তাজিকিস্তানকে উড়িয়ে দাপুটে শুরু ফিলিস্তিনের

প্রকাশিত : ০৫ অক্টোবর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

আহমদ ইয়াসিন খান
সর্বশেষ ফিফা র‌্যাংকিংয়ে দলটির অবস্থান শততম। প্রতিপক্ষ তাজিকিস্তানের অবস্থান ১২০-এ। শুধু এ ম্যাচেই নয়, টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া দলগুলোর মধ্যে রাংকিংয়ে এগিয়ে আছে ফিলিস্তিন। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি যে এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে হট ফেভারিট, তা বৃহস্পতিবারের ম্যাচ দিয়ে জানান দিলো। তাজিকিস্তানকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ফিলিস্তিন ¯্রফে উড়িয়ে দিয়েছে ২-০ গোলে।
সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার গ্রুপ পর্বের চতুর্থ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। খেলার মাত্র ৩৩ সেকেন্ডেই এগিয়ে যায় ফিলিস্তিন। জনাথান জোরিলার গোলটি এবারের আসরের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কম সময়ের।
তবে সময় গড়ানোর সাথে সাথে ম্যাচে ফিরে আসে তাজিকিস্তান। ৩ মিনিটে প্রথম আক্রমনে যায় তাজিক দল। ডি-বক্সের বাইরে থেকে পোস্টে শটও নিয়েছিলেন মোহাম্মদ জন রাহিমভ। কিন্তু লক্ষ্যে থাকেনি তার শট।
৭ম মিনিটে আবারো আক্রমনে যায় ফিলিস্তিন। কিন্তু তাজিক রক্ষণে সে আক্রমন ভেস্তে যায়। পাল্টা আক্রমনে একটি সুযোগ পেয়েছিল তাজিকিস্তান। এরগাশিভ জাহঙ্গিরকে কড়া পাহারায় রেখেছিলেন ফিলিস্তিন অধিনায়ক আবদাল লাতিফ আলবাহদারী। ফলে আক্রমনে কেন আলো ছড়ায়নি।
ম্যাচের ১০ মিনিটে প্রথম হলুদ কার্ড দেখেন ফিলিস্তিনের ওদে দাব্বাগ। অফসাইডে ছিলেন তিনি, রেফারীর বাঁশি উপেক্ষা করে পোস্টে শট নেয়ায় রেফারী তাকে হলুদ কার্ড প্রদর্শন করেন।
১৬ মিনিটে তাজিকিস্তান গোলের সুযোগ চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। ফিলিস্তিন দূর্গে দলপতি আবদাল লাতিফ আলবাহদারীর কড়া পাহারায় তাজিক আক্রমনগুলো মুখ থুবড়ে পড়ছিল।
গোল পরিশোধে মরিয়া তাজিক বার বার আক্রমন করতে থাকে ফিলিস্তিন দূর্গে। ২৬ মিনিটে জোরাদভ আমিরবেকের প্রচেষ্টা বিফলে যায় ফিলিস্তিন রক্ষণে। আর কোন গোল না হওয়ায় আক্রমন-পাল্টা আক্রমনে এগিয়ে চলা ম্যাচটির ১-০ লিডে বিরতিতে যায় ফিলিস্তিন।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই একটি সহজ সুযোগ মিস করে তাজিকিস্তান। পরিকল্পিত আক্রমন থেকে একদম পোস্টের সামনে হেড মিস করেন এরগাশেভ জাহঙ্গির। ম্যাচের ৫০ মিনিটে সেট পিস লাভ করে তাজিকিস্তান। কিন্তু শটটি চলে যায় সরাসরি কিপারের হাতে। এ অর্ধে নিজেদের পরিকল্পনা বদল করেন তাজিক কোচ তুখতায়েভ আলিসের।
৫৩ মিনিটে একটি সুযোগ এসেছিল ফিলিস্তিনের সামনে স্কোর ২-০ করার। কাউন্টার থেকে যাওয়া আক্রমনে প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে পোস্টে শট নিয়েছিলেন জনাথন জোরিলা। তবে এবার আর তাজিক কিপার রিজভ রুস্তমকে ফাঁকি দিতে পারেননি তিনি।

