নিউ ইয়র্কে অবৈধরাও ড্রাইভিং লাইসেন্স করছেন

প্রকাশিত : ১৭ জানুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৯ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আবদুল আহাদ, স্পেশাল করেসপন্টেন্ট নিউ ইয়র্কঃ

নিউ ইয়র্কে অবস্থানরত অবৈধরাও ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে পারছেন। গত ১৬ থেকে ড্রাইভার লাইসেন্স এর সুবিধা শুরু হয়। এমন সুযোগে খুশির আমেজ বইছে কাগজপত্র বিহীন বাসিন্দাদের মাঝে।
অবৈধদের ড্রাইভিং লাইসেন্স দেয়ার বিরুদ্ধে কোর্টে আনীত মামলা গত ৬ ডিসেম্বর খারিজ হওয়ায় ডাইভিং লাইলেন্স পেতে আর কোন আইনী বাঁধা থাকলো না। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্ক হচ্ছে ১৩তম স্টেট যেখানে অবৈধরাও ড্রাইভার লাইসেন্স নিতে পারছেন।
ব্রঙ্কসের বাংলাদেশী অধ্যুষিত পার্কচেস্টার এলাকা থেকে নির্বাচিত সিনেটর লুইস সিপুলভেদা কর্তৃক আনীত গ্রীন লাইট বিল পাশ হওয়ার পর গভর্নর এন্ডু কুমো তাতে স্বাক্ষর করেন। এরপর তা কোর্টে চ্যালেঞ্জ করা হলেও বিষয়টি কোর্ট খারিজ হয়ে যায়। এখন থেকে ড্রাইভার লাইলেন্সের জন্য যে কেউ আবেদন করতে পারবেন। এজন্য কোন সোস্যাল সিকিউরিটি নাম্বার লাগবে না।
নিউইয়র্কে ড্রাইভার লাইসেন্স এর আবেদন করতে যে কেউ তার পাসপোর্ট এবং নিজ দেশের ড্রাইভার লাইসেন্সকে আইডি হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে এটি কোনভাবেই দুই বছরের বেশী সময়ের জন্য মেয়াদোত্তীর্ণ হতে পারবে না।
নিউইয়র্ক স্টেট ইমিগ্র্যাশন কোয়ালিশনের প্রধান স্টিভ চো বলেছেন, দীর্ঘ ১৮ বছরের প্রতীক্ষার পর নিউ ইয়র্কের বাসিন্দরা লাইসেন্স পাচ্ছেন। এটা আমাদের সকলের জন্যই আনন্দের খবর। এজন্য তিনি লুইস সিপুলভেদা সহ অন্য আইন প্রণেতাদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, এটা আমাদের রোড নিরাপত্তা ও নিউ ইয়র্ক স্টেটের অর্থনীতিকে আরো চাঙ্গা করতে সাহায্য করবে।
স্টেট সিনেটর লুইস সিপুলভেদা বলেছেন, এর ফলে এখন নিউইয়র্কে ন্যায় বিচার এবং নাগরিক সুবিধা ও সমতা প্রতিষ্ঠা হলো। আমরা আশা করবো এর ফলে প্রতিটি কমিউনিটির সাথে আমাদের সম্পর্কের বন্ধন আরো জোরদার হবে।
এরিক কাউন্টি ক্লার্ক মাইকেল কারনস বলেছেন, সেপ্টেম্বর ১১ এর সন্ত্রাসী হামলার পর অবৈধদের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স বন্ধ করার বিধান হয়েছিল। যাতে কেউ আমাদের চোখের আড়ালে ফেডারেল ভবণ বা প্লেনে আর প্রবেশ করতে না পারে।
এসোসিয়েটেড প্রেস এপির মতে এর ফলে আগামী তিন বছরে নিউইয়র্কে ২ লাখ ৬৫ হাজার অবৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স সুবিধা নিতে পারবে। এর অর্ধেকেরও বেশীর অবস্থান হচ্ছে নিউ ইয়র্ক সিটিতে।
এদিকে নিউইয়র্ক স্টেট ডিপার্টমেন্ট অব মটর ভেহিক্যাল বলেছে, আবেদনকারীদের আবেদন ও কাগজপত্র পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য তারা ইতোমধ্যেই তাদের কর্মীদের প্রশিক্ষন দিয়েছে।
স্টেট ডিএমভি কর্মকর্তারা বলেছেন, আবেদনকারীদের অবশ্যই তাদের দেশীয় ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং পাসপোর্টের কপি আবেদনের সাথে দিতে হবে।
ডিএমভি মুখপাত্র লিসা কুমজান বলেছেন, নিউ ইয়র্ক স্টেট যে আইন পাশ করেছে তা ডিএমভির প্রতিটি ক্লার্ককে মানতে হবে। এক্ষেত্রে কোন অফিসের কেউ যদি নিজের ইচ্ছা অনিচ্ছা নিয়ে এর ব্যত্যয় করতে চান তাহলে সেটা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য হবে না। এক্ষেত্রে কেউ আইন না মানলে তাকে ডিএমভির চাকুরী ছেড়ে দেয়া উচিৎ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

ডিজিএম মোঃ একরাম হোসেন বদলী

283        283Sharesজাবেদ আহমদ   ডিজিএম মোঃ একরাম...

মহিউদ্দিন শিরু’র ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার

         বিশিষ্ট কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ...

সাবেক মেয়র কামরানের জন্য দোয়া চাইলেন জেলা পরিষদের সদস্য মতিউর রহমান মতি

         করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সিলেট সিটি করপোরেশনের...

বাঘা ইউনিয়ন ডেভোলাপমেন্ট এসোসিয়েশন ইউকে’র খাদ্য ও অর্থ বিতরণ

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : গোলাপগঞ্জের...