আলোকজ্জ্বল স্বপ্নময় সন্ধ্যায় আমেরিকায় এইডেডিয়ানদের মিলন মেলা

প্রকাশিত : ০৯ জুলাই, ২০১৮     আপডেট : ২ বছর আগে  
  

গোলাম সাদত জুয়েল: ৩০ জুন শনিবার মোটর সিটি খ্যাত মিশিগানের ডেট্রয়টে বসেছিল সিলেটের এইডেড হাই স্কুলের আমেরিকার রি্ইউনিয়ন ৤ আবেগ ও উচছাস ভরা একটি প্রানের মেলা বসেছিল কনান্ট ষ্টিটের গ্রেট অব কলাম্বাসে ৤ এ্ই প্রথম বারের মত আমেরিকায় এইডেড হাই স্কুলের ছাত্রদের পুন:মিলন এর উদ্যেক্ত এইডেডিয়ান ৯৩ ব্যাচ হলেও তা্ উন্মুক্ত করে দেয়া হয় ৤ কানাডা ও ইংল্যান্ড থেকে ও অনেকে অংশগ্রহন করেন ৤ এছাড়াও মিশিগান, নিউ ই্য়র্ক, নিউ জার্সি, নাভেডা, ফ্লোরিডা, লাস ভেগাস ,ওয়াশিংটন ডিসি, কানাডার টরেন্টো, মিন্ট্রিয়ল, লন্ডন, ওয়াটারলো থেকে প্রাত্তন ছাত্ররা মিশিগানে জড়ো হতে থাকেন ৤
অনুষ্টানটা শুরু হবার কথা ছিল সন্ধ্যা সাতটায় ,কিন্তু ডেট্রয়েটে সন্ধা হয় সাড়ে আটকার আগ পিছু,তাই অনুষ্টানটা ইচছা থাকা সত্বেও সময়মত শুরু করা যায় নি ৤ মুল অনুষ্টান শুরু হয় সোয়া নয় টায় ৤ ততক্ষনে গ্রেট অব কলাম্বাসের আশ পাশে এইডেডিয়ানদের পদচারনায় মুখরিত ৤ বেলুন দিয়ে এইডেড স্কুলের নাম লেখা প্রবেশ মুখে যাবার পরই দেখা মেলে ৯৩ ব্যাচের স্বেচ্ছাসেবকরা সবাইকে বিভিন্ন ব্যাচের নাম সম্বলিত ব্যাচ পরিয়ে দিচেছন ৤ তার পর মুল ভেন্যুতে প্রবেশ করে যে কেউ অবাক হবেন অসাধারন ভেন্যু পরিপাঠি করে সাজানো ও সুন্দর একটি মনকাড়া ব্যানার ৤ রাত ৯ টায় গ্রেট অব কলাম্বাস পুর্ন হয়ে যায় ৤ যারা উপস্থিত ছিলেন , তাদের সকলেই এইডেড স্কুলেন প্রাত্তন ছাত্র পরিবার পরিজন সহ ৤ উদ্যেক্তা মাসুদ, রানা, রনি, বেলাল,তানভির, লিটু ভাই, বাপ্পি, ইজদানি,তাইফ,এজাজ,আদিল,নাছির,মোরশেদ এর মুন্সিয়ানার ছাপ ৤ রাত বাড়ে আমরা কানাডা থেকে বাপ্পির অপেক্ষায় তখনও , বা্প্পীরা চলে আসে সাড়ে নয় টায় মধ্যে ৤ অসম্ভব সাজানো গোছানো একটি অডিয়েন্স, পরিপাটি করে সাজানো ৤ রনি ও তানভির মঞ্চে উঠে নাটকের মত করে অনুষ্টানটা শুরু করেন ৤ প্রথমে কেউ বুঝে উঠতে পারেনি রনি ও্ তানভির কি বলতে চাচেছ ৤ তারপর তানভির ছোট একটা ইন্ট্রডাকশন দিয়ে রিইউনিয়নের উদ্বোধন করেন ৤ রনি ও তানভির বলে ,৯৩ ব্যাচের একটি প্লাটফর্ম আন অফিশিয়ালী কাজ করছে ,তাদের রিইউনিয়নটিকে সার্বজনিন করার বহি:প্রকাশ আজকের ৩০ জুনের রিইউনিয়ন ৤ আগামীতে আরও বৃহদ আকারে