৬৬ মিনিটে সবচেয়ে সহজ একটি সুযোগ মিস করে তাজিকিস্তান। কমরনের বাড়িয়ে দেয়া বলে হেড মিস করেন পোস্টের আগে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা আগোয়ান ২ জন। কাউন্টার এটাক করে ফিলিস্তিন। মাঝ মাঠ থেকে সাদি শাবানের বাড়িয়ে দেয়া বল নিয়ে ডি-বক্সের ঢুকে পড়েন খালেদ সালিম। তার নেয়া দুর্বল শটটি তালুবন্দি করতে বেগ পেতে হয় তাজিক গোলকিপারের।
৭২ মিনিটে স্কোর লাইন দ্বিগুন করার আরো একটি সুযোগ মিস করে ফিলিস্তিন। মাঝ মাঠ থেকে একাই বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন ওদে দাব্বাগ। এগিয়ে আসা তাজিক গোল কিপার রিজভ রুস্তমের মাথার উপর দিয়ে বলটি চিপ করতে চেয়েছিলেন ওদে। কিন্তু মিস শটে সেই সুযোগ হারায় তারা। ৩ মিনিট পরেই স্কোর লাইন দ্বিগুন করে ফেলে ফিলিস্তিন। কর্নার থেকে হেডে গোলটি করেন অধিনায়ক আবদাল লাতিফ আলবাহদারি।
২ গোল হজম করা তাজিকিস্তান গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে উঠে। ৭৮ মিনিটে একটি সেট পিস লাভ করে তারা। কিন্তু আবারো ব্যর্থ হন দলটির ফরোয়ার্ড।
৮১ মিনিটে নিশ্চিত একটি গোল মিস করে ফিলিস্তিন। বাম দিক থেকে যাওয়া আক্রমনে আবদুল্লাহ যাজের মাইনাসে পা ছোয়াতে পারেননি খালেদ সালিম।
৮৫ মিনিটে আবারো হতাশ হতে হয় তাজিকদের। ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেয়া শটটি কর্নারের বিনিময় সেভ করেন ফিলিস্তিন গোলকিপার রামি হামাদা।
পরের মিনিটে আরো একটি সুযোগ অতি ক্ষিপ্রতায় আটকে দেন রামি হামাদা। এরগাশেভ জাহঙ্গিরের নেয়া আরো একটি দুর্দান্ত শট বামে ঝাপিয়ে ঠেকিয়ে দেন হামাদা।
পরে মিনিটে একটি অনাকাঙ্খিত অবস্থার সৃষ্টি হয় মাঠে। গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে এম্বুলেন্সযোগে মাঠ ছাড়েন তাজিকিস্তানের কালান্দারভ বখতিয়ার। ম্যাচের শেষ দিকে খুব কাছ থেকে একটি সেট পিস লাভ করে তাজিকিস্তান। নাজারভের নেয়া শটটি পাঞ্চ করে ফিরিয়ে দেন ফিলিস্তিন গোলকিপার রামি হামাদা।
ম্যাচে যোগ করা সময়েও তাজিকিস্তান চেষ্টা চালিয়েছিল গোল পরিশোধের। কিন্তু ফিলিস্তিনের রক্ষণ ভেদ করতে তারা ব্যর্থ হওয়ায় ২-০ গোলের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে তুখতায়েভ আলীসের এর শিষ্যদের।
ভালো খেলে জয় পেয়েছেন, তবে ফুটবলকে সবসময়ই অনিশ্চিত মেনে মাঠে নামেন ফিলিস্তিন কোচ আলী। ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ফুটবল অনিশ্চিয়তার খেলা। কখন কি হয় কেউ জানে না। এ জন্য আগ বাড়িয়ে বলা যাবে না কে যাবে সেমিফাইনালে।’
তাজিকিস্তানকে শক্ত প্রতিপক্ষ মেনে কোচ আলী বলেন, ‘তারা আমাদের আটকানোর চেষ্টা করেছে, কিন্তু সফল হয়নি। মাঠে আমরা নিয়ন্ত্রন করেছি। সুযোগ কাজে লাগিয়েছি, জয় পেয়েছি।’
অধিনায়ক ও ম্যাচসেরা আবদাল লাতিফ বাংলাদেশকে প্রশংসা জানাতে ভুল করেননি। ‘বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে ধন্যবাদ যে এমন একটি টুর্নামেন্টে আমাদের আমন্ত্রন জানানোর জন্য। আমরা চেষ্টা করবো প্রতিটি ম্যাচ জয়ী হতে। জয়ের জন্য ছেলেরা সবসময় মুখিয়ে আছে।’
দলের কি-প্লেয়ার আবদুল্লাহ জাবের জানান, ‘লড়াইয়ের পর জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার আনন্দ আলাদা। প্রতিটি ম্যাচে জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামি। এ টুর্নামেন্টের মাধ্যমে এশিয়া কাপের প্রস্তুতি ভালোভাবেই সম্পন্ন করতে পারবো বলে আশা করছি।’
ম্যাচের প্রথম মিনিটের গোলই নিজেদের ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছে বলে মানছেন তাজিক কোচ তুখতায়েভ আলীসের। ‘ম্যাচ শুরুর প্রম মিনিটেই গোল খেয়ে বসি আমরা। এটাই আমাদের ব্যাকফুটে ঠেলে দেয়। যার দরুন হারতে হয় আমাদের।’
‘বি’ গ্রুপের ২ সেমিফাইনালিস্ট নিশ্চিত হয়ে গেলেও গ্রুপ ‘এ’ তে রয়েছে এখনো কিছু হিসাব। শনিবার নেপাল ও ফিলিস্তিন ম্যাচের উপর নির্ভর করছে সেমিফাইনালের ২ দলের নাম।

আরও পড়ুন



মৌলভীবাজারে ৩ মাদক ব্যাবসায়ি আটক

এইচ এম সামাদ,মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল...

আন্তর্জাতিক প্রতারক চক্রের খপ্পরে শাবি অধ্যাপক, নাইজেরিয়ান আটক

যুক্তরাষ্ট্রে একটি আন্তর্জাতিক সেমিনারে অংশ...

আতহারিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের পূনর্মিলনী

৯২ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের ফরম জমাদানের...

ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফার একটিও মানা হবে না: সেতুমন্ত্রী

শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) রাজধানীর উত্তরা...