একুশ নিয়ে নদীর স্মৃতিকথা

প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯     আপডেট : ২ বছর আগে
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছালিক আমীন: নদী একটা মেয়ে। গল্প শোনতে ও ভীষণ পছন্দ করে।
দাদু প্রতিদিন একটা করে গল্প শোনায়।
মাত্র সাত বছরের মেয়ে। বয়সের চেয়ে বুদ্ধিটা পাকা। হাসিতেও রোমান্টিক!
মাঝে মাঝে দাদুর গল্প শোনে নদী হাসতে হাসতে পুরো বাড়িটা মাথায় তুলে!

দাদু গল্প বলতে শুরু করলেন। নদী কান পেতে শোনছে। আজকের গল্পটা নদীকে একটুও হাসাতে পারেনি। কারণ গল্পটি শাসন ও শোষণের গল্প।
ভারত বিভক্তির কালে নদীর বয়স ছিল দুবছর। বায়ান্নোতে সেই নদী সাত বছরে এসে পৌঁছেছে।

সকাল থেকে আকাশে মেঘ জমেছে। কখন জানি আকাশ থেকে বৃষ্টি নেমে যায়। দাদু নদীকে নিয়ে দ্রুত বাড়ি ছুটতে শুরু করলেন। মাঝ পথে বশিরের সঙ্গে দেখা!

_____কি-রে বশির এতো তাড়া নিয়ে কোথায় রওয়ানা দিলি? কিছু হয়েছে?
_____হয়েছে মানে! আপনিতো কিছুই জানেন না? দেশে ছাত্ররা খুন হচ্ছে। রক্তে লালে লাল হচ্ছে। রাজ পথে লাশ হয়ে পড়ে যাচ্ছে।
_____একি বলছো বশির?
_____ঠিক বলছি।
_____ওমা, এসব ছাত্র খুন কারা করছে? কিংবা কেনই বা করছে?
_____আল্লা….রে আপনিতো দেখছি ১৯৪৮ সালের ২১ মার্চ, হারামি পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর রেসকোর্স ময়দানের ভাষণ এক্কেবারে ভুলেগেছেন।
ভুলেগেছেন ১৯৫০ সালের পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলী খানের অনুরূপ ভাষণের কথা।
‘উর্দুই হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা’ এমন বাক্য আমাগো মুখের ভাষা কেড়ে নেওয়ার ঘোষণা নয় কি? এসব আপনাগো মনে পড়ছে?
_____হ খুব মনে পড়ছে। ত আমাগো ছাত্ররা কেন খুন হচ্ছে?
_____এইতো আসল কথা! প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলী খানের একতর্ফা পাগলামী ভাষণের প্রতিবাদে আমাগো বাঙালি ছাত্ররা ২১ ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবস পালন ও হরতালের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল গত ৪ ফেব্রুয়ারি। বিষয়টি মনে থাকার কথা?
_____অবশ্যই মনে আছে।
_____আজ ২১ ফেব্রুয়ারি। সরকার জনরোষের ভয়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি একটানা এক মাস ধর্মঘট, জনসভা, শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ করে ১৪৪ ধারা জারি ঘোষণা করেছে।
কিন্তু আমাগো ছাত্ররা আজ ১৪৪ ধারা ভঙগ করে রাজ পথে এক সুরে আওয়াজ তুলে রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই, রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই……….।
দুখের বিষয় ছাত্রদের এ মিছিলে পুলিশ গুলি চালায়। পুলিশের গুলিতে আজকের রাজ পথে পড়ে আছে আমাদের বাংলার দামাল ছেলে রফিক, জব্বার, সালাম, বরকত এবং নাম না জানা অনেকেই।
_____বশির এই বলে পুনরায় ছুটতে শুরু করল।
_____এদিকে দাদু নদীকে সাথে করে চোখের জল মুছতে মুছতে বাড়ি ফিরলেন।

সত্তর বছর পরে সেই সাত বছরের নদী এখন নিজেই দাদু! রৌদ্র নদীর একমাত্র নাতি।
আজ ২১ ফেব্রুয়ারি। রৌদ্র একুশের গল্প শোনবে।
নদী স্মৃতি থেকে একুশ বলতে শুরু করলেন। বলতে বলতে সেই ৬৩ বছর আগের দাদুর চোখ মুছার গল্পতে এসে থামলেন।
রৌদ্র দাদুকে শান্ত্বনা দিয়ে জড়িয়ে ধরল। এই জড়াজড়িতে হারিয়েগেল একুশের বিকেল।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও পড়ুন

আনম আ ন ম শফিক স্মরণে সিলেট আ.লীগের শোক সভা বৃহস্পতিবার

         বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য,...

গোলাপগঞ্জে বিনিয়োগ করতে এসে হয়রানির শিকার প্রবাসী পরিবার

         গোলাপগঞ্জের কানিশাইলে যুক্তরাজ্য প্রবাসী এক...