কয়েস লোদীর তীব্র প্রতিক্রিয়া

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ০৮ জুন, ২০১৮     আপডেট : ৪ বছর আগে

নিজস্ব প্রতিবেদক:
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র, বিএনপি নেতা রেজাউল হাসান কয়েস লোদী বলেছেন, চার নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কার্যালয় সব সময় সকল সম্মানিত নাগরিককে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত। এ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অবকাশ নেই। সিলেট এক্সপ্রেসে প্রকাশিত ‘লোদীকে নিয়ে কামরানের নির্বাচনী সভা’ শীর্ষক সংবাদ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন কামরান অনির্ধারিত সফরে শুক্রবার হাউজিং এস্টেট জামে মসজিদে নামাজ আদায় করেন। নামাজশেষে তিনি উপস্থিত নাগরিকবৃন্দের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এক পর্যায়ে তিনি ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে উপস্থিত হন। স্বাভাবিকভাবেই সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে স্বাগত জানানো হয়। এ সময় আওয়ামী লীগ বহির্ভূত সম্মানিত নাগরিকরাও একজন সাবেক মেয়রকে স্বাগত জানান। জনাব কামরানও তার নির্বাচনপ্রস্তুতি হিসেবে উপস্থিত সকল স্তরের নাগরিকদের কাছে দোয়া কামনা করেন।এখানে কোন উপস্থাপক বা সভাপতি হিসেবেও কাউকে ঘোষণা করা হয়নি। এটাকে একটি পুরোদস্তুর সভা হিসেবে আখ্যায়িত করার সুযোগ নেই। এমনকি সাবেক মেয়র কামরানকে স্বাগত জানিয়ে সৌজন্যতা বশত আমি ভোট প্রদানের বিষয়টি এড়িয়ে তাকে ‘শ্রদ্ধাভাজন সহকর্মী’ আখ্যায়িত করে বলেছি, দীর্ঘ ১০ বছর তার নেতৃত্বে আমার কাজ করার সুযোগ হয়েছে।
আরো বলেছি, মনের অনেক কথা চাইলেই বলা যায় না। তবে আমরা চাই জনবান্ধব জনপ্রতিনিধি। আল্লাহ সম্মানদানের মালিক। যখন যাকে ইচ্ছা তিনি সম্মানিত করেন। যিনি যোগ্য আল্লাহ যেন তাকে কবুল করেন।
সাবেক মেয়র কামরানকে স্বাগত জানানোর মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকেও আমার কার্যালয়ে স্বাগত জানিয়েছি। এই ওয়ার্ডের মানুষ সকল সময়ই এ ধরনের আচরণ করেন। এমন কি মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিনও মজুমদারী মসজিদে নামাজ আদায় করতে আসলে ওয়ার্ডের সকল স্তরের নাগরিক ও স্থানীয় বিএনপি নেতৃবৃন্দও তাকে স্বাগত জানান। কাজেই পারস্পরিক সৌজন্যতা প্রকাশ নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো থেকে বিরত থাকা সকল সচেতন মানুষের নৈতিক দায়িত্ব।
তিনি আরো বলেন, আমার ওয়ার্ডের সম্মানিত মুরুব্বিয়ান, তরুণসমাজসহ নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডের সকল স্তরের নাগরিকবৃন্দ আমাকে আগামী নির্বাচনে মেয়র হিসেবে প্রার্থীতা করার আহবান জানাচ্ছেন। এমন কি আমার দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরাও মেয়র প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়নের বিষয়টি বিবেচনা করছেন।


আরও পড়ুন

দোয়ারাবাজারে পুলিশের অভিযানে আটক ২

 দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে...

ইন্টারনেটে কিভাবে নিজের গোপনীয়তা রক্ষা করবেন

 ফেসবুকের কোটি কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য...