জাফর ইকবালের শরীরে ছয় আঘাত

প্রকাশিত : ০৪ মার্চ, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে আহত অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। সিলেট, ৩ মার্চ। ছবি: আনিস মাহমুদসিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে আহত অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। সিলেট, ৩ মার্চ। ছবি: আনিস মাহমুদহামলায় আহত সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালের শরীরে ছয়টি আঘাত আছে। তবে তিনি এখন শঙ্কামুক্ত। আজ রোববার ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) পক্ষ থেকে চিকিৎসকেরা এই তথ্য জানান।

জাফর ইকবালের স্বাস্থ্যগত পরিস্থিতি নিয়ে বেলা ১১টায় সিএমএইচের প্রশাসনিক ভবনে প্রেস ব্রিফিং হয়।

ব্রিফিংয়ে সিএমএইচের কনসালট্যান্ট সার্জন মেজর জেনারেল মুন্সী মুজিবুর রহমান বলেন, অধ্যাপক জাফর ইকবালের মাথায় চারটি, পিঠের ওপরে ও বাঁ হাতে একটি করে আঘাত আছে। সব মিলিয়ে তাঁর শরীরে মোট ছয়টি আঘাত আছে। তিনি এখন শঙ্কামুক্ত। তাঁর মানসিক অবস্থাও ভালো।

মুন্সী মুজিবুর রহমান বলেন, অধ্যাপক জাফর ইকবালের চিকিৎসায় পাঁচ সদস্যের একটি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। সংক্রমণ রোধে এবং দ্রুত আরোগ্যের জন্য এখন তাঁর কাছে কাউকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না।

অধ্যাপক জাফর ইকবালকে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা আছে কি না—সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মুন্সী মুজিবুর রহমান বলেন, ‘এখন এমন কিছু আমরা বলছি না। পরবর্তী সময়ে তিনি যদি পর্যবেক্ষণের জন্য যেতে চান, তবে যেতে পারেন।’

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, সিএমএইচের কমান্ড্যান্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান, চিফ সার্জন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

গতকাল শনিবার বিকেলে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে এক যুবকের অতর্কিত হামলায় ছুরিকাহত হন জাফর ইকবাল। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে গতকাল রাতেই তাঁকে ঢাকায় এনে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়।সুত্র প্রথম আলো

আরও সংবাদ

আরও পড়ুন



আতাউর রহমানকে জাতীয়ভাবে মূল্যায়নের প্রয়োজন রয়েছে

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট সিটি...

আরিফের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা আজ

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক: সিলেট সিটি...

আজ সকাল থেকে সবধরনের যানবাহন চলাচল শুরু

সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের টানা ৪৮...