দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের পুরস্কার প্রদান

প্রকাশিত : ০৪ মার্চ, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

আব্দুস সোবহান ইমন :

দূর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার এ.এফ.এম.আমিনুল ইসলাম বলেছেন, একজন খারাপ মানুষকে ভালো করলে সমাজের দূর্নীতি কমে আসবে। সাধারণ মানুষকে দূর্নীতি প্রতিরোধের লক্ষ্যে কর্মশালা এবং পরিকল্পনা গ্রহণ করে সচেতনতার সৃষ্টির উদ্যোগ নিতে হবে। দূর্নীতি যারা করে তাদেরকে ঘৃণা করতে হবে। প্রত্যেক স্কুল কলেজে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদেরকে দূর্নীতি প্রতিরোধের প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে হবে। এই শিক্ষার্থীরা আগামীদিনে সমাজ এবং দেশ থেকে দূর্নীতি দমন করে রাষ্ট্র পরিচালনায় বিভিন্ন পেশায় দায়িত্ব নেবে। দূর্নীতিকে দমন, প্রতিরোধ আন্দোলনে সমাজের সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করে নিয়ে আসতে হবে।
সোমবার সিলেট নগরীর রিকাবীবাজার কবি নজরুল অডিটরিয়ামে আয়োজিত সিলেট বিভাগের শ্রেষ্ঠ মহানগর/জেলা এবং উপজেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদেরকে পুরস্কার প্রদান উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রদান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক আবদুল্লাহ্ আল জাহিদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট মেট্রোপলিটনের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার শ্রী পরিতোষ ঘোষ, সিলেট রেঞ্জের বিপিএম অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শক শ্রী জয়দেব কুমার ভদ্র, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মো.তাহমিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার(রাজস্ব) শ্রী মৃনাল কান্তি দেব এবং পুরস্কারপ্রাপ্তদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জুবায়ের সিদ্দিকী। মো. আব্দুল্লাহর পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জুড়ি উপজেলার দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মো.তাজুল ইসলাম, সিলেট জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক রোটারিয়ান বেলাল আহমদ প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, দূর্নীতি সমাজিক ব্যাধি। এটি সমাজ এবং দেশ থেকে মুক্ত করতে হলে প্রতিরোধমূলক সিসটেম চালু করতে হবে। দুর্নীতি যারা করে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে পর্যাপ্ত শাস্তি দিতে হবে। স্কুল পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধ শিক্ষা দিয়ে দূর্নীতি দমন প্রতিরোধে মনোবল শক্তি জাগ্রত করতে হবে। সমাজের প্রতিটি মানুষকে সাথে নিয়ে দূর্নীতির বিরুদ্ধে এগিয়ে আসলে কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশের উন্নয়নের মাত্রা আরো এগিয়ে যাবে।
অনুষ্ঠানের শেষে সিলেট বিভাগের শ্রেষ্ঠ মহানগর/জেলা এবং উপজেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদেরকে পুরস্কার প্রদান করা হয় এবং অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে ছিলো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা।

আরও পড়ুন



আন্তর্জাতিক হাঁটা দিবসে লিডিং ইউনিভার্সিটির পদযাত্রা

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: এক বর্ণাঢ্য...

শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

এইচ এম সামাদ,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের উন্নয়নে...

বলদী আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রবাসী সংবর্ধনা প্রদান

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তেতলী ইউনিয়নের...