দক্ষিন সুরমায় মানববন্ধন-বিক্ষোভ

প্রকাশিত : ১৯ মার্চ, ২০২০     আপডেট : ৬ মাস আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলের দক্ষিন সুরমায় দামড়ীর হাওরে রাস্তা নির্মাণ বন্ধ ও ব্রিজ ভেঙ্গে মাটির বাঁধ বা স্লুইসগেইট নির্মাণের দাবীতে ফুসে উঠেছে ১০ গ্রামের মানুষ। রাস্তা ও ব্রিজ নির্মান বন্ধের দাবিতে বুধবার তারা হাওর তীরে মানববন্ধন, সমাবেশ ও বিক্ষোভ করেছে। এ সময় তারা রাস্তা ও ব্রিজ অপসারনের দাবিও জানায় কৃষকরা। কর্মসূচিতে স্থানীয় দৌলতপুর, সিকন্দরপুর, পানিগাও, রাউতকান্দি, মির্জানগর, মানিকপুর, ঝাপা গ্রামের লোকজন অংশ নেন।
সমাবেশে এলাকার লোকজন জানান- দক্ষিন সুরমার দাউদপুর ইউনিয়নে দামড়ীর হাওরের অবস্থান। এই হাওরে মধ্যখান দিয়ে আশুগঞ্জ বাজার থেকে ইনাত আলীপুর স্কুল পর্যন্ত প্রায় ৩.১ কিলোমিটার জায়গায় রাস্তা ও ব্রিজ নির্মান করা হচ্ছে। তারা বলেন- রাস্তা নির্মাণের ফলে বর্ষাকালে ভেসে আসা কচুরীপানায় ভরে যাবে কৃষকের জমি সেই সাথে বর্ষাকালে পানি যাতায়াত বাধাগ্রস্ত হয়ে তৈরী হতে পারে অকাল বন্যাও। এতে জমি কৃষি কাজের অনুপযোগি হয়ে পড়বে। আর অপরিকল্পিতভাবে ব্রীজ নির্মাণের ফলে বোরো আবাদের জন্য আটকে থাকা পানি দ্রুত নেমে যাওয়ায় প্রায় ৫০ হাজার কৃষক বোরো আবাদ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
কৃষকরা বলেন- প্রবাসীদের অর্থায়নে প্রশাসনের কোনো অনুমতি ছাড়াই অপরিকল্পিতভাবে রাস্তা ও ব্রিজ নির্মান করা হচ্ছে। বাধা দেওয়ার পরও নির্মান কাজ বন্ধ হয়নি। এ ব্যাপারে তারা স্থানীয় সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস সহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে স্মারকলিপি দিয়েছেন বলে জানান। সমাবেশে তারা হুশিয়ারি উচ্চাররন করে বলেন- রাস্তা ও ব্রিজ নির্মান বন্ধ না হলে লাগাতার কর্মসূচি ঘোষনা করবেন তারা।
এলাকার প্রবীন মুরব্বী মছকন্দর আলীর সভাপতিত্বে ও সাঈদ আহমদের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সিকন্দরপুর গ্রামের প্রবীন মুরব্বী আব্দুল্লাহ মিয়া, কবির মিয়া, সুনু মিয়া, আনোয়ারুল হক, হাজী মন্তাজ আলী, ফারুক মিয়া, আব্দুল হক, দৌলতপুর গ্রামের প্রবীন মুরব্বী চেরাগ আলী, এখলাছ মিয়া, মিজানুর রহমান, মোস্তাক মিয়া, পানি গাও গ্রামের প্রবীন মুরব্বী সোনাফর আলী, আসাব মিয়া, আব্দুল কাদির, রাউতকান্দি গ্রামের হারুন মিয়া, শফিক মিয়া, আবু সাঈদ সাইদুল, জয়নাল আবেদীন, মীর্জা নগরের পংকী মিয়া, ইলিয়াস মিয়া, পাখি মিয়া, মানিকপুর গ্রামের রফিক মিয়া, কুতুব আলী, মখলিস মিয়া, ঝাপা গ্রামের মাহতাব উদ্দিন, রুবেল আহমদ, শাহীন আহমদ, ফুলসাইনদ গ্রামের দৃষক তুতা মিয়া, কটু চান,তৈয়ব আলী, কটু মনা, লক্ষীপাশা গ্রামের কৃষক রাজু মিয়া, ওয়াহীদ চৌধুরী, ফজলু মিয়া, নিমাদল গ্রামের কৃষক মনির মিয়া, গিয়াস উদ্দিন ও আংগুর মিয়া প্রমুখ।
উল্লেখ্য- পানি সংকটের কারনে এবার হাওরে প্রায় হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ফসল হয়নি। কৃষকরা কিছু জমিতে ফসল ফলালেও পানি সংকটের কারনে বোরো ফসল হয়নি।
এই বিষয়ে স্থাণীয় সরকার বিভাগের (এলজিডি) প্রকৌশলী আফছার আহমেদ-এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আশুগঞ্জ বাজার থেকে ইনাত আলীপুর স্কুল পর্যন্ত প্রায় ৩.১ কিলোমিটার এই রাস্তাটি নির্মাণের বিষয়টি তিনি কিছুই জানেন না। তিনি আরো বলেন, ৩.১ কি.মি. রাস্তাটি এলজিডি’র গেজেটভুক্ত হলেও কারা রাস্তাটি নির্মাণ করছে তা তিনি অবগত নন। তবে, যেই রাস্তাটি নির্মাণ করুক সে বিষয়ে তাদের অবগত করার উচিৎ ছিলো। হাওর অঞ্চলের রাস্তা উচু বা বারমাসি করা যায় কিনা জানতে চাইলে উত্তরে তিনি বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে তাদের বলা আছে হাওর অঞ্চলের রাস্তা যেভাবে আছে ঠিক সেইভাবে করতে হবে। অর্থাৎ কিছুতেই উচু করা যাবেনা।
এই বিষয়ে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্ঠু চৌধুরী’র কাছে জানতে চাইলে, প্রথমে এই বিষয়ে অবগত নন বলে জানান তিনি। পরবর্তিতে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বাঁধন কান্তি সরকারের কাছে অবগত হয়ে তিনি জানান, এখানে একটি কালভার্ট পিআইও থেকে করা হয়েছে। তবে, রাস্তাটি কাবিখা থেকে করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। এই রাস্তা বা কালভার্ট কৃষকদের ক্ষতি হচ্ছে বা হবে বললে তিনি জানান, জনগনের ক্ষতি হয এই রকম কোন প্রকল্পই বাস্তবায়ন করা যাবেনা। দু’একদিনের মধ্যেই সরজমিনে গিয়ে যেভাবে ভালো হয় সেভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

মহিমান্বিত রজনী : লাইলাতুল কদর

         মো: শামসুল ইসলাম সাদিক হাজার...

আমল বিহীন আলেম দ্বারা ইসলামের উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি হয়

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: ইসলামী আন্দোলন...

সিলেট নগরীতে দিনদুপুরে ছিনতাই

         সিলেট নগরীতে ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে...

জাফর ইকবালের উপর হামলার প্রতিবাদে এসএমবিএ -এর মানববন্ধন

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : বিশিষ্ট...