নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে মিডিয়া কর্মীদের বিশাল ভূমিকা রয়েছে

,
প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর, ২০২০     আপডেট : ১ মাস আগে
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক দেশের সমৃদ্ধি ও টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে হলে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা নির্মূল করা ছাড়া অন্য কোন পথ নেই। নারী ও শিশুর প্রতি জেন্ডার ভিত্তিক নির্যাতন প্রতিরোধে মিডিয়া কর্মীদের অবদান অনেক। সাংবাদিকরা নির্যাতনের প্রকৃত তথ্য মিডিয়ায় প্রকাশ করায় নির্যাতনকারীরা শাস্তি পায়। এছাড়া অভিভাবকমহল নির্যাতন সম্পর্কে জানতে পেরে আরও বেশি সচেতন হয়। সাংবাদিকরা বিভিন্ন সময়ে তাদের লেখনীর মাধ্যমে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছেন।
শনিবার বিকালে ব্র্যাক জেন্ডার জাস্টিস অ্যান্ড ডাইভারসিটি কর্মসূচির এনগেজ মেন এন্ড বয়েজ নেটওয়ার্ক ফর প্রোমোটিং জেন্ডার জাস্টিস বাংলাদেশ প্রকল্পের আওতায় পিরোজপুরে উদ্দীপন প্রশিক্ষণ সেন্টারে প্রতীকি যুব সংসদের আয়োজনে ‘নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, বর্তমান প্রেক্ষাপট ও মিডিয়ার ভূমিকা’ শীর্ষক খুলনার বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক্স ও অনলাইন মিডিয়ার সঙ্গে এক মিডিয়া মোবিলাইজেশন সভায় সাংবাদিক নেতারা এসব কথা বলেন। এসময় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ২০ জন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।
পিরোজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মুনিজ্জামান নাসিম এর সভাপতিত্বে সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পিরোজপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফসিউল ইসলাম বাচ্চু, ব্রাকের সদর এরিয়া ম্যানেজার (স্বাস্থ্য) মোঃ বশিরুজ্জামানসহ উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন প্রতীকি যুব যুব সংসদের চেয়ারপার্সন আমিনুল ইসলাম (ফিরোজ মোস্তফা) । অনুষ্ঠানের শুরুতেই সংক্ষিপ্ত প্রকল্প পরিচিতি ও মিডিয়া মোবিলাইজেশনের উদ্দেশ্য ও কেন পুরুষ এবং বালকের সম্পৃক্ততা প্রয়োজন তা তুলে ধরা হয়। মূল ধারণাপত্র উপস্থাপন শেষে নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সচেততনতামূলক ভিডিওচিত্র প্রদর্শিত হয়। মুক্ত আলোচনা পর্বে বক্তারা জেন্ডরভিত্তিক সহিংসতা বন্ধে মিডিয়ার ভূমিকা, প্রতিবন্ধকতা ও করনীয়ক্ষেত্র চিহ্নিত করে সুপারিশমালা প্রণয়ন করেন।
মোবিলাইজেশন সভার মুক্ত আলোচনায় নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রকৃত চিত্র তুলে ধরতে সাংবাদিকতায় নারীদের প্রবেশগম্যতা বৃদ্ধি; নারী ও শিশু নির্যাতনের কেস স্টাডি গণমাধ্যম কর্মীদের পরিবেশনের মাধ্যমে এই সম্পর্কিত বেশি বেশি ফলোআপ সংবাদ প্রকাশের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন সাংবাদিকগণ। বিভিন্ন ইস্যূর পাশাপাশি নারী ও শিশু নির্যাতনের চিত্র সম্পর্কিত অনুসন্ধানি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলে এ সম্পর্কিত নির্যাতনের চিত্র অনেকটা কমে আসবে বলেও মুক্ত আলোচনা উঠে আসে।
নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতার রিপোটিংয়ের ভাষা ও ছবি সংবেদনশীলভাবে ব্যবহার করার অঙ্গীকার করে বক্তারা যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য অধিকার নিশ্চিতকরণ এবং পাঠ্যক্রমে যৌন শিক্ষা অন্তভুক্তকরণ, সকল কার্যক্রমে তরুণ সম্প্রদায়ের অন্তভুক্তি, রাজনীতিবিদ ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকেন্দ্রিক কর্মসূচি গ্রহণ, নারীদের কর্মসংস্থান ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিতকরণ এবং জেন্ডার সংবেদনশীল অনুষ্ঠান মিডিয়ায় প্রচারের সুপারিশ জানান ।


  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

আরও পড়ুন

শাবিতে পড়ানো হবে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’

         শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে...

মাদ্রিদে ছাত্রলীগ স্পেন ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

         কবির আল মাহমুদ, স্পেন :দীর্ঘ...

বরের মৃত্যুর ৩দিন পর কনেও না ফেরার দেশে

         তাসলিমা খানম বীথি: মাত্র তিনদিন...