পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় বালাগঞ্জের এনামুলের লাশ গ্রীসে উদ্ধার

প্রকাশিত : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ২ মাস আগে  
  

গ্রীসে নিখোজ হওয়া বালাগঞ্জ উপজেলার রাজাপুর নিবাসী এনামুল এহসান জায়গীরদার ফয়ছলের মৃতদেহ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের প্রচেষ্টায় শেষ পর্যন্ত উদ্ধার করা হয়েছে।
বুধবার গ্রীস প্রশাসন সর্বাত্মক প্রযুক্তি ব্যবহার করে আলেকজান্ডার পলি বর্ডার এরিয়া থেকে হেলিকপ্টারযোগে এনামুলের মৃতদেহ উদ্ধার করে। পরে মৃতদেহটি আলেকজান্ডার পলি নামক হসপিটালে হস্তান্তর করা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে গ্রীসে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো.জসিম উদ্দিন এনডিসি গ্রীস প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে রীতিমত যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় মৃতদেহটি উদ্ধার করা হলো।
গত কয়েক দিন থেকে সিলেট জেলার বালাগঞ্জ উপজেলার রাজাপুর নিবাসী, আহমদ জায়গীরদারের দ্বিতীয় ছেলে এনামুল এহসান জায়গীরদার ফয়ছল তুরস্ক থেকে গ্রিস যাওয়ার পথে ইন্তেকাল করেছেন খবরটি, ‘এনামুলের মৃত্যুর ছবি ভাইরাল হলেও লাশ পাওয়া যাচ্ছে না’  শিরোনামে দৈনিকসিলেটডটকমসহ বেশ কিছু অনলাইন পোর্টালে সংবাদ প্রকাশিত হলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নজরে  আসে বিষয়টি।

ইউরো বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি তাইজুল ইসলাম ফয়েজ জানান,এনামুল এবং তার কয়েকজন নিকট আত্মীয় তুরস্ক বর্ডার অতিক্রম করে গ্রীস বর্ডারে প্রবেশ করলে বরফের মধ্যে এনামুল অজ্ঞান হয়ে যান। এক পর্যায়ে তার জ্ঞান ফিরে আসে এবং খাবার চেয়ে সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। এসময় তারা দালালের চোখকে ফাঁকি দিয়ে এনামুলের মৃতদেহের বেশ কয়েকটি ছবি তুলেন।
দালাল তাদেরকে হুমকি-ধামকি দিয়ে লাশটি ফেলে রেখে তাদেরকে গাড়িতে তুলে নিয়ে আসে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান,বর্তমান সরকার আন্তরিকভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইউরোপের শ্রমবাজার চালু করার। এনামুলের মত অবৈধ পথে আর যেন কোন বাংলাদেশী ইউরোপে পাড়ি না জমায়। এভাবে দালালদের খপ্পরে পড়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের যুবকরা প্রাণ হারায় সরকার তা চায় না।

এদিকে এনামুলের পরিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের প্রতি কৃজ্ঞতা প্রকাশ করে মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন তাদের সন্তানের লাশ দেশে নিয়ে আসার ব্যবস্থা গ্রহন করতে।

আরও পড়ুন