গোলাপগঞ্জে পল্লী চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু

প্রকাশিত : ২১ মে, ২০২০     আপডেট : ২ সপ্তাহ আগে  
  

অবশেষে করোনাভাইরাসের কাছে হার মেনে এ পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন করোনা রোগী বিয়ানীবাজারের একজন পল্লী চিকিৎসক ও সাবেক মেম্বার আবুল কাশেম। বুধবার দিবাগত রাত ১টা ১০ মিনিটের দিকে সিলেট শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন।

রাত ২টার দিকে গোলাপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ শাহিনুল ইসলাম শাহিন তার মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বুধবার রাত সোয়া ১১টার দিকে সিলেট শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালে ভর্তি করা হয় করোনা পজেটিভ শনাক্ত হওয়া আবুল কাশেমকে। পরে সেখানে ভর্তি হওয়ার ঘন্টা দুয়েক পর তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন।

জানা গেছে, আবুল কাশেমের বাড়ি বিয়ানীবাজার উপজেলার তিলপাড়া ইউনিয়নের মাটিজুরা টুকা গ্রামে। তিনি তিলপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের দু’বারের সাবেক ইউপি সদস্য। আবুল কাশেম পার্শ্ববর্তী গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাদেপাশা ইউনিয়নের আছিরগঞ্জ বাজারের একজন ওষুধ ব্যবসায়ী এবং তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন একটি ভবনে স্বপরিবারে তিনি ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন। তিনি বাংলাদেশ গ্রাম ডাক্তার ঐক্য কল্যাণ সোসাইটি গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক।

 

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাতে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে আবুল কাশেমসহ গোলাপগঞ্জ উপজেলার ৩জনের করোনার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। আক্রান্ত অন্য দুই ব্যক্তি হচ্ছেন- উপজেলার বাদেপাশা ইউনিয়নের খাগাইল গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক (৪৭) এবং অন্য আরেকজন উপজেলার টিকরবাড়ির বাসিন্দা। তারা সকলেই উপজেলার টিকবাড়ি এলাকার প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসেছিলেন।

আরও পড়ুন