করার প্রত্যয় ব্যাক্ত করে কোরআন তেলায়াতের মাধ্যমে অনুষ্টানের শুচনা করা হয় ৤ তখন রাত ঘড়ির কাটা দশটায় , আমেরিকার জাতীয় সংগীত ও ইউডেড স্কুলের এস এম্বলি স্লাইড শো তে দেখে জাতীয় সংগীত সকলে পরিবেশন করেন তত্ক্ষনে পুরো অডিয়েন্স পুর্ন ৤ এর পর ৯৩ ব্যাচের উজ্জল নক্ষত্র লন্ডনের কীল উইনিভার্সিটির এসোসিয়েট ডা: নাজিম আলী প্রজেক্টরের মাধ্যমে “প্রজেক্ট ৯৩” উপস্থাপন ও ব্যাখ্যা করেন ৤ বিশেষ করে ৯৩ ব্যাচের এইডেডিয়ারা বেশ কয়েক বছর থেকে সিলেটে চ্যারিটি করে আসছেন ৤ ডা: নাজিম আলী কিভাবে আরও বৃহদ আকারে সম্মিলিত ভাবে প্রজেক্ট ৯৩ কে বেগবান করা যায় তা তুলে ধরেন ৤ সিলেটে বিভিন্ন সুবিধা বঞ্চিত স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের কিভাবে হেল্প করা যায় তা তুলে ধরেন ডা: নাজিম ৤ তখন উপস্থিত সকলকে প্রজেক্টগুলো বিস্তারিত বিবরন এর প্রিন্টিং সুভেনির প্রদান করা হয় ৤ একটি ব্যাচের কয়েক জন প্রাত্তন ছাত্র কিভাবে একত্রিত ভাবে চ্যারিটি পরিচালনা করে আসছেন তা সকলের নিকট প্রশংসিত হয় ৤ ডা: নাজিমের সুন্দর উপস্থাপনার পর নামাজের বিরতি ও এপিটাইজারের বিরতি প্রদান করা হয় ৤তখন ৯৮ ব্যাচের পক্ষ থেকে আরেকটি চ্যারেটিচলমান তার একটি ব্যাখ্যা পাওয়া ৯৮ ব্যাচের কাছ থেকে ৤
তানভির ও রানার চম্যকার হাস্য রসাত্বক উপস্থাপনা অনুষ্টানকে গতিশীল করে ৤ এর পর তানভীর সকল ব্যাচের শিক্ষার্থিদের মঞ্চে ডাকেন ৤ তখন সকলে আমরা মঞ্চে উঠে যাই ৤ কানাডা থেকে আসেন বা্প্পী রহমান, সাদিক রহমান,তানভীর মোরশেদ, লন্ডন থেকে মিনহাজ হোসেন ও ডা: নাজিম, মাসুদ আহমদ ( লাস ভেগাস ) ওয়াসিমুজ্জামান রনি, রানা লস্কর , বেলাল ,শিপু জায়গিরদার, দিপু চৌ:জিয়া চৌ:, সাকী ইসলাম , মিশু ভাই , লিটু ভাই
( মিশিগান ) সাইফুল আলম ইজদানি ( মনট্রিল ) ,হুমা্য়ুন কবির, জাহিদ রহামান, রন্জু দত্ত ( নিউ ইয়ক ) আদিল,শিপন চৌ 🙁 নিউ জাসি ) , নাজমুল,ফারুক আহমদ ( বাফেলো ) , জুয়েল সাদত ( ফ্লোরিডা ) , আমজাদ আলী ( অনটারিও ) আরও ছিলেন মিশিগানের অনেকে ৤ অনেক কে ডেকে সরাসরি মঞ্চে তুলা হয় ৤ প্রায় শ খানেক এইডেডিয়ান উপস্থিত হন ৤
