দক্ষিণ সুরমার দাউদপুর এলাকাবাসী ‘বাঘ’ আতংকে

প্রকাশিত : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০     আপডেট : ১ সপ্তাহ আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের দাউদপুর এলাকার এলাকার লোকজন ‘বাঘ’ আতংকে রাত যাপন করছেন। গ্রামের পাড়া-মহল্লার রাস্তাঘাটে, বাজারে মানুষের মুখে মুখে বাঘের আক্রমণের খবর ও বাঘ আতংক বিরাজ করছে।
জানা যায়, গত ১০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পশ্চিম দাউদপুর গ্রামের মৃত ধিরেন্দ্র চন্দের ছেলে শ্রীবাস চন্দ, একই গ্রামের মকু মিয়ার ছেলে নিজাম উদ্দিন ও সামাদ মিয়া ছেলে মুজাহিদ ইসলাম দাউদপুর চৌধুরীবাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে দাউদপুর হাসপাতালের সামনে পৌঁছামাত্র পেছন
থেকে ‘বাঘ’ এসে তাদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে শ্রীবাস চন্দকে কামড় দেয়। এ সময় তার সাথে থাকা দু’জন দৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। শ্রীবাসের আর্ত চিৎকার, সাহসিকতার কারণে ও লাইটি জ¦ালিয়ে একটি গাড়ি আসায় ‘বাঘ’টি পালিয়ে যায়। স্থানীয় জনগণ তাকে উদ্ধার করে মোগলাবাজারে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করেন। বর্তমানে তার ডান পায়ে বাঘের কামড়ের চিহ্ন রয়েছে। চিকিৎসক শ্রীবাসকে ভ্যাকসিন প্রদান করেছেন।
একই দিন রাত সাড়ে ৮টায় দাউদপুর গাংপাড় মুতিরপাড়ার বাড়ি থেকে কবির আহমদ চৌধুরী (কাজী) নামাজে উদ্দেশ্যে বের হলে বাড়ির সামনের রাস্তায় পেছন থেকে ‘বাঘ’ এসে তার ঝাঁপিয়ে পড়ে। এ সময় ওই প্রাণী তার বাম হাতে কামড় দেয়। তার আর্তচিৎকার শোনে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
আলাপকালে শ্রীবাস জানায়, আমি মনে করেছিলাম আমাকে শিয়ালে আক্রমণ করেছে। শিয়াল মানুষকে ভয় পায়, দেখলে দৌড়ে পালায়। কিন্তু আক্রমণের ধরন দেখে বুঝতে পারলাম এটা শিয়াল নয়, এটা বাঘ।
হামলার শিকার কবির আহমদ চৌধুরী (কাজী) বলেন, অন্ধকারের জন্য আমি নিশ্চিত হতে পারেনি আমাকে শিয়াল না বাঘে আক্রমণ করেছে। তবে সেটা একটি হিংস্র পশু।
ঘটনার পর থেকে দাউদপুর দাউদাবাদ সড়ক দিয়ে এলাকার মানুষ সহ বিভিন্ন গ্রামের লোকজন বাঘ আতংকে চলাচল করতে ভয় পাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে তরুণ সমাজকর্মী রাহিমুল ইসলাম লিহিন বলেন, গত সপ্তাহ খানেক ধরে আমাদের দাউদপুর এলাকার লোকজন ‘বাঘ’ আতংকে ভুগছেন। ইতিপূর্বে দু’জনকে বাঘে আক্রমণ করেছে। তারা চিকিৎসাধীন। বিষয়টি আমরা এলাকাবাসী বন বিভাগকে জানিয়ে বাঘ ধরার ব্যবস্থা করে এ এলাকার মানুষজনকে জানমালের নিরাপত্তার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
আলাপকালে দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিন্টু চৌধুরী বলেন, দাউদপুরে ‘বাঘে’ আক্রমণে দু’জন আহত হওয়ার বিষয়টি আপনার কাছ থেকে জানলাম। আমি বিষয়টি বন বিভাগকে জানাবো। যত দ্রুত সম্ভব বাঘটি ধরার ব্যবস্থা করে এলাকাবাসীকে আতংক থেকে মুক্ত করবো।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

বাণিজ্য মেলার ১ম দিনেরর‌্যাফেল ‘ড্র’ এর বিজয়ী যারা

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেটে ৫ম...

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শাবির শিক্ষার্থীদের অবস্থান

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: নিরাপদ সড়ক...

মায়াকান্না

          ইশরাক জাহান জেলী বাংলা...

বিমানবন্দরে প্রবাসী আ.লীগ নেতাকে বিদায় সংবর্ধনা

         বেতার ও বিটিভির গীতিকার, বাউল...