীতিতে প্রবেশ করতে কোনো বাধা নেই।
অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও দৈনিক সিলেটের দিনরাত পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য আলহাজ আবদুল মোমিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট মানবাধিকার নেতা রোটারিয়ান ড. আর কে ধর, সাংবাদিক এমএ রহিম, বারহাল কলেজের অধ্যক্ষ মাছুম আহমদ, বিশিষ্ট সমাজসেবি জুনুবুর রাজা চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন খাদিম চৌমুনা বাজার কমিটির সেক্রেটারি জয়নাল আহমদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল শওকত আলী। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন স্কুল শিক্ষার্থী নির্বাচিতা পাল নিঝুম ও নৃত্য পরিবেশন করেন প্রত্যাশা হ্জাং।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মোমিন চৌধুরী বলেন, যে জাতি যত শিক্ষিত সে জাতি তত উন্নত। বাংলাদেশে গুণগত শিক্ষার হার বৃদ্ধি করতে আন্তরিক। যার প্রমাণ বছরের প্রথম দিনেই কোটি কোটি শিক্ষার্থীর হাতে বিনামূল্যে বই তুলে দিচ্ছে বর্তমান সরকার।
রোটারিয়ান আর কে ধর বলেন, শিশুরাই জাতির গর্বিত সন্তান। আর এই গর্বিত সন্তান হিসেবে তাদেরকে গড়ে তুলতে অভিভাবকদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে।
পরে স্কুলে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোহিতায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

 

আরও পড়ুন



শাল্লায় জমিয়তের ঈদ পুনর্মিলনী

হাবিবুর রহমান হাবিব, শাল্লা (সুনামগঞ্জ)থেকেঃ...

ওয়েল ফুড’ সিলেটে তিনটি শাখার উদ্বোধন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: অভিজাত বেকারী...

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ স্মরণে শোকসভা সফলের লক্ষে প্রস্তুতি সভা

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেটের প্রগতিশীল...