ধ্বংসের মুখে সুরমা নদী

প্রকাশিত : ২৯ জানুয়ারি, ২০২০     আপডেট : ৪ মাস আগে  
  

ইফতেখার শামীম
নদীমাতৃক বাংলাদেশের অন্যতম নদী সুরমা। সুরমা,বাংলা‌দে‌শের দীর্ঘতম নদীও বটে। একসময় পণ্য পরিবহন ও যাতায়াতের অন্যতম মাধ্যম ছিলো এই সুরমা নদী। এই সুরমা নদী পাড়ি দিয়েই সিলেটে পা রেখেছিলেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। বহু স্মৃতিগাথাঁর স্বাক্ষী সুরমা নদী আজ ধ্বংসের মুখে। ছ‌বি‌টি কাজীর বাজার ব্রিজ (সেল‌ফি ব্রিজ), শেখঘাট, সি‌লেট থে‌কে তোলা। পর্যাপ্ত রক্ষণাবেক্ষণ ও সচেতনতার অভাবে প্রায় কিলোমিটারব্যাপী পলি জমে নদীটি ধীরে ধীরে মৃত নদীতে পরিণত হচ্ছে। নদী‌টির নাব্যতা আজ প্রায় ধ্বং‌সের মু‌খে। ধারণা করা হচ্ছে, কাজীর বাজার ব্রীজ তথা সেল্ফি ব্রিজের কাঠা‌মোগত দিক‌টি উক্ত নদী‌টির নাব্যতায় বাঁধা গ্রস্থতা তৈ‌রি‌তে ভূ‌মিকা রাখ‌ছে। কারণ এর পাই‌লিং গু‌লো গতানুগ‌তিক পাই‌লিং থে‌কে আলাদা যা মূল নদীর অ‌নেকটা জায়গা জু‌ড়ে বিস্তৃ‌ত। ফ‌লে নদীর পা‌নির স্বাভা‌বিক গ‌তি‌ প্রবা‌হে বাঁধা সৃ‌ষ্টি হ‌চ্ছ। আর এ কার‌ণে ই‌তোম‌ধ্যে নদীর তল‌দে‌শে (ব্রি‌জের পূর্বপা‌শে) প্রায় কি‌লো‌মিটার ব্যাপী প‌লি জ‌মে নদী‌টি প্রায় মৃত নদী‌তে প‌রিণত হওয়ার সম্মুখীন। অ‌চি‌রেই হয়তবা সুরমা নদীটির এ অং‌শের নাব্যতা এ‌কেবা‌রে ধ্বংস হওয়ার উপক্রম হ‌য়ে নদীর উপর বিরুপ প্রভাব ফেল‌তে পা‌রে। সর্বশেষ নদীকে ঘোষণা করা হয়েছে প্রকৃতির সপ্রাণ সত্তা। অথচ এদিকে খেয়াল নেই প্রশাসনের। তাই সুশীল সমাজের আর্তনাদ নদীকে বাচাঁতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরি।

আরও পড়ুন