মঞ্চে আলোর ঝলকানিতে চলে ফটো সেশন, বিভিন্ন ব্যাচের এইডেডিয়ানরা তখন মঞ্চে ৤ তার পর উন্মুক্ত স্মৃতি চারন পর্বে প্রথমেই কথা বলার সুযোগ পাই আমি জুয়েল সাদত ( ৯০ ব্যাচ ) , বা্প্পি একটু বাড়িয়ে ও আমার কথা বলেন ৤ রনির কাছ থেকে মাইকটা পেয়ে আমি কিছুটা আবেগে কথা বলি ৤ কিভাবে ৯৩ ব্যাচের সাথে সংযুক্ত হলাম , মিশিগান থেকে চলে যাবার কথা থাকেলেও অনুষ্টানের জন্য নতুন টিকেট কেটে আজকের অনুষ্টাকে থাকা , ছোটদের সুন্দর কাজ দেখে কিভাবে জড়িয়ে যাওয়া ৤ সুন্দর এ্ই ব্যয়বহুল ভেন্যুটি নিয়ে আপত্তি থাকলে আজ অসাধারন লাগছে ৤ মাসুদ,রনি,রানা,বেলাল অসাধারন একটা সন্ধ্যা উপহার দিল ৤ আজ না থাকলে জীবনে অনেক বড় একটি অনুষ্টান মিস করতাম ৤ ছোট ভাইয়েরা অনেক বড় কাজ করে আমাদের দেখিয়ে দিল চাইলেই পারা যায় ৤
পিনপতন নিরবতায় অনেকে আমার কথা গুলো শুনেন ৤ আগামীতে আরও বিশাল আকারে নিউ ইয়ক, ফ্লোরিডা বা টরেন্টতে আমার রিইউনিয়নের ঘোষনা দেই ৤ আর আগামীতে ৯৩ ব্যাচের সাথে অকুন্ঠ সম্পৃক্ত থাকার প্রত্যয় ব্যাক্ত করি ৤ যে কথাটা বলা হয় নি , মহিউদ্দিন স্যারের কাঠের কাজের ক্লাস করে ই আজ আমারা বিদেশে বাসা বাড়ীর ‍ঠিক করতে পারি , এই শিক্ষাটাই কাজে লাগল ৤ আর টিফিনের পর ফজলুল হক স্যার সাটারিং এর বাশ দিয়ে পেটাতেন জোহরের নামাজ না পড়ার জন্য , আজ আমরা সবাই নামাজ পড়ি ৤ এটাই কাজে লাগল জীবনে ৤
আরও কয়েকজন স্মৃতি চারন করেন তারা হলেন , ৭৬ ব্যাচের মনওয়ার হোসেন , ৮১ ব্যাচের আমিনুর রহমান , ৯০ ব্যাচের আহবাবুর রহমান, ৯০ ব্যাচের বেলাল , ২০০৩ ব্যাচের সায়েম ,২০০৫ সালের ফজলুল আমিন ৤ ৯০ ব্যাচের মোরশেদ আহমদ প্রমুখ ৤ স্মৃতি চারনে বেশির ভাগই মহিউদ্দিন স্যারের সাথে সবার বেশী স্মৃতি চারন করেন ৤ ফজলুল আমিন টিফিনের সময় বেশী খাবারের আশায় ক্যাপ্টেইন এর বন্ধু হবার কথা বলেন ৤ মহিউদ্দিন স্যার যে ভাবে চিমটি কাটতেন তা সবাই দেখান ৤ স্মৃতি চারন এর পর তানভির আয় ব্যায়ের একটি হিসাব দেন ও স্পন্সরদের ধন্যবাদ দেন বিশেষ করে আলাউদ্দিনের লিটু ভাই ( ৮৮ ব্যাচ ) খাবার প্রদান করেন , কুইক সেন্ট এর বেলাল ( ৯০ ব্যাচ ) সুফিয়ান কোরেশী , কোরেশী হোলসেল ( বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ,মিশিগান ) ৤ তার পর রাতের ডিনারের আহবান জানান তানভির ৤ আলাদিনের আসাধারন খাবার ছিল , খাবারের চেয়ে গল্প গুজবে ছিল সবার মন ৤ তারপরও হোষ্টদের পক্ষ থেকে সবাইকে খাবার পরি্বেশন করা হয় ৤ ছিল সিলেটের পান ও আলাউদ্দিনের অসাধারন মিষ্টি ৤ একটি পরিচছন্ন ও গোছালো অনুষ্টানের পুরোটা খুজে পাওয়া যায় , রাত ৮ টা শুরু হয়ে তা চলে রাