ধর্মঘটের প্রতিবাদে সিলেট শহীদ মিনারে গণ-অনাস্থা প্রাচীর

প্রকাশিত : ১৬ জুন, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে

সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস বন্ধ করার দাবিতে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সংগঠনধর্মঘটের ডাক দিয়েছে । এই ধর্মঘটের প্রতিবাদে গণ-অনাস্থা প্রাচীর কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ যোগ দেন।। রোববার (১৬ জুন) বিকাল ৩টায় সিলেটস্থ সুনামগঞ্জবাসীর আয়োজনে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ অনাস্থা প্রাচীরের আয়োজন করা হয়।
অনাস্থা প্রাচীরে বক্তারা বলেন, জনগণের টাকায় সড়ক সেতু নির্মাণ হয়, সেই সড়কে জনগণের গাড়ি সরকারের গাড়ি বিআরটিসির বাস চলাচলে বাধা কেন? পরিবহন মালিকরা বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধে যে ষড়যন্ত্রের জাল পেতেছেন তা আম জনতা বুঝে গেছেন, মানুষ পরিবহন মালিকদের ডাকা নৈরাজ্য সৃষ্টিকারী ধর্মঘটের বিরুদ্ধে যথাসময়েই প্রতিরোধ গড়ে তুলবে। বিআরটিসির বাস চলাচলে জনতা সার্বিক সহযোগীতা করবে।
বক্তারা আরো বলেন, পরিবহণ মালিক শ্রমিকরা অহেতুক ধর্মঘট ডেকে সাধারণ মানুষকে হয়রানী করা কোন সভ্য সমাজ মেনে নিতে পারে না। তাই এদের বিরুদ্ধে দূর্বার গণআন্দোলন গড়ে তুলতে সমাজের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। বক্তারা অবিলম্বে পরিবহণ মালিক শ্রমিকদের ডাকা আহুত ধর্মঘট প্রত্যাহারের দাবি জানান।

এ সময় বক্তারা সিলেট-সুনামগঞ্জে সড়কে উন্নত বাস সার্ভিস চালু, ফিটনেসবিহিন গাড়ি সড়ক থেকে সরিয়ে নেওয়া, পরিবহন ধর্মঘটের নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি বন্ধ করা, বিআরটিসি বাসের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের সংস্কার কাজ দ্রুত শেষ করার দাবি জানান।
সিলেট প্রেসক্লাব ফাউন্ডেশনের সভাপতি সাংবাদিক আল আজাদের সভাপতিত্বে ও সাবেক ছাত্রনেতা এম. রশীদ আহমদ এবং সঞ্জয় চৌধুরীর যৌথ সঞ্চালনায় গণ-অনাস্থা প্রাচীর অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হায়াতুল ইসলাম আখঞ্জি, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি তাপস দাস পুরকায়স্থ, অ্যাডভোকেট রাজ উদ্দিন আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রণজিত সরকার, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামসুল ইসলাম, শামসুল বাছিত শেরো, রফিকুল ইসলাম, অধ্যাপক খছরুজ্জামান, রাজনীতিবিদ মুক্তাদির আহমদ মুক্তা, তৌফিকুল আলম বাবলু , মাদানী কাফেলার সভাপতি ম্ওালানা রুহুল আমীন নগরী, ইয়ামিন চৌধুরী, আফজাল হোসেন, দেবাংশু দাস মিঠু, অ্যাডভোকেট রিপা সিনহা, মিজানুর রহমান জিতু, সজল সরকার, কবিরুল ইসলাম, হারুনুর রশীদ, প্রভাষক সুয়েব আহমদ, পিযুষ পুরকায়স্থ, এনামুল হক লিলু, কাশমির রেজা, কনক পাল অরূপ, ওবায়দুল হক মিলন, ফেরদৌস আলম, ঝুটন পাল, হারুনুর রশীদ, আবু সালিম, মাওলানা শুয়াইব, জাহাঙ্গীর আলম, মাহবুব চৌধুরী, সাজিদুর রহমান সাজু, রুকন আল রুহান প্রমুখ।

একাত্মতা পোষণ করে গণ-অনাস্থা প্রাচীরে বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে অংশ নেয় সিলেটস্থ দিরাই ছাত্র কল্যাণ পরিষদ, জামালগঞ্জ ছাত্র কল্যাণ পরিষদ, তাহিরপুর ছাত্র পরিষদ, বিশ্বম্ভরপুর ছাত্র কল্যাণ পরিষদ,মাদানী কাফেলা, মধ্যনগর ছাত্র কল্যাণ পরিষদ, দিরাই শাল্লা যুব কল্যাণ পরিষদ, তাহিরপুর ছাত্র কল্যাণ পরিষদ।

আরও পড়ুন