কিছু মৃত্যু মেনে নিতে কষ্ট হয়

Alternative Text
,
প্রকাশিত : ০৭ জুন, ২০২০     আপডেট : ৮ মাস আগে
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    7
    Shares

মুক্তা বেগম
আজ এমন একটি মৃত্যুর সংবাদ শুনার পরে আমি এতোটা মর্মাহত হই আমার সারা শরীর থরথর করে কাঁপছিল। এখন প্রতিদিন কোনো না কোনো ব্যক্তি, পরিচিতজন, বন্ধুর আত্মীয়, চেনাজানা মানুষের মর্মান্তিক মৃত্যুর সংবাদ ফেসবুকের কল্যাণে যথাসময়েই আমরা পেয়ে যাচ্ছি । কিন্তু হ্নদয় বিদারক হলেও সত্যি যে মহামারীর সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে কেউ আজ কারো জানাজার নামাজ পড়তে পারছেন না। দাফন- কাফনে শরীক হয়ে সহযোগিতা করতে পারছেন না। এমন কি আপন সন্তান পর্যন্ত মৃত বাবা- মায়ের লাশটা পর্যন্ত দেখতে যেতে পারছেন না! এটাই হলো নিষ্ঠুর নিয়তি! তিন মাস যাবত আমাদের দেশের সচেতন নাগরিক সমাজের মতে আমি ঘরেই অবস্থান করছি বৈশ্বিক মহামারীর কোভিড -১৯, করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের কারনে। আমাদের দেশেও ব্যাপক হারে জেলা এবং অঞ্চল ভিত্তিক সংক্রমণটি ছড়িয়ে পরেছে! যে বিষয়টি নিয়ে লিখছিলাম,গত রাতে মেসেঞ্জার আমাদের সাইক্লোন সংগঠনের গ্রুপ চ্যাটিং এ হঠাৎ একটা মেসেজ আসলো আমাদের সংগঠনের সভাপতি, দৈনিক সিলেটের ডাকের সাবেক স্টাফ রিপোর্টার, ক্রীড়া সংগঠক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক জাবেদ আহমেদ ভাইয়ের ছোট ভাই আমাদের আরেক সাথী ভাই উবেদ আহমেদ ভাইর অবস্থা সংকটাপন্ন। উনাকে শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালের আইসিইউ তে নেয়া হয়ে! খালেদ ভাইর আরেকটা মেসেজ আসলো, নাদেলকে ফোন কর, আমি নাদেলকে ফোনে পাচ্ছিনা। সাথে সাথে একজন ভাই রিপ্লাই জানালেন নাদেল ভাইর সাথে তার মোবাইলে কথা হয়েছে, নাদেল ভাই শামসুদ্দীন হাসপাতালে কল দিয়ে বলে দিয়েছেন রোগির প্রতি বিশেষ খেয়াল দিয়ে চিকিৎসা প্রদানের জন্য। উল্লেখ্য যে আমাদের এই সংগঠনের বয়স ৪০ বছর! আর আমি বিগত ৩০ বছর থেকে এই সংগঠনের সাথে জড়িয়ে থেকে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছি। এখানে বলা প্রয়োজন আমাদের এই সংগঠনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, নানান পেশার, নানান মতের ব্যক্তির সংমিশ্রণে গঠিত। কিন্তু নেই কোনো বিভেদ, কারোরই নেই কোনো উচ্চাকাংখা। এখানে আছেন প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে আছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, এখানে যেমন আছেন সাবেক প্রধান মন্ত্রীর বেগম খালেদা জিয়ার সহকারী প্রেস সচিব মুশফিকুল ফজল আনসারী, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দফতর সম্পাদক সায়ফুল আলম রুহেল ভাই, উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমেদ, সামুন মামুন খান, কাওসার জাহান কয়ছর ভাই, আলহাজ্ব বদরুল ইসলাম, গল্পকার সেলিম আউয়াল, রম্যলেখক হারাণকান্তি সেন, কবি তাবেদার রসুল বকুল, বার্সিলোনাতে জার্নালিস্ট বনী হায়দার মান্নাসহ অসংখ্য গুণী মানুষেরা। ছিলেন দাতা হ্যারল্ড রশীদ চৌধুরী।আমৃত্যু ছিলেন গরীবের ডাক্তার খ্যাত মরহুম ডাঃ আব্দুস শহীদ খান। আমাদের এই পথচলা থেকে হঠাৎ ই আজ টগবগে তরুন উবেদ ভাইকে কেড়ে নিলো প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস।তাঁর এমন চলে যাওয়া মেনে নেয়া যায়?


  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    7
    Shares

আরও পড়ুন

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সিলেট মহানগর কমিটির অনুমোদন

         মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সিলেট মহানগর কমিটির...

ট্রাকের ধাক্কায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

17        17Sharesসিলেট নগরীর সুবিদবাজার এলাকার ফাজিল...

আ ন ম শফিক এর ইন্তেকাল বৃহস্পতিবার দরগাহ দাফন

         আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য...

২৪৪ পর্নো সাইট বন্ধ করল সরকার

         বাংলাদেশ থেকে দেখা যায় এমন...