দক্ষিণ সুনামগঞ্জে এম এ মান্নানের নির্বাচনী জনসভায় মানুষের ঢল

প্রকাশিত : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

সালেহ আহমদ হৃদয়, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ b
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার ভাটি অঞ্চলের মানুষের ভাগ্যে উন্নয়নে বিগত দিনে যেসব প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে তা স্বাধীনতার পরবর্তী সময় থেকে কখনই এ ধরণের দৃশ্যমান উন্নয়ন বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় নাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা হাওরবাসীর উন্নয়নে দনিরাত কাজ করে যাচ্ছেন। হাওরবাসীর পক্ষে আমি কোন প্রকল্প নিয়ে গেলে তিনি সাথে সাথে অনামোদন করে দেন। তিনি প্রতিনিয়ত বলেন, হাওর এলাকার মানুষের জন্য আরো প্রকল্প নিয়ে আসেন, আমি হাওর এলাকার মানুষের উন্নতি দেখতে চাই।
তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ভাটির মানুষের উন্নয়নের সরকার। আমি ভাটির সন্তান হিসাবে আপনাদের একটি কথা বলতে চাই। আমি এলাকার উন্নয়নে বিশ^াসী। আমি সুনামগঞ্জ বাসীর ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য মেডিকেল কলেজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^ বিদ্যালয়, টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট, রাণীগঞ্জ সেতু নির্মাণ সহ আরো ছোট বড় অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি এবং কিছু প্রকল্প চলমান রয়েছে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশে যে উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি করেছে। এধরণের উন্নয়নের জোয়ার এদেশে বাস্তবায়ন করা হয় নাই। আওয়ামী লীগ হলো স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি। আওয়ামীলীগের মাঝে দেশপ্রেম আছে। দেশপ্রেম আছে বলেই আওয়ামী লীগ সরকার দেশের মানুষের উন্নয়নের কথা ভাবেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা গ্রামের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নের কথা চিন্তা করেন। দেশের প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুৎ,রাস্তা-ঘাট থেকে শুরু করে জেলার সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করেন। গ্রামের হতদরিদ্র মানুষের কথা চিন্তা করেন বলেই বিএনপির বন্ধ করে দেওয়া কমিউনিটি ক্লিনিক গুলো চালু করে বিনামূল্যে ঔষধ সহ চিকিৎসা প্রদান করছেন। এটা সম্ভব হয়েছে শেখ হাসিনার সরকারের দ্বারাই। আওয়ামী লীগ সরকার মানেই উন্নয়ন। মন্ত্রী আরো বলেন, আওয়মাী লীগ সরকার কখনো জনগণের টাকা মেরে খায় নাই। আওয়ামী লীগ সরকারের দেশের সাধারণ মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করে। বিএনপি তারা নিজের ভাগ্যের উন্নয়নে কাজ করে বলেই বেগম খালেদা জিয়া এতিমের টাকা মেরে খাওয়ায় বিচারে জেলে আছেন। তার বড় ছেলে তারেক রহমান দেশের টাকা মেরে বিদেশে পাচার করে আজ দেশের বাহিরে ফেরারী হয়ে ঘুরছেন। এরা কখনো দেশের মানুষের উন্নয়নের কথা চিন্তুা করেনা। তারা সব সময় নিজের আরাম আয়েসের চিন্তুা করেন।
তিনি জনগণকে লক্ষ্য করে বলেন আমি এম এ মান্নান বিগত ১০ বছর আপনাদের সেবা করেছি। আমি একটুকু সম্পদ অন্যায় ভাবে উপার্জন করিনি। কিন্তু যারা জনগণের সাথে প্রতারণা করে মামলা খায়, মামলার হাজিরায় ১০ লাখ টাকা দিয়ে ছাড়া পায়। যারা বিদ্যুৎ দেয়ার কথা বলে মানুষের সাথে টাকা নিয়ে প্রতারণা করে। তারা কি ভাল মানুষ। তারা কখনো জনগণের ভাগ্যের উন্নয়ন করতে পারে না। তারা নিজেদের উন্নয়নে ব্যস্থ থাকবে। তাই আসন্ন ৩০ তারিখের নির্বাচনে আপনারা বিচার করে সৎ ও যোগ্য ব্যক্তিকে ভোট দেবেন। আমি বিগত দিনে আপনাদের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য কাজ করেছি। আগামীতেও আপনাদের ভোটে নৌকা মার্কায় বিজয়ী হয়ে নতুন নতুন প্রকল্প খোঁজে বের করে বাস্তবায়ন করে আপনাদের সেবা করবো।
বুধবার বিকাল ৪ টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের আয়োজনে পাগলা সরকারি হাই স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে এম এ মান্নানের নির্বাচনী বিশাল জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি ।
সভায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী আব্দুল হেকিমের সভাপতিত্বে ও সুনামগঞ্জ সদর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো.তেরাব আলী ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি প্রভাষক নুর হোসেনর যৌথ পরিচালনায় সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী আবুল কালাম।
সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলী সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ¦ মতিউর রহমান, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহ সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ¦ নুরুল হুদা মুকুট, সুনামগঞ্জ-মৌলভী বাজার আসনের সংরক্ষিত মহিলা সদস্যা এ্যাড শামছুন নাহার বেগম শাহানা রব্বানী,সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টার ঐক্য পরিষদ সভাপতি দিপক ঘোষ, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড.শামীমা শাহরিয়া, জগন্নাথপুর পৌর সভার মেয়র হাজী আব্দুল মনাফ,জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুর রহমান,জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল আলম নিক্কু।
সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি ও জয়কলস ইউপি চেয়ারম্যান মো. মাসুদ মিয়া, শিমুলবাক ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জিতু,পশ্চিম পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান মো. নুরুল হক, জেলা পরিষদ সদস্য জহিরুল ইসলাম,সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ফজলে রাব্বি স্মরণ,উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হারুন মিয়া, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান,জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু,পূর্ব পাগলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মজিদুর রহমান মধু,জয়কলস ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুকিত,পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি জগলুল হায়দার প্রমুখ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক,জগন্নাথপুর উপজেলা সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদির আহমদ মুক্তা,সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি সৈয়দ আবুল কাসেম, শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক এমদাদ রাজা চৌধুরী,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অভিজিৎ চৌধুরী,সদস্য এ্যাড মলয় চক্রবর্তী রাজু,সুনামগঞ্জ জগৎজ্যোতি পাঠাগারের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড সালেহ আহমদ,কলকলিয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, পাটলী ইউপির চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি সোয়েব আহমদ,জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব,দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুবিনা বেগম, উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান সিতাংশু শেখর ধর সিতু,সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি সেলিম উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুবিন,জেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টু, জেলা শিল্প কলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক এ্যাড সামছুল আবেদীন,দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল বাছিত সুজন, ইকবাল হোসেন,উপজেলা যুবলীগ সভাপতি এ্যাড. বোরহান উদ্দিন দোলন, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুজন, জেলা কাজী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ,উপজেলা তথ্য প্রযুক্তিলীগ সভাপতি শহীদুল ইসলাম, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ নেতা শাহীনুর রহমান শাহীন, উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান হাজী আব্দুল্লাহ মিয়া,সহ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যন শহীদুর রহমান শহীদ, পশ্চিম বীরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম, দরগাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মনির উদ্দিন, পূর্ব পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন, পূর্ব বীরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান নুর কালাম,উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ সভাপতি হাজী তহুর আলী, সহ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান রফিক খাঁন, সহ সভাপতি মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবাব মিয়া, এনামুল কবির এনাম,আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড বশির উদ্দিন,সহ প্রচার সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সুরঞ্জিত চৌধুরী টপ্পা, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুর রহমান আসাদ, জিএম সাজ্জাদুর রহমান, উপজেলা খেলাফত মজলিস সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ছমির উদ্দিন সালেহ, উপজেলা আল ইসলাহ সাধারণ সম্পাদক কাজী মফিজুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল তাহিদ, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ কাজী সমিতির সভাপতি কাজী আইয়ূব আলী,উপজেলা যুবলীগ সহ সভাপতি রিপন তালুকদার, উপজেলা যুবলীগ সাবেক আহবায়ক সেলিম রেজা,উপজেলা কৃষকলীগ যুগ্ন আহবায়ক ফরিদ আহমদ,ছাত্রলীগ সভাপতি রয়েল আহমদ, সাধারণ সম্পাদক এমরান হোসেন তালুকদার প্রমুখ।
সভার শুরু হওয়ার আগে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে বিভিন্ন দলে দলে সভা মঞ্চ নৌকার মিছিলে মিছিলে হাজারো লোকজনদের ঢল আসতে থাকে। একসময় সভা মঞ্চ জনগণে কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে উঠে। ##

আরও পড়ুন