সিলেট খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন সেন্টার এর কার্য্যক্রম শুরু

প্রকাশিত : ২৭ জুন, ২০২০     আপডেট : ১ মাস আগে

আব্দুল বাতিন ফয়সল ঃ– সিলেট খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতালে করোনা আইনোলেশন সেন্টার এর কার্য্যক্রম শুরু হয়েছে। শনিবার দুপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হাসাপাতালটি করোনার আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে উদ্বোধন করেন সিলেট-১ আসনের সাংসদ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।
এর আগে সিলেটে সরকারি খরচে করোনার চিকিৎসায় সিলেটে চৌহাট্টাস্থ শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল একমাত্র করোনা আইসোলেশন সেন্টার হিসাবে কাজ করছিল। কিন্ত ক্রমাগত করোনা সংক্রমনের ফলে সিলেট চৌহাট্টাস্থ শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল যখন করোনা রোগী নিয়ে হিমশীম খাচ্ছে তখন সিলেটে সরকারি খরচে করোনার চিকিৎসালয় হিসেবে যাত্রা শুরু করলো শহরতলির খাদিমপাড়াস্থ ৩১ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল। সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন সিলেট-এর সহযোগিতায় সিলেট সদর উপজেলার শাহপরানস্থ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতাল করোনা আইসোলেশন সেন্টার হিসাবে চালু হলো। শীঘ্রই দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দ্বিতীয় চালু হবে। প্রসঙ্গত, সরকারিভাবে সিলেটে তিনটি হাসপাতালকে করোনা চিকিৎসার জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল ছাড়া বাকি দুটি খাদিমপাড়া হাসপাতাল ও দক্ষিণ সুরমা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।
সরকারীভাবে জনবল দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে অক্সিজেন সিলিন্ডার.সিসি ক্যামেরা মোবাইলসহ নার্স ওয়ার্ডবয় ক্লিনার ডাক্তারদের খাওয়া দেয়া সবকিছুর ব্যবস্থা করবে সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন। সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশনকে সহযোগীতা করছে জালালাবাদ এসোসিয়েশন যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র সহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসী সিলেটীরা।
৩১শয্যা বিশিষ্ট খাদিমপাড়া করোনা আইসোলেশন হাসপাতাল পরিচালনায় যতো ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন সেসব এর সম্পূর্ণ যোগান দেবে কিডনি ফাউন্ডেশন সিলেট। এরই ধারাবাহিকতায় কিডনি ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার ৪ জন নার্স – ৪জন ওয়ার্ডবয়-৪ জন ক্লিনার এবং পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবং একজন সুপারভাইজার সহ মোট ১৩ জন জনবল নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা বিশেষায়িত হাসপাতালে ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ শুরু হয়েছে। সপ্তাহে ২দিন করোনা রোগীদের স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়। এর আগে কেবল নগরীর চৌহাট্টাস্থ শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ করা হতো। নমুনা প্রদানের জন্য যে কেউ খাদিমপাড়া হাসপাতালে গিয়ে আগে রেজিষ্ট্রেশন করতে পারবেন।

এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মন্ত্রী বলেন, করোনা মোকাবেলায় সিলেট বাসীকে সচেতনতার সহিত কাজ করতে হবে। সিলেটে কোভিড আক্রান্ত রোগী দিন দিন বাড়ছে। তাই সিলেটবাসীকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যাতে কোভিড-১৯ আমাদের আক্রমণ করতে না পারে।

মন্ত্রী আরো বলেন, ওসমানী মেডিকেলে আরেকটি ল্যাব নির্মাণের কাজ চলছে। খুবই শীঘ্রই সেটাও চালু করা হবে। বর্তমানে যে একটি ল্যাব রয়েছে, সেটাতেও জনবল বাড়ানো হয়েছে। করোনা মোকাবেলায় আন্তরিকতার সাথে কাজ করায় মন্ত্রী সিলেটের জেলা প্রশাসক, কমিশনার সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, আজকের এই কার্যক্রমের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের আমি অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। সিলেটের প্রশাসনসহ আমাদের দলের যারা আছেন তারা আন্তরিকতার সঙ্গে এ বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, পাশাপাশি আমি প্রবাসীদেরকেও আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তাদের মহৎ উদ্যোগে আজকের এই আইসোলেশন সেন্টারটির যাত্রা। আমাদের উদ্যোক্তাদের সাধুবাদ জানাই।

সিলেট জেলা সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল এর সঞ্চালনায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর উদ্বোধনকালে খাদিমপাড়া হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান এনডিসি, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. সুলতানা রাজিয়া, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া বিপিএম, জেলা প্রশাসক কাজী এম এমদাদুল ইসলাম, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, বিভাগীয় স্বাস্থ্য সহকারী পরিচালক ডা. মো. আনিসুর রহমান, সিলেট জেলা সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল, সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ ও খাদিমপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আফছর আহমদ খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা হাসপাতাল এর তত্বাবধায়ক ডা: জালাল উদ্দিন,আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আবেদা বেগম, কিডনী ফাউন্ডেশন এর ফাউন্ডার ডাইরেক্টর জুবায়ের আহমদ চৌধুরী ,এক্সিকিউটিব ডাইরেক্টর ডা: কাজি মুশফিক আহমদ,জালালাবাদ এসোসিয়েশন সিলেট এর কো-অর্ডিনেটর ডা. মোস্তফা শাহজামাল চৌধুরী বাহার,শাহপরান থানার ওসি আব্দুর কাইয়ুম চৌধুরী প্রমুখ।

পরবর্তী খবর পড়ুন : প্রার্থনা

আরও পড়ুন