নিত্যপণ্যের দাম কমানোর দাবিতে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট এর বিক্ষোভ

,
প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর, ২০২০     আপডেট : ৪ সপ্তাহ আগে
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক চাল, পেঁয়াজ, আলুসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দব্যের দাম কমানোর দাবিতে এবং জাতীয় ও জনজীবনের জরুরী সমস্যা নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানিয়ে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা শাখার উদ্যোগে ২৮ অক্টোবর ২০২০ বুধবার বিকেল ৫ টায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। কিনব্রিজের দক্ষিণ পয়েন্ট থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে দক্ষিণ সুরমার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে কদমতলী পয়েন্টে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার অন্যতম নেতা একে আজাদ সরকার।
জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট দক্ষিণ সুরমা উপজেলা শাখার যুগ্ম-আহবায়ক আনছার আলীর পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলার দপ্তর স¤পাদক রমজান আলী পটু, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা শাখার সাধারণ স¤পাদক মো: ছাদেক মিয়া, সাবেক সাধারণ স¤পাদক শ্রমিকনেতা শেখর সেন, সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক স¤পাদক ইমান আলী, সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন দক্ষিণ সুরমা উপজেলা কমিটির সভাপতি মো. মনির হোসেন, বাবনা আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মো. শাহিন মিয়া প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকারের বক্তব্য অনুয়ায়ী দেশে পর্যাপ্ত পেঁয়াজ মজুত আছে এবয় এসব পেঁয়াজ অনেক আগেই আমদানি করা হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে ভারত কর্তৃক পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ার খবরে একদিনের ব্যবধানে দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৪০ টাকার বেশি বৃদ্ধি করা হয়। আড়দদার-মজুতদাররা সরকারের সাথে সমন্বিত হয়ে পরিকল্পিতভাবে পেঁয়াজসহ নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করে জনগণের পকেট কাটছে। লোক দেখানো মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করলেও বাজারে পেঁয়াজের দামের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব পড়ছে না। জনগণের অতিপ্রয়োজনীয় একটি সবজি আলুর দাম হঠাৎ করে বৃদ্ধি করে ৫০ টাকা করা হয়েছে। সরকার একবার ৩০ টাকা, আবার ৩৫ টাকা বিক্রির কথা বললেও বাজারে এর কোনো প্রভাব পড়ছে না। এমতাবস্থায় গুদামজাতকারীদের বিরুদ্ধে ‘মজুত আইন’ অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দেওয়া প্রয়োজন। তাছাড়া দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন বৃদ্ধি, সংরক্ষণের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানান।
বক্তারা আরও বলেন, করোনা দূর্যোগে হোটেল-রেস্টুরেন্টসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল এবং এখনও অনেক অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের শ্রমিক ও নিম্ন-আয়ের কর্মজীবী অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। শ্রমিকদের এই দুর্বিষহ পরিস্থিতিতে মালিকরা কোন ধরনের সাহায্য করছে না। বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করার পরও সরকারি ঘোষিত কোন সহায়তা শ্রমিকরা পাচ্ছে না। উপরন্তু সম্প্রতি হোটেল-রেস্টুরেন্ট খুললেও অধিকাংশ শ্রমিককে এখনও কাজে নেওয়া হয়নি। আর যাদেরকে কাজে নেওয়া হয়েছে তাদেরকে দিয়ে আগের থেকে অতিরিক্ত কাজ করালেও বেতন দিচ্ছে আগের থেকে কম, কোন কোন ক্ষেত্রে অর্ধেক মজুরিতে কাজ করতে বাধ্য করা হচ্ছে। বক্তারা শ্রমিকদের সাথে এমন অন্যায় আচরণ পরিহার করে সকল শ্রমিককে কাজে নিয়োগদানসহ যথাযথ মজুরি প্রদানের দাবি জানান এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগকে কার্যকর তদারকির আহবান জানান।


  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

আরও পড়ুন

করোনা প্রতিরোধে উত্তর কাজীটুলায় হোমিওপ্যাথিক ওষুধ বিতরণ

           জালালাবাদ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল এসোসিয়েশনের...

সিলেটে নতুন সিভিল সার্জন, ওসমানীতে হিমাংশু

         এদিকে এতদিন ধরে সিলেটের সিভিল...

হিন্দুÑবৌদ্ধÑখিষ্টান ঐক্য পরিষদের সম্মেলন সফলে ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের র‌্যালি

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: বাংলাদেশ হিন্দুÑবৌদ্ধÑখিষ্টান...

সিলেট প্রেসক্লাবে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

         গোয়াইনঘাটের সালুটিকরে জোড়া খুনের মামলার...