জুমআর নামাজ শেষে খন্দকার মুক্তাদির মুসল্লীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়

প্রকাশিত : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে

সিলেট-১ আসনে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির বলেছেন, সিলেটের পবিত্র মাটিতে আল্লাহর ওলিরা শুয়ে আছেন। এই মাটির সাথে রয়েছে আরবের পবিত্র মাটির সাদৃশ্য। কোন অপশক্তি পবিত্র এই মাটিকে অপবিত্র করার চেষ্টা করলে আল্লাহ পাক তা বরদাশত করবেনা। ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে কারচুপি-জালিয়াতির মাধ্যমে পবিত্র এই মাটিকে অপবিত্র করার চেষ্টা, পবিত্র এই মাটির মানুষের সুনাম ক্ষুন্নের অপচেষ্টা সফল হবেনা। সিলেটের জনতা জেগে আছেন। জনতা তাদের পবিত্র আমানত ভোট প্রয়োগ করবেন। জনতার ভালবাসায় বিজয়ী হবে ধানের শীষ। জনতার ভালবাসার কাছে সকল ষড়যন্ত্র পরাজিত হবে, ইনশাআল্লাহ।
তিনি আজ সিলেট নগরীর বন্দরবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমআর নামাজ শেষে মুসল্লীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে সেখানে উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে আলাপকালে এসব কথা বলেন।
খন্দকার মুক্তাদির বলেন, স্বৈরশাসকের আমলেও সিলেটবাসী নির্বাচন দেখেছেন। পাকিস্তান আমলেও নিয়ন্ত্রিত নির্বাচনের স্বাক্ষী সিলেটের মানুষ। কিন্তু, এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার করে সিলেটে যে নির্যাতন জুলুম চালিয়েছে- তা অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। তিনি বলেন, গত এক মাসের প্রচারাভিযানে আমাকে সমাবেশ করতে দেয়া হয়নি। যেখানেই আমি কমিটি করতে গেছি, সেখানেই আমার সমর্থকদের গ্রেফতার করা হয়েছে। আমার নির্বাচনী এজেন্টদের জেলে পাঠানো হয়েছে। বুধবার রাতে আমার সর্বশেষ গণসংযোগ থেকে আমার অর্ধ শত কর্মীকে আটক করা হয়েছে। রাস্তায় ফেলে পিটিয়ে তাদের রক্তান্ত করা হয়েছে। সিলেটের মানুষ ধানের শীষে ভোট প্রদানের মাধ্যমে এই অত্যাচারের জবাব দেবেন।
তিনি বলেন, আমি সিলেটের সন্তান। শত প্রতিকূলতার মাঝেও আমি মাঠ ছেড়ে পালিয়ে যাইনি। গত এক মাসে যেখানেই গেছি প্রশাসন ও শাসক দলের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে দলে দলে সিলেটবাসী আমার প্রচারণায় যোগ দিয়েছেন। সিলেটবাসী আমার উপর আস্থা রেখেছেন। সিলেটবাসীর ভালবাসায় আমি মুগ্ধ-কৃতজ্ঞ। ইনশাল্লাহ, ৩০ তারিখ ধানের শীষকে বিজয়ী করার মধ্য দিয়ে সিলেটবাসীর এই ভালবাসার চূড়ান্ত প্রকাশ ঘটবে।
তিনি বলেন, অত্যাচারী বৃটিশ রাজের বিরুদ্ধে সিলেট থেকেই সম্মুখ সমর শুরু হয়েছিল। ভাষার দাবীতে সিলেট থেকেই আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল অত্যাচারী পাকিস্তানীদের বিরুদ্ধে। সিলেটবাসীই সামনের কাতারে থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ইনশাআল্লাহ, সিলেট থেকেই অত্যাচারী শেখ হাসিনার পরাজয় শুরু হবে।
জুমআর নামাজ শেষে বন্দরবাজার মহাজনপট্টি রোডে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে আলাপকালে খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর ২৩ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও সিলেট মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর হাফিজ আব্দুল হাই হারুণ, সিলেট মহানগর বিএনপির উপদেষ্টা আব্দুস সালাম বাচ্চু, সিলেট মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী শাহজাহান আলী, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন, ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ প্রমুখ। -বিজ্ঞপ্তি

আরও পড়ুন