কাউন্সিলর পদ হারালেন ইরফান সেলিম

,
প্রকাশিত : ২৮ অক্টোবর, ২০২০     আপডেট : ১ মাস আগে
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares

এক্সপ্রেস ডেস্ক :-নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের পুত্র,ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশ নের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইরফান সেলিমকে কাউন্সিলর পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত কারাদন্ডে দন্ডিত হয়ে কারাগারে যাওয়ার পর গতকাল মঙ্গলবার রা তে স্থানীয় সরকার বিভাগের জারি করা আদেশে কাউন্সিলর পদ হারান ইরফান। এদিকে, আটক ইরফান সেলিমকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেছে পুলিশ। আজ বুধবার রিমান্ড আবেদনের শুনানী হবে। তবে ইরফান সেলিমের সহযোগী এ বি সিদ্দিক ওরফে দিপুকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। এছাড়া, মামলাটির তদন্ত প্রভাবমুক্ত ভাবে করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ঢাকার পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। আলোচিত এই ঘটনা নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, নিঃসন্দেহে এই মামলা প্রভাবমুক্তভাবে তদন্ত করা হবে। স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পো রেশন) আইনে বলা হয়েছে, কো নো জনপ্রতি নি ধি সাজাপ্রাপ্ত হলে তিনি বরখাস্ত হবেন। নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধরের পর সোমবার হাজী সে লি মের বাড়ি তল্লাশী ক রে মদ ও ওয়াকিটকি পাওয়ায় র;্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত ইরফানকে এক বছর কারাদন্ড দেয়। এর প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আ ন ম ফয়জুল হক স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন, ২০০৯ এর ধারা ১২ এর উপ-ধারা (১) এর প্রদত্ত ক্ষমতাবলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৩০নং সাধারণ ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলর পদ থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হল। স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, পূর্ণাঙ্গ তদন্তের পর ইরফানকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে ।এছাড়া, মারধরের ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় ইরফান ও তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় ইরফান সেলিমকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করেছে পুলিশ।মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধানমন্ডি থানার পরিদর্শক আশফাক রাজীব হাসান গতকাল মঙ্গলবার কাউন্সিলর ইরফানকে সাত দিনের জন্য হেফাজতে চেয়ে আদালতে আবেদন জমা দিয়েছেন।ডিএমপির ধানমন্ডি জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আব্দুল্লাহিল কাফি বলেন, ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ জাহিদকে ‘শ্যোন এরেস্ট’ দেখিয়ে সাত দিনের রিমান্ডে চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে। বুধবার এ আবেদনের শুনানি হবে। এদিকে, ইরফান সেলিমের সহযোগী এ বি সিদ্দিক ওরফে দিপুকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। হাজি সেলিমের গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনার মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এই রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে ধানমন্ডি থানার পুলিশ এ বি সিদ্দিকীকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার আবেদন করে। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন।আলোচিত এই ঘটনা নিয়ে মঙ্গলবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ঢাকার পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, নিঃসন্দেহে এই মামলা প্রভাবমুক্তভাবে তদন্ত করা হবে।সোমবার দুপুরে ইরফানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব ॥ পুরান ঢাকার তার বাসায় অভিযানও পরিচালনা করা হয়। অভিযানে ৩৮টি ওয়াকিটকি, পাঁচটি ভিপিএস সেট, গুলিসহ একটি পিস্তল, একটি একনলা বন্দুক, একটি ব্রিফকেস, একটি হ্যান্ডকাফ, একটি ড্রোন এবং সাত বোতল বিদেশি মদ ও বিয়ার উদ্ধার করা হয়।বাসায় বিদেশি মদ ও অনুমোদনহীন ওয়াকিটকি রাখায় কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছর করে জেল দেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাতেই তাদের কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সেখানে তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। পরে ইরফান সেলিমকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়।


  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares

আরও পড়ুন

জেলা ও জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের মতবিনিময় সভা

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক ১৯ অক্টোবর...

মির্জা ফখরুলসহ ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ সিলেট আসছেন সোমবার

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : বিএনপি মহাসচিব...

 শ্রমিকদের বেহাল দশা থেকে মুক্তি দিতে উতমা কোয়ারি খুলে দিন

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক :   জাতীয়...

সিলেট জেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের অভিষেক সম্পন্ন

         সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : মুক্তিযুদ্ধের...