কবি সজীব মোহাম্মদ আ‌রিফের একগুচ্ছ কবিতা

প্রকাশিত : ২৪ মে, ২০২০     আপডেট : ২ মাস আগে

‌জে‌গে ও‌ঠো পৃ‌থিবী

জে‌গে ও‌ঠো পৃ‌থিবী পিন পতন নিরবতা ভে‌ঙ্গে
মু‌খরিত হ‌য়ে উঠুক পা‌খির ক‌লতানে
মা‌ঠে মা‌ঠে জ‌মে উঠুক জীব‌নের হাট
ঘু‌মি‌য়ে যাক শ্বশা‌নের কোলাহল।

থে‌মে যাক দু‌চো‌খের অশ্রু ঝর্ণা
বন্ধ হোক বিরহী ভায়ো‌লি‌নের সুর
চো‌খে মু‌খে ফিরে আসুক রো‌দের ঝি‌লিক
‌ঠোঁট জু‌ড়ে খেলা করুক রূপালী চাঁদ।

ক্যাম্পা‌সের বটতলায় বে‌জে উঠুক যৌবনা গিটার
ক‌বিতার ছ‌ন্দে লেখা হোক প্রে‌মের চি‌ঠি
পা‌র্কের বে‌ঞ্চে ফি‌রে আসুক সোনালী বি‌কেল
মা‌ঠের সবুজ ঘা‌সে বে‌জে উঠুক কৃষ‌কের বাঁশি।

মন থেকে মুছে যাক কবরের অন্ধকার
কুরিয়ার ই-মেইলে পৌঁছে যাক সুখ বার্তা
ভয়ের সাগরে ভেসে উঠুক গোলাপী ডলফিন
জেগে ওঠো পৃথিবী সেই চিরচেনা আপন র‌ঙে।

অশঙ্ক না‌বিক

পলা‌শীর প্রান্ত‌রে ডু‌বে গি‌য়ে‌ছি‌লো বাংলার সূর্য
কা‌লআঁধা‌রে ঢে‌কে গি‌য়ে‌ছি‌লো বাংলার আকাশ
ঘন মে‌ঘে লুকিয়ে‌ছি‌লো সব গ্রহ নক্ষত্র
এরপর কত দিন কত রাত কে‌টে গেছে
তমসা যেন ফুরাবার নয়।

ইং‌রেজ চ‌লে গেল
বংঙ্গ কি মু‌ক্তি পেল?
নবদাস‌ত্বের শিক‌লে ব‌ন্দি বাঙালীর ভাগ্য
প্রথমেই রুদ্ধ ক‌রে কন্ঠনালী
বু‌ক দি‌য়ে রক্ষা হয় মুখ।
এরপর…
ক্রমাগত দানবীয় অত্যাচার।

‌সমগ্র জা‌তি যখন দি‌শেহারা
ডুবন্ত বঙ্গনা‌য়ের হাল ধ‌রেন এক অশঙ্ক না‌বিক
জা‌গি‌য়ে তো‌লেন ঘুমন্ত প্রাণ
অন্ত‌রে জ্বে‌লে দেন অ‌গ্নিকুন্ড
‌দীপ্ত ক‌ন্ঠে ঘোষনা ক‌রেন বাঁচার মূলমন্ত্র।

দাবান‌লের মত ছ‌ড়ি‌য়ে প‌ড়ে সাহ‌সের আগুন
‌দেশ‌প্রে‌মে প্রে‌মে ছে‌য়ে যায় বাংলার আসমান-জ‌মিন
মরনা‌স্ত্রে প‌রিণত হয় মুষ্ঠবদ্ধ হাত
এ‌কে এ‌কে কে‌ড়ে নেয় দান‌বের প্রাণ।

‌কে‌টে যায় অন্ধ রা‌ত
‌কে‌টে যায় বিষন্ন মেঘ
‌জে‌গে ও‌ঠে নতুন সূর্য
জ্বলন্ত সূ‌র্যের আ‌লো‌তে ফু‌টে ও‌ঠে এক‌টি নাম
বঙ্গবন্ধু শেখ মু‌জিবুর রহমান।

প্রতিশোধ

নির্মম নির্যাতনে প্রকৃতি আজ দারুন অতুষ্ট
কার্বনের রাজত্বে শাসিত সংখ্যালঘু অক্সিজেন
তাবৎ পশুপাখি বিপন্ন অমানুষের কর্মকান্ডে
বনভূমি হারিয়ে যাচ্ছে ক্রমাগত জনবিস্ফরনে
বহুদিন ঘুমাতে পারেনি ক্লান্ত বাতাস
একফোঁটাও বিশ্রাম পায়নি চলন্ত স্রোত
অবিরাম পরিশ্রমে ক্লান্ত শ্রান্ত আসমান জমিন
অসয্য যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ প্রকৃতির প্রাণ।

প্রতিশোধের তীব্র আকাঙ্ক্ষায় অগ্নিমূর্তি ধারন করেছে পৌঢ় পৃথিবী
অত্যাচারের প্রতিটি বিন্দু ফিরিয়ে দিচ্ছে আপন ঢংয়ে
পরিশ্রমের পর যেমন বিশ্রাম নেয় ক্লান্ত শ্রমিক
ঠিক তেমনি ঘুমিয়ে পড়েছে চলন্ত পৃথিবী।

এমন দিনে ঘরে থাকো সবাই
জাগিয়ে দিওনা রুষ্ঠ পৃথিবীকে
গুনে গুনে দিতে হবে সমস্ত মাশুল।

চলো এক সাথে ক্ষমা চাই সকল ভুলের
এক সাথে সাহায্য চাই সৃষ্টিকর্তার।

ঈদুল ফিতর

বছর ঘুরে এলো আবার ঈদুল ফিতর
খুশির নদী বয়ে চলে বুকের ভিতর।
ঈদগাঁওতে ঈদের নামাজ পড়বো সবাই
হিংসা বিদ্বেষ মনের পশু করবো জবাই।
মায়ের হাতে মিষ্টি পায়েস কোরমা পোলাও
গরিব দুঃখীর জন্য রবে হাতটা খোলাও।
ঈদের খুশি বাজবে বাঁশি ঐক্যতার সুর
সমাজ থেকে ভেদাভেদ সব হবে আজ দূর।
সিয়াম থেকে শিক্ষা পেলাম ধৈর্য্য ধরার
ঈদের শিক্ষা সব মানুষের ঐক্য গড়ার।
ফরজ জাকাত করবো আদায় নিয়ম মেনে
পরিবারের ফিতরা দিব মূল্য জেনে।
বন্ধু বান্ধব মিলবো সবাই এমন দিনে
আনন্দ কি পূর্ণ হবে স্বজন বিনে।
বেলা শেষে অস্ত যাবে ঈদের দিনের
বাজতে রবে মধুর সুর এ খুশির বীণের।

আখালীয়া সিলেট
২৪-০৫-২০২০

আরও পড়ুন