ক্যান্সার আক্রান্ত কুঞ্জ দেব নাথ সুস্থ ভাবে বাঁচতে চায়

,
প্রকাশিত : ১৩ জুন, ২০১৮     আপডেট : ৩ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আলমগীর হোসাইন (জৈন্তাপুর):  কুঞ্জ দেব নাথ , বয়স সবেমাত্র আটাশ (২৮) । জীবন সিঁড়ির অনেক ধাপ পেরুনোর আগেই প্রাণ যেন নিভুনিভু করছে তাঁর । আর্থিক দৈন্যদশা দূর করতে পরিশ্রমকে পুঁজি করে অল্প বয়স থেকেই ধরেছিলেন পরিবারের হাল, বিয়ে করে পেতেছেন সংসারও । দুটি ফুটফুটে মেয়ে আর পরিবারের সবাইকে নিয়ে মোটামুটি স্বাচ্ছন্দেই চলছিল সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার চিকনাগুল ইউনিয়নের কহাইগড় এলাকার বাবুল দেব নাথের ছেলে দিনমজুর কুঞ্জ দেব নাথের সংসার । কিন্তু এর মাঝেই মরন ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তাঁর সংসারে ভর করলো দুঃখ আর হতাশা । চিকিৎসার ব্যায়ভার বহন করতে গিয়ে জীবনের সাথে তাঁর যোগ হলো অসহায় নামক শব্দটি । তাঁর বড় মেয়ে অনিতার বয়স ০৬ বছর আর ছোট মেয়ে অর্পিতার বয়স মাত্র ০৩ বছর । অবুঝ শিশু দুটির করুন মুখের দিকে চেয়ে বারবার ডুকরে কেঁদে উঠছেন তিনি । পূনরায় পরিবারের হাল ধরে সুস্থ ভাবে বাঁচার আকুতি তাঁর । কুঞ্জ দেবের মুখের ভেতরে (দাঁতের গোড়ায়) ক্যান্সার ধরা পড়েছে এক মাস আগে । সর্বস্ব দিয়ে আর ধার-দেনা করে চলছিল চিকিৎসা । কিন্ত এখন সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দেয়ার মতো অবস্থাও নেই তাই তিন-চার লাখ টাকার বিশাল ব্যায়ে সঠিক চিকৎসা করাও তাঁর পক্ষে সম্ভব হচ্ছেনা । সুস্থ ভাবে বাঁচার আশায় বাধ্য হয়ে তাই চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগীতা চেয়েছেন হৃদয়বান, বিত্তবানদের কাছে । আমাদের সবার আর্থিক সাহায্য সহযোগীতায় সুস্থ হয়ে পূনরায় পরিবারের হাল ধরতে পারে কুঞ্জ দেবনাথ । তাই আসুন একটি তরুন তাজা প্রাণ, অবুঝ দুটি শিশুর ভবিষ্যত আর একটি অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়াতে কুঞ্জ দেব নাথের চিকিৎসার জন্য আর্থির সহযোগীতার হাত বাড়াই ।

যোগাযোগ ও সহযোগীতার জন্য

বিমল দেব নাথ

০১৭৬৬-৩৯০৭৭১ (বিকাশ)


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

সিলেট মহানগর বি.এন.পি’র জরুরী সভা

        সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : আগামী ২৩শে...

মানবতার কল্যানে কাজ করাই মহৎ কাজ  –স্যার এনাম-উল ইসলাম

        রেডক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিট নেতৃবৃন্দের সাথে...

সিলেট মহানগর জামায়াতের ইফতার মাহফিল

        বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী...

অালোকিত জীবন: প্রফেসর অাজিজুর রহমান লস্কর

        মুহিউল ইসলাম মাহিম চৌধুরী: প্রফেসর...