এম. সি ছাত্রাবাসে গৃহবধু গণধর্ষণ: বিএনপির “নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম” সিলেট বিভাগের নিন্দা

,
প্রকাশিত : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০     আপডেট : ১ মাস আগে
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক বৃহত্তর সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বন্দী করে গৃহবধু ধর্ষনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপির “নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম” কেন্দ্রীয় কমিটির সিলেট বিভাগীয় নেতৃবৃন্দ। ঘটনার সাথে জড়িত হিংস্র লম্পটদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্থি নিশ্চিত করার দাবী জানান তারা।
এক বিবৃতিতে বিএনপির “নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম” কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ এবং ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সিলেট মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি, সাবেক সিসিক প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী বলেন, সিলেটের শতবর্ষের লালিত ঐতিহ্যের স্মারক এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে কতিপয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মী কর্তৃক স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধুকে গণধর্ষণের ঘটনায় আমরা বিস্মিত ও বিক্ষুব্ধ। ওলী আউলিয়ার স্মৃতি ধন্য দেশের আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যাত সিলেটের বুকে তাও একটি ঐতিহ্যবাহী ক্যাম্পাসে গৃহবধু ধর্ষণ আইয়্যামে জাহেলিয়াতকেও হার মানিয়েছে। এসব লম্পটরাই কয়েক বছর আগে ঐতিহ্যবাহী ছাত্রাবাসকে পুড়িয়ে ছাই করে দিয়েছিল। তাদের বিচার না হওয়ায় এই চক্রটি সেই ছাত্রাবাসেই গণধর্ষণের মতো ঘৃন্য অপকর্ম পরিচালিত করেছে। এমন জঘন্য কর্মকান্ডের নিন্দা জানানোর ভাষা আমরা হারিয়ে ফেলেছি। রাজনৈতিক পৃষ্টপোষকতা ও বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে প্রকৃত অপরাধীরা ছাড় পেয়ে যাওয়ায় আরো বেশী অপরাধ কর্মকান্ড সংঘঠিত হচ্ছে। যা জাতির জন্য লজ্জাজনক। এ অবস্থা চলতে দেয়া যায়না। পবিত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্বামী সাথে থাকার পরও স্ত্রী নিরাপদ নয়। অবিলম্বে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। একই সাথে এসব সন্ত্রাসীদের মদদদাতাদেরকেও বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। তাহলে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন সংক্রান্ত অপরাধ কর্মকান্ড চিরতরে বন্ধ করা সম্ভব হবে।
উল্লেখ্য-সারাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ এবং নির্যাতিতদের সহায়তা প্রদান এবং নারী ও শিশুদের অধিকার রক্ষার লক্ষ্যে “নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম” গঠন করে কেন্দ্রীয় বিএনপি।


  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    8
    Shares

আরও পড়ুন