ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র একটি ভাইরাস লকডাউন আজ বিশ্ব–

প্রকাশিত : ২৬ মার্চ, ২০২০     আপডেট : ৬ মাস আগে
  • 86
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    86
    Shares

পৃথিবীর সমস্ত মানুষ কোভিড ১৯,করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত,কেউ বা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু যন্ত্রণায় মরণ পথের যাত্রী হয়েছেন, প্রায় ২০ হাজার মানুষ ইতিমধ্যে মৃত্যু বরণ করেছেন,কেউ হচ্ছেন চিকিৎসা সেবা থেকে পুরোপুরি বঞ্চিত। এমন পরিস্থিতিতে হোম কোয়ারান্টাইনে বা গৃহবন্দী পৃথিবীর শত শত কোটি মানুষ,প্রিয়জনকে হারানোর বেদনা কারও হারানোর আশঙ্কা। এমন দুঃসময় শত বছরে মানুষ খুব কমই দেখেছে,ভাইরাস আক্রান্ত প্রিয়জনের পাশে মানুষ সহানুভূতি সেবার মানসিকতা নিয়ে দাড়ানোর সাহস পাচ্ছেনা। কোথায় কে কখন আক্রান্ত হতে পারে মানুষ চিন্তিত,মানুষ এবং রাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত অনেক রাষ্ট্র প্রধান, কোথাও সমস্ত রাষ্ট্রকে করেছেন লক ডাউন। পৃথিবীর প্রায় সমস্ত ধর্মীয় উপাসনালয় গুলো বন্ধ করে রাখা হয়েছে,বিশেষ করে তাবুত বিশ্বের মুসলমানদের মিলনের কেন্দ্রস্থল পবিত্র কাবা শরীফ বন্ধ করে রাখা হয়েছে,মসজিদে নববী মদিনা শরীফ প্রায় মুসল্লি শূণ্য। এমন ভীতিকর পরিসস্থিতি বিশ্ব মুসলমানদের জন্য বা বিশ্ববাসীর জন্য কখনও হয়েছে কি না জানি না। পবিত্র দেহ মনে পবিত্র স্থানও আজ বিশ্ববাসীর জন্য নিরাপদ নয়। কোথায় আছেন মহান আল্লাহ, কোথায় থাকে ডাকবো বসে, দয়াল আল্লাহ তুমি আমাদের আর পরীক্ষা নিও না আমাদের মাফ করো তোমার কুদরতি মহত্ব দিয়ে হেফাজত করো মুসলমানদের বিশ্ব মানবতাকে। কঠিন শাস্তি দাও এই মরণঘাতি ভাইরাস যারা সৃষ্টি করে ছড়িয়েছে বিশ্বব্যাপী,তাদের তুমি ধ্বংস করো।
ক্ষুদ্র আয়তনের অনেক ঘন বসতিপূর্ণ বাংলাদেশ
এদেশের মানুষের সংগ্রাম ত্যাগের অনেক ইতিহাস আছে। আমাদের সামর্থের চাইতে আমরা স্বপ্ন অনেক বেশি দেখি,আমরা কাজ না করে সুবিধা বেশি নিয়ে থাকি, কাজের চাইতে কথা অনেক অনেক বেশি বলি। আমরা দূর্ণীতির করালগ্রাসে নিস্পেশিত হয়ে সিঙ্গাপুর কানাডার মতো বসবাসের গল্প বলি।
পুরো পৃথিবী আজ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শোকে মাতম করছে। আমাদের প্রায় ১ কোটির উপরে আত্মীয় প্রিয়জন থাকে প্রবাসে তাদের কারণে দেশের ১৬ কোটি মানুষ সুখে সম্মানে সভ্যতায় বসবাস করেন, তাদের জন্য সমগ্র দেশবাসী চিন্তিত। পৃথিবীর সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থা বিমান চলাচল প্রায় বন্ধ, এমন শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থায় আমরা পালন করলাম পরম শ্রদ্ধেয় বিশ্বনেতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী। মরণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আশঙ্কায় যেখানে পৃথিবীর সমস্ত মানুষের সমীহের জায়গা আমাদের প্রার্থনার শেষ ঠিকানা পবিত্র কাবা শরীফ জন মানব শূণ্য, এমন সময়ে আমাদের বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের ঢাকার মাটি রাতের আকাশ কেমন ছিল ? অবাক বিস্ময়ে বিশ্ববাসী তাদের প্রিয়জনের মৃত্যু দিনে নিরবে শুধু আমাদের মানসিকতা অনুধাবন করছে হয়তো আমাদের কার্যক্রম দেখে করেছে উপহাস।
বাংলাদেশ সরকার এবং আওয়ামীলীগ বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীর প্রোগ্রাম বিশ্ব পরিস্থিতির কারণে ছোট করেছেন পুরোপুরি বাতিল করলে বঙ্গবন্ধুর আত্মায় নিশ্চয়ই শান্তি পেত বাংলাদেশ হতো তার জন্য আরো সম্মানিত।
বিভিন্ন ভাবে আলোচনায় এসেছে অনেকেই ফেইসবুকে লিখেছেন বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে প্রায় ৪০০কোটি টাকার বাজেট ছিল তাই যদি সত্য হয়, তাহলে দেশের মানুষ নিশ্চয়ই বিস্মিত হওয়ারই কথা। প্রায় তিন মাস পূর্বে চায়না থেকে এই মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশ সরকার তার নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্য কি উদ্দ্যোগ গ্রহণ করেছে। এই টাকা দিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কেন করোনা সনাক্তকরণ কীট জরুীর ইকুইপমেন্ট কয়টা টেস্ট ল্যাবরেটরী, ডাক্তারদের জন্য প্রোটেকটিভিটি সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হলো না।
সেই প্রস্তুতি ব্যবস্থা করে রাখলে দেশের মানুষের জন্য হতো মঙ্গল। বঙ্গবন্ধুর আত্মা মহা খুশি হয়ে বলতো আমার কম্বল চোরেরা আজ সত্যি মানুষ হয়েছে,দেশের জন্য করেছে ভালো কাজ। বিশ্বের কাছে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ হতো সত্য ন্যায় ইনসাফ আর মনবতা উন্নয়নের রোল মডেল। আফসোস বাংলাদেশ সরকার এবং আওয়ামীলীগ তা কেন করতে পারলো না,এই মহতি উদ্যোগ কি বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হতো নাকি দেশের মানুষ বাঁধা প্রদান করতো ?
বঙ্গবন্ধু ছিলেন এক মহান নেতা,তিনি ছিলেন মানবতার ফেরিওয়ালা, তার জন্মদিনে বিশ্ব মানবতা আজ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আমরা কেমন করে ঢাকার আকাশে করলাম আতশবাজি ?
নিশ্চয়ই পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ আজ বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করছে,সবাই ভাইরাস প্রতিরোধে সতর্ক থাকছে,জীবন জীবিকার সংসার চালানোর মানুষটি হয়তো অসুস্থ হচ্ছে, নয়তো নিজ গৃহে বন্দী। এমন দুঃসহ সময়ে আমাদের মন্ত্রীরা মানুষকে নিয়ে করেন উপহাস,তাদের কথায় মানুষ এখন আর কষ্ট পায় না,মানুষ মনে করে এটাই তাদের নিয়তি।
হে বিশ্ব ভ্রমান্ডের মালিক আমাদের গোনাহের কারণে আমাদের আগামীর প্রজন্মদের কঠিন কোন ভাইরাসে আক্রান্ত করো না। মহান দয়াময় আল্লাহ কাছে প্রার্থনা করি মরণব্যাধী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বিশ্ব মুসলমানদের যেন আল্লাহ হেফাজত করেন, আমিন ইয়ারাব্বাল আলামীন।

## মোঃ নিজাম উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান
খুরমা (উত্তর) ইউনিয়ন পরিষদ, ছাতক।


  • 86
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    86
    Shares

আরও পড়ুন

প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ৫নং ওয়ার্ডে শীতবস্ত্র বিতরণ

         প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিল...

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৭৯০ জনের করোনা শনাক্ত

          গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে...

পুলিশ সপ্তাহকে সামনে রেখে কঠোর অবস্থানে বানিয়াচং পুলিশ

         মখলিছ মিয়া, বানিয়াচং (হবিগঞ্জ) থেকে...

বইমেলায় কামরুল আলমের পেছনের দরজাসহ ৪টি নতুন বই

         অমর একুশে গ্রন্থমেলার ৫৬২ নম্বর...