দেশ জাতি ও গণতন্ত্রের চরম ক্রান্তিলগ্নে শহীদ জিয়ার প্রয়োজনীয়তা অনুভুত হচ্ছে

প্রকাশিত : ৩০ মে, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন- বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও শহীদ জিয়া একই সূত্রে গাথা। মহান স্বাধীনতার ঘোষনা দিয়েই শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান নিজের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। মুক্তিযুদ্ধে যেভাবে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তেমনী দেশের ক্রান্তিলগ্নে মুখ থুবড়ে পড়ে থাকা গণতন্ত্রকে পুনঃপ্রবর্তন করেছেন। জিয়াউর রহমানের সুযোগ্য নেতত্ব এবং সুশাসনকে ইতিহাসের সোনালী অধ্যায় হিসেবে জাতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে। তিনি গণতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে যখন বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছিলেন সেই সময়ে কতিপয় বিপথগামী সেনা কর্মকর্তা বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ জিয়াকে শহীদ করে। কিন্তু খুনীরা শহীদ জিয়াকে হত্যা করলেও তাদের মিশন সফল হয়নি। কারণ শহীদ জিয়ার সুযোগ্য সহধর্মিনী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। তারুন্যের অহংকার দেশনায়ক তারেক রহমানকে আগামীর রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে দেখতে দেশপ্রেমিক জনতা অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছে। ক্ষমতাসীন অবৈধ ফ্যাসিস্ট সরকার শহীদ জিয়া পরিবারের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলার ফরমায়েসী রায়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। দেশনায়ক তারেক রহমানের উপর একের পর এক মিথ্যা মামলা, গ্রেফতারী পরোয়ানা এবং ফরমায়েসী সাজা প্রদান করা হচ্ছে। কিন্তু তাদের কোন ষড়যন্ত্রই সফল হতে দেয়া হবেনা। দেশপ্রেমিক জনতার গণবি®েফারণে বাকশালী ও অবৈধ সরকারের পতন নিশ্চিত করতে হবে।
গত মঙ্গলবার মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। নগরীর দরগাগেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের শহীদ সুলেমান হলে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ওলামা দল নেতা মাওলানা সাদিকুর রহমান।
আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা: শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, জেলা সহ-সভাপতি ওসমানীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ময়নুল হক চৌধুরী, জেলা সহ-সভাপতি কামরুল হুদা জায়গীরদার, সহ-সভাপতি ও কানাইঘাট উপজেলাা চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, সহ-সভাপতি একেএম তারেক কালাম, সহ-সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, জেলা উপদেষ্ঠা শহীদ আহমদ চেয়ারম্যান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন, ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, মোঃ মইনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট হাসান আহমদ পাটোয়ারী রিপন ও আবুল কাশেম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক এডভোকেট মোঃ ফখরুল হক, প্রচার সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জায়গীরদার, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট মুজিবুর রহমান, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শাকিল মোর্শেদ, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সিলেট বিভাগীয় সহ-সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাঈদ আহমদ, জেলা শ্রম বিষয়ক সম্পাদক সুরমান আলী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল, জেলা যুবদলের সহ-প্রচার সম্পাদক আব্দুল মালেক, যুবদল নেতা আব্দুল খালিক ও মাসুম আলম, ছাত্রদল নেতা চৌধুরী মোহাম্মদ সুহেল, লিটন আহমদ, এখলাছুর রহমান মুন্না, আব্দুল কাইয়ুম, আশরাফ উদ্দিন রুবেল, মাসরুর রাসেল, সোহেল ইবনে রাজা, আব্দুল করিম জোনাক, আলী আকবর রাজন ও আফজাল হোসেন প্রমুখ।
সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম বলেন- দেশ ও জাতির চরম ক্রান্তিলগ্নে জাতি বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ জিয়ার তীব্র প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছে। আওয়ামী দুঃশাসনে বিধ্বস্ত গণতন্ত্র শহীদ জিয়া পরিবারের নেতৃত্বেই পুন:প্রতিষ্ঠিত হবে। শহীদ জিয়ার জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধভাবে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়তে হবে।
মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন- খুনীরা শহীদ জিয়াকে হত্যা করে বাংলাদেশ থেকে শহীদ জিয়ার নাম মুছে দিতে ষড়যন্ত্র করেছিল। কিন্তু জনতার জিয়া কখনো মরে নাই, মরতে পারেনা। শহীদ জিয়া বাংলাদেশের প্রতি ইঞ্চি মাটিতে এবং লাল সবুজের পতাকায় ছড়িয়ে রয়েছেন।
ডা: শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন- শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান মহান স্বাধীনতার ঘোষনা দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিঁেয় পড়েছিলেন। দেশ জাতির ক্রান্তিলগ্নে তিনি গণতন্ত্রকে পুনঃপ্রবর্তন করেছেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন বহুদলীয় গণতন্ত্র। জনতার জিয়া চির অক্ষয়।
সভাপতির বক্তব্যে আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- আওয়ামী অবৈধ সরকার শহীদ জিয়ার স্মৃতি মুছে দিতে সুগভীর ষড়যন্ত্র করছে। জিয়া পরিবারকে রাজনীতি থেকে মাইনাস করতে বাকশালী সরকার প্রতিহিংসার রাজনীতিতে লিপ্ত রয়েছে। শহীদ জিয়ার আদর্শের লড়াকু সৈনিকেরা বেচে থাকতে বাংলাদেশের মাটি থেকে শহীদ জিয়ার অবদান কেউ মুছে দিতে পারবেনা। জনতার জিয়া অজেয়।

আরও পড়ুন



লন্ডন প্রবাসী সাঈদ চৌধুরীকে অপহরণের চেষ্টা

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের সংরক্ষিত...

হেতিমগঞ্জে সবুজসাথী ক্রীড়াসংঘ ফুটবল লীগের উদ্বোধন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: হেতিমগঞ্জে সবুজসাথী...

গোয়াইনঘাটে চোরাই ট্রাক উদ্ধার, আটক-১

গোয়াইনঘাট (সিলেট) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতাঃ...

একুশ নিয়ে নদীর স্মৃতিকথা

ছালিক আমীন: নদী একটা মেয়ে।...