তিউনিসিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, হবিগঞ্জের ২ যুবক নিখোঁজ

প্রকাশিত : ১২ মে, ২০১৯     আপডেট : ১ বছর আগে  
  

তিউনিসিয়া উপকূলে নৌকাডুবির ঘটনায় হবিগঞ্জের দুই যুবক নিখোঁজ হয়েছেন। চার বন্ধু একসঙ্গে রওনা হয়ে এক জন ইতালি পৌঁছেছেন। বাকি তিনজনের একজন উদ্ধার হলেও এখনও নিখোঁজ দুইজন।

রোববার (১২ মে) সন্ধ্যায় নিখোঁজদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি জানা যায়। নিখোঁজরা হলেন- হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া গ্রামের হাজী আলাউদ্দিনের ছেলে আব্দুল কাইয়ুম (২২) ও আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুল মোক্তাদির (২২)। দু’জনই হবিগঞ্জ সরকারি বৃন্দাবন কলেজের অনার্সে অধ্যয়রত ছিলেন।

জানা যায়, গত ৯ মে রাতে ইতালি যাওয়ার উদ্দেশে আব্দুল কাইয়ুম ও আব্দুল মোক্তাদির নৌকায় ওঠেন। তাদের সঙ্গে ছিলেন একই গ্রামের মামুন মিয়া (২২) এবং নূরুল আমীন (২৮)। যাত্রীদের নেওয়া হচ্ছিল দু’টি নৌকায় ভাগ করে। প্রথম নৌকায় ওঠেন নূরুল আমীন। ওই নৌকাটি না ডুবায় তিনি ইতালিতে পৌঁছেছেন। পরবর্তী নৌকায় বাকি তিনজন গেলে তিউনিসিয়া উপকূলে এটি ডুবে যাওয়ার পর সাঁতরাতে থাকেন তিনজন। উদ্ধার হওয়াদের মধ্যে মামুন মিয়া থাকলেও নিখোঁজ রয়েছেন কাইয়ুম এবং মোক্তাদির।

লোকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. জাহির মিয়া জানান, উদ্ধার হওয়া মামুন মিয়া তার ভাগ্নে। মোবাইলে মামুন মিয়া জানিয়েছেন- নৌকাডুবির পর মোক্তাদিরের সঙ্গে তিনি হাত ধরে সাঁতার কেটেছেন অনেকক্ষণ। হাত ছেড়ে দেওয়ার পর আর মোক্তাদিরকে আর দেখতে পাননি।

আব্দুল কাইয়ুমের বাবা হাজী আলাউদ্দিন জানান, গত বুধবার (৮ মে) তার ছেলে বাড়িতে ফোন করে ইতালি যাওয়ার বিষয়টি জানান। নৌকা ডুবির পর থেকে তাদের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মুক্তাদিরও রওনা দেওয়ার আগের দিন বাড়িতে ফোন করেন বলে জানিয়েছেন তার চাচা আব্দুল খালেক।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফজলুল জাহিদ পাভেল জানান, বিষয়টি তিনি এখনও নিশ্চিত নন। তবে এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

গত ৯ মে গভীর রাতে লিবিয়া উপকূল থেকে ৭৫ জন অভিবাসীবাহী একটি বড় নৌকা ইতালি পাড়ি জমায়। নৌকাটি তিউনিসিয়া উপকূলে ডুবে গেলে বেশির ভাগ যাত্রী নিহত হন।

আরও পড়ুন



লিডিং ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের মতবিনিময়

লিডিং ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের মতবিনিময়...

নিউইয়র্কে শিক্ষার্থী আশরাফুরের সাফল্যের গল্প

ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম : এসএটি পরীক্ষার ফলাফলেও...