নৌকার বিজয়ে গড়ে ওঠবে অাধুনিক সুনামগঞ্জ

প্রকাশিত : ২৩ অক্টোবর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক :   অাসন্ন জাতীয় নির্বাচনে অাওয়ামীলীগের বিজয় অাধুনিক সুনামগঞ্জ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট গবেষক ও সুনামগঞ্জ-১ (ধর্মপাশা, মধ্যনগর, তাহিরপুর ও জামালগঞ্জ) অাসনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী, সুনামগঞ্জ জেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের অাহবায়ক ড. রফিকুল ইসলাম তালুকদার। নির্বাচন পূর্ব প্রস্তুতির অংশ হিসেবে অাওয়ামীলীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরা সহ সুনামগঞ্জকে নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং সেগুলো বাস্তবায়নে নৌকার বিজয় শীর্ষক এক সভায় তিনি এমন বক্তব্য প্রদান করেন। নির্বাচনপূর্ব ইশতেহার উল্লেখপূর্বক নৌকার মনোনয়ন পেলে উন্নত যোগাযোগ, মানসম্পন্ন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, হাওরাঞ্চলের সময়োপযোগী ও পরিবেশবান্ধব স্থায়ী সমাধানকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার দিক-নির্দেশনায় সুনামগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবেন বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন বিশিষ্ট এই কলাম লেখক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক । তিনি বলেন, ”বর্তমান সরকারের শাসনামলে সারাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ এবং ২০১৪ সালে ক্ষমতায় এসে এই হাওরাঞ্চলের উন্নয়নের জন্যও অফুরন্ত সহায়তা করেছেন। একই সাথে বিপুল সম্পদ-সহায়তা প্রদান করেছেন। তাই এই সময়ের মধ্যে উন্নয়ন এখানে চোখে পড়ার মতো। অামি বিশ্বাস করি যে, এখানে এখনও কৌশলগতভাবে অনেককিছু করার অাছে এবং সেগুলো জরুরী। ” যাতায়াত সমস্যা নিরসনে তিনি উন্নত বিশ্বের ন্যায় অভ্যন্তরীণ রেল যোগাযোগ চালু ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ব্যবস্থার মান উন্নয়ন সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ের ওপর অালোকপাত করেন। তিনি অান্তঃউপজেলা ও উপজেলা-জেলার মৌলিক রাস্তাঘাট এবং রেলওয়ে নেটওয়ার্ক স্থাপনসহ ভালো পরিবহন ব্যবস্থার সংযোজন, মানসম্মত শিক্ষা-চিকিৎসা ও সম্পূর্ণ দুর্নীতিমুক্ত কৃষি-সেচ-বাঁধসহ অন্যান্য পরিষবা নিশ্চিত করা এবং মধ্যনগর থানাকে উপজেলায় উন্নীত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ” এখানে এই কাজগুলোর বাস্তবায়ন ঘটাতে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অাবারো ক্ষমতায় অানতে হবে। এজন্য অামাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ” পরিচ্ছন্ন রাজনীতির মডেলখ্যাত ড. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ” দলীয় সভানেত্রী যদি অামাকে মনোনয়ন নাও দেন, তবুও বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনার নির্দেশ রক্ষা এবং ঐক্যবদ্ধ অাওয়ামীলীগ ‘র উন্নত বাংলাদেশ গড়ার ভিশন বাস্তবায়নে নির্বাচিত প্রতিনিধি ও জননেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় অামি সবসময় অাপনাদের পাশে থাকবো। “  উপজেলা ভিত্তিক উন্নত শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিতকরণ সহ পরিপূর্ণ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করে এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে তিনি নিজের বিশ্লেষণধর্মী জাতীয়, অান্তর্জাতিক এবং কারিগরি দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে নানা কার্যকরী উদ্যোগ গ্রহণের ব্যাপারে অাশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, ” কৃষি উন্নয়নে শতভাগ সাফল্য অর্জনের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে হাওর-বাঁধ সংশ্লিষ্ট পরিবেশ রক্ষা বিষয়ক যাবতীয় সমস্যার দীর্ঘস্থায়ী সমাধানে অামাদের সবাইকে একত্রে এগিয়ে অাসতে হবে।” অসুখ প্রতিকারের পরিবর্তে প্রতিরোধে নজর দিলে বিভিন্ন সমস্যার পরিমাণ বহুলাংশে হ্রাস পাবে এবং সেক্ষেত্রে তথ্য ও প্রযুক্তিগত শিক্ষায় অামাদেরকে অনেক দূর এগিয়ে যেতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়ে এলাকাবাসীর কল্যাণে কাজ করার সুযোগ পেলে রাজনৈতিক কর্মী সহ সকল শ্রেণির অাপামর জনসাধারণের যাতে সম্পদের নায্যতা থাকে, সে বিষয়টি তিনি অবশ্যই মাথায় রাখবেন বলে ড. রফিকুল ইসলাম উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সম্পদের সুষ্ঠু বন্টন, অাইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ, জঙ্গিবাদ দমন, নারী, শ্রমিক ও শিশু কল্যাণ, কৃষি এবং শিল্প বিপ্লব সহ সর্বস্তরের জনগণ ও জনমনের সার্বিক কল্যাণে অাওয়ামীলীগের অাবার ক্ষমতায় অাসা প্রয়োজন এবং এ ব্যাপারে তিনি সকলের সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করেন। ড. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ” সুনামগঞ্জ-১ অঞ্চলের প্রতিটি স্তরের মানুষের কাছ থেকে অামি যে পরিমাণ ভালোবাসা পেয়েছি, সেই ঋণ সত্যিই অপূরণীয় এবং এই অাস্থা ও ভালোবাসার প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস রেখেই অামি বলতে চাই যে, অাসন্ন নির্বাচনে অাওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেলে অামার বিজয় সুনিশ্চিত। ” তিনি অারো বলেন, ” অামি যদি অাপনাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ার সুযোগ নাও পাই, তাহলে যে-ই নির্বাচিত হোন না কেন, অামি দলের নির্বাচিত প্রতিনিধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে সবসময় অাপনাদের সংস্পর্শে থাকার চেষ্টা করবো ইনশা আল্লাহ্ । “ জননেত্রীর নির্দেশনার বাইরে গিয়ে যেসব মনোনয়ন প্রত্যাশীরা দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করছেন, তিনি তাদের অাবেগের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শনপূর্বক তাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার স্বার্থে কাজ করার অাহবান জানান। তিনি বলেন, ” জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা যাকেই মনোনয়ন দিবেন বুঝে শুনেই দিবেন। বিশ্বের শ্রেষ্ঠ নেতাদের একজন জননেত্রী শেখ হাসিনা, তিনি যে সিদ্ধান্তই নেন না কেন, যাকেই মনোনয়ন দেন না কেন ; দেশ ও জাতির কল্যাণে জননেত্রীর গৃহীত সিদ্ধান্ত অবশ্যই শতভাগ সঠিক হবে এবং তার যেকোনো সিদ্ধান্তের প্রতি পুরোপুরি অাস্থা রেখে অামাদেরকে দশ ও দেশের কল্যাণে, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের স্বার্থে মিলেমিশে কাজ করতে হবে। “ বিগত বছরগুলোতে গৃহীত এবং বাস্তবায়িত অাওয়ামীলীগ সরকারের সমস্ত উন্নয়ন প্রকল্প জনগণের সামনে তুলে ধরে তিনি বলেন, ” ইতিমধ্যেই অামরা সোনার বাংলার পূর্বাভাস পেতে শুরু করেছি, এবার সেই পূর্বাভাসকে বাস্তবরূপ প্রদানের সময় ; যার চাবি জনগণের হাতে। “

আরও পড়ুন



আসাদ উদ্দিনকে পীর মহল্লা পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি আবুল বশরের অভিনন্দন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেটের ব্যবসায়ীদের...

পাঠাও’র অফিসে তালা দিলো রাইডাররা

অনলাইন অ্যাপসভিত্তিক পরিবহন সার্ভিস পাঠাও’র...

নবীগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ পালিত

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতাঃ সারাদেশের ন্যায়...

জাফর ইকবালকে দেখতে সিএমএইচে প্রধানমন্ত্রী

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি...