জালালাবাদ টিটি কলেজে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা পক্ষের উদ্বোধন-ড. হাসমত উল্লাহ

,
প্রকাশিত : ০৯ জানুয়ারি, ২০২১     আপডেট : ১ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক জালালাবাদ টিচার্স ট্রেনিং কলজেরে ২২তম ব্যাচের ওরয়িন্টেশেন অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় র্পব গত শুক্রবার সকাল ১০টায় সিলেট নগরীর উপশহরস্থ কলেজের হল রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. হাসমত উল্লাহ’র সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে নানা একাডেমিক সহপাঠক্রমিক কার্যক্রমের পরিচিতিসহ বিভিন্ন শিখন দক্ষতা কেন্দ্রিক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।
সহকারী অধ্যাপক সুলাইমান চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে শুরুতে অর্থসহ কোরআন তেলাওয়াত করেন ২২তম ব্যাচের বিএড প্রশিক্ষণার্থী মাওলানা শহিদুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন, সহকারী অধ্যাপকবৃন্দ মোহাম্মদ আব্দুশ শাকুর, সায়েম আহমদ চৌধুরী, মো. আব্দুর রাজ্জাক ও প্রভাষক তানজিনা জামান চৌধুরী। নবীন প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন ২২তম ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী মো. আবুল হোসেন খান, সুজন দাশগুপ্ত, এসএম হাবিবুর রহমান, মাহফুজা আহমদ মাহি প্রমুখ। পরিষ্কার পরিছন্নতা অভিযানপূর্ব আলোচনায় বক্তারা বলেন, আশপাশের পরিবেশ পরিছন্নতা এবং দেহের ও মনের অভ্যন্তরীণ পরিচ্ছন্নতাও সমাজের জন্য খুবই গুরুত্বর্পূণ। পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার জন্য একদিন অভিযান করলে হবে না বরং প্রত্যেক প্রশিক্ষর্ণাথী যার যার বিদ্যালয়ে এই র্কাযক্রম অব্যাহত রাখবেন বলে আশাবাদব্যক্ত করেন।
সভাপতির বক্তব্যে ড. মো. হাসমত উল্লাহ বলেন, পৃথিবী বর্তমানে পানি দূষণ, বায়ু দূষণ, শব্দ দূষণ, গন্ধ দূষণ ও প্রাকৃতিক ভারসাম্যহীনতার সমস্যায় নিপতিত। এ জন্য বিভিন্ন পরাশক্তি কর্তৃক বহু দিন থেকে সমুদ্রে পারমাণবিক বর্জ্য নিক্ষিপ্ত হওয়ার কারণে পৃথিবী প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হচ্ছে। শিল্পন্নোত দেশগুলোর শিল্প বর্জ্য ও হাইড্রো-ক্লোরোফ্লরাইড নিঃসরণের ফলে জৈবিক ভারসাম্য বিনষ্ট হওয়াসহ ভূপৃষ্ঠের উপরস্ত ওজন স্তরে ফাটল ধরে অতি বেগুনী রশ্মি ভূপৃষ্ঠে নেমে এলে বৈশ্বিক ভারসাম্য নষ্ট হবে এবং বিশ্বে উষ্ণায়ন দেখা দিবে। তিনি আরও বলেন, এতে করে জীব বৈচিত্র ধ্বংস হবে এবং নিষ্ক্রিয় ক্ষতিকর ভাইরাস সক্রিয় হয়ে মানব জাতির উপর চড়াও হবে। এর ফলশ্রুতিতে বিশ্বে রোগ জিবাণুবাহী ভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করবে। অতএব মানব জাতির সু-রক্ষার জন্য পরিবেশ দূষণ ও অসম মারণাস্ত্র প্রতিযোগিতা থেকে পরা শক্তিগুলোর বিরত থাকাই পৃথিবীকে বাসযোগ্য রাখার অন্যতম উপায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি ২২তম ব্যাচের প্িরশক্ষর্ণাথীদের বিষয়ভিত্তিকি পাঠদান ও নৈতিক শিক্ষাদানরে উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, শিক্ষকরা বিএড প্রশক্ষিণের মাধ্যমে সমাজকে আলোকিত করতে সক্ষম হবেন। প্রশিক্ষণ শিক্ষক সমাজকে যুগোপযোগী করে সুন্দর সমাজ বিনির্মানকারী ও ভবিষ্যৎ দক্ষ জনশক্তি গড়ার কারিগররূপে গড়ে তোলে। মানুষগড়ার এই কারিগররা যতই দক্ষ ও আর্দশবান হবেন জাতিও তত আর্দশ, উচ্চশিক্ষিত, দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তরিত হবে। বিএড প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত একজন শিক্ষক পরিপূর্ণ শিক্ষক হিসেবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার গুরুত্বের উপর আলোচনাকালে প্রাণী বিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. হাসমত উল্লাহ বলেন, বর্তমান কোভিড-১৯ মহামারী আকার ধারণ করার পেছনে অপরিচ্ছন্নতা, অপবিত্রতা এবং স্বাস্থ্য্যবিধি লঙ্গনের প্রবণতা দায়ী রয়েছে। অনুষ্ঠান শেষে প্রশিক্ষক ও প্রশিক্ষণার্থীদের সমন্বিত অংশগ্রহণে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা পক্ষের আনুষ্ঠানিক কর্যক্রম শুরু হয়।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

লন্ডনে পিএইচডি করছেন গোলাপগঞ্জের আমিনা করিম

        সিটি ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে...

বানিয়াচংয়ে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

        মখলিছ মিয়া::- হবিগঞ্জ বানিয়াচংয়ে স্কুল...

রিজেন্ট সাহেদের বিরুদ্ধে সিলেটে গ্রেফতারি পরোয়ানা

        রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতাল...

সিলেটে করোনা ভাইরাস কিছু কথা

        আব্দুস সামাদ তুহেল প্রিয় সিলেট...