নেপালকে উড়িয়ে দিল তাজিকিস্তান

প্রকাশিত : ০৩ অক্টোবর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

নেপালকে উড়িয়ে দিয়ে নিজেদের শক্তিমত্তার জানান দিলো তাজিকিস্তান। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে তাজিকিস্তান ২-০ গোলে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নেপালকে পরাজিত করে।
দু’দলের মধ্যে র‌্যাংকিংয়ের পার্থক্য অনেক। এই তফাৎটুকু ম্যাচের প্রথম থেকে বেশ ভালোভাবেই বুঝা যাচ্ছিল। ম্যাচের বেশির ভাগ সময় মাঝমাঠ ও বল দখলে এগিয়ে ছিল তাজিকিস্তান। এই জয়ে সেমিফাইনালের পথে এগিয়ে গেল ফাতখুললোর দল।
সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যে সাড়ে ৬টায় শুরু হওয়া ম্যাচের ২মিনিটের মাথায় এগিয়ে যেতে পারতো তাজিক দল। নেপালের কিপার বিকেশ কুঠু কিছুটা বেরিয়ে এসে বল ক্লিয়ার করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু রক্ষণের এক খেলোয়াড় বলটি নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেন। তবে তিনিও ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেননি। বল চলে যায় তাজিক মিডফিল্ডার মোহাম্মদ জন রাহিমভের কাছে। বল পেয়ে রাহিমভ শটও নিয়েছিলেন। কিন্তু তাজিক অপর এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে বল চলে যায় পোস্টের উপর দিয়ে।
পরের মিনিটে আক্রমণে যায় নেপাল। ডান দিক থেকে যাওয়া আক্রমনটি কাজে লাগাতে পারেননি নিরঞ্জন খাড়কা। তার নেয়া শটটি ছিল পোস্টের অনেক বাইরে।
১১ মিনিটে ম্যাচের প্রথম কর্নার লাভ করে নেপাল। তাজিক রক্ষণে বাধা পায় সে চেষ্টা।
১৪ মিনিটে একটি সেটপিস লাভ করে নেপাল। সুনীল বালের নেয়া শটে হেডও করেছিলেন আগোয়ান একজন। কিন্তু অল্পের জন্য বলটি পোস্টের উপর দিয়ে চলে যায়।
১৬ মিনিটে নিজেদের প্রথম কর্ণার লাভ করে তাজিকিস্তান। সে যাত্রায় আক্রমণটি ভেস্তে যায় নেপাল রক্ষণে।
সময় গড়ানোর সাথে সাথে মাঝমাঠের দখল নিয়ে নেয় তাজিকিস্তান। মুহুর্মুহু আক্রমণে নেপালের রক্ষণকে ব্যস্ত রাখেন ফাতখুললো-রাহিমভরা।
ম্যাচের ২৬ মিনিটের মাথায় আসে কাক্সিক্ষত গোল। এরগাশেভ জাহাঙ্গিরকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় তাজিকিস্তান। এর থেকে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি অধিনায়ক ফাতখুললোভ ফাতখুললো।
৪২ মিনিটে স্কোর লাইন ২-০ হতে পারতো। বাম দিক থেকে যাওয়া আক্রমণে আখমেদভ মানুচেখরের মাইনাসে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি এরগাশেভ জাহঙ্গির।
প্রথমার্ধের শেষ দিকে নেপাল একটি আক্রমণ চালায়। কিন্তু তাজিকিস্তানের রক্ষণে সেই আক্রমণও মুখ থুবড়ে পড়ে।
দ্বিতীয়ার্ধে নেপাল কিছুটা আক্রমণের চেষ্টা চালায়। তাজিক রক্ষণে সেসব আক্রমণ কোন আলো কাড়তে পারেনি।
ম্যাচের ৭০ মিনিটে স্কোরলাইন দ্বিগুণ করে তাজিকিস্তান। অধিনায়ক ফাতখুললোর এসিস্টে হেডের বিনিময় গোলটি করেন তুরনভ কমরন।
৭২ মিনিটে নেপাল তাদের সবচেয়ে ভালো সুযোগটি হাতছাড়া করে। বাম প্রান্ত থেকে চালানো আক্রমণে সুনীল বাল পারেননি জাল খুজে নিতে।
ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো ভালো আক্রমণ শানাতে পারেনি কোন দলই। ফলে ২-০ ব্যবধানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের।
এই হার অনাকাক্সিক্ষত তবে তাজিকিস্তানের প্রশংসা করতে ভুলেননি নেপাল কোচ বাল গোপাল মহারাজন। ম্যাচ শেষে আয়োজিত প্রেস কনফারেন্সে তিনি জানান, ‘আমরা ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন, কিন্তু ম্যাচে আজ ভালো করতে পারিনি। দলের ৪/৫ জন খেলোয়াড় ইনজুরি আক্রান্ত। র‌্যাঙ্কিং বিবেচনায় তাজিকিস্তান আমাদের অনেক উপরে। অবশ্যই তারা ভালো দল। পরবর্তী খেলায় জয় আশা করছি।’
এই টুর্নামেন্টকে নিজেদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ মানছেন তাজিক কোচ তুখতায়েভ আলিসার। প্রেস কনফারেন্সে তিনি জানান, ‘এ টুর্নামেন্টের মাধ্যমে আমরা খেলোয়াড় যাচাই-বাছাই করতে পারছি। এটি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।’
টুর্নামেন্টে জয় নিয়ে খুবই আশাবাদী তাজিক কোচ তুখতায়েভ। ‘যদিও পর্যবেক্ষণ আর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য টুর্নামেন্টকে বেছে নেয়া। তারপরও আমরা আশাবাদী যে, প্রতিটি ম্যাচেই জয়লাভ করবো।’
বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের জন্য আগামী ম্যাচটি ‘ডু অর ডাই’-ম্যাচে পরিণত হয়েছে। ৬ অক্টোবর নেপাল মুখোমুখি হবে শক্তিশালী ফিলিস্তিনের। অপর দিকে তাজিকিস্তান আগামীকাল বৃহস্পতিবার মুখোমুখি হবে অপর শক্তিশালী দল ফিলিস্তিনের।
এদিকে, আজ বুধবার মাঠে নামছে লাওস ও ফিলিপাইন। সন্ধ্যে সাড়ে ৬টায় একই ভেন্যুতে গ্রুপ ‘বি’ এর ম্যাচটি শুরু হবে।

আরও পড়ুন