কাশ্মীরে মুসলিম গণহত্যার প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল

প্রকাশিত : ০৯ আগস্ট, ২০১৯     আপডেট : ৮ মাস আগে  
  

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর কেন্দ্রীয় সদস্য প্রফেসর ডা. মোয়াজ্জেম হোসেন খান বলেছেন, কাশ্মীরের মুসলিম রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেফতার, গৃহবন্দি, বাড়তি লাখো সৈন্য মোতায়েনের মাধ্যমে মারাত্মক ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে। ১৪৪ ধারা জারি করে মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করেছে। ইন্টারনেট বন্ধ করে দিয়ে জাহেলী যুগের মতো মুসলমানদের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে বিশ্ব মুসলিম নেতাদের উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন। কাশ্মীর সঙ্কট শুধু কাশ্মীরেরই নয়, এ সঙ্কট বাংলাদেশেরও। এজন্য বাংলাদেশের জনগণকে প্রতিবাদ মুখর হতে হবে। কাশ্মীরিদের মুসলমানদের উপর নির্যাতন ভারতের গণতন্ত্রকে গলা কাটার শামিল এবং এতে করে ভারতই টুকরো টুকরো হয়ে যাবে।
তিনি আরো বলেন, মোদি সরকার মুসলমানদের অধিকার কেড়ে নিয়ে তাদের উপর জুলুম নির্যাতন চালাচ্ছে। ১৯৪৭ এর পর থেকেই কাশ্মীরসহ গোটা ভারত মুসলমানদের জন্য অগ্নিগর্ভ। বারবার রক্ত ঝরছে সাধারণ মানুষের। কাশ্মীরের আপামর জনতার মতামতকে উপেক্ষা করে ভারতের সংবিধানের ৩৭০ ধারা পরিবর্তনের মাধ্যমে নতুন সংকট সৃষ্টি করছে। এই সংকট নিরসনে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।
গতকাল শুক্রবার (৯ আগস্ট) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সিলেট জেলা ও মহানগরীর উদ্যোগে ভারতের বিজেপি সরকার কর্তৃক সংবিধান পরিবর্তন এবং কাশ্মীরে আগ্রাসন বন্ধের দাবিতে সিলেট নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
বাদ জুমআ মিছিলটি সিলেট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সম্মুখ থেকে শুরু করে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে চৌহাট্টায় গিয়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সিলেট মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব নজির আহমদের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী হাফিজ মাওলানা মাহমুদুল হাসানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সিলেট জেলা সহ সভাপতি মাওলানা রেদওয়ানুল হক চৌধুরী রাজু, মহানগর সাবেক সভাপতি মুফতি মো. ফখরুদ্দিন, মহানগর সহ-সভাপতি ডা. রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ, জেলা সেক্রেটারী হাফিজ মাওলানা ইমাদ উদ্দিন, ইশা ছাত্র আন্দোলন সিলেট মহানগর সভাপতি মাওলানা আবু তাহের মিছবাহ, জেলা সভাপতি ফয়জুল হাসান চৌধুরী, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন জেলা সভাপতি আলহাজ্ব ফজলুল হক, ইশা ছাত্র আন্দোলন মহানগর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আরাফাত, ইসলামী যুব আন্দোলন জেলার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুক্তাদির চৌধুরী রাকিব, জেলা প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা ইমরান আহমদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাফিজ নোমান আহমদ ফাহাদ, কোতোয়ালী থানা সভাপতি মো. আনোয়ার হোসাইন প্রমুখ।

আরও পড়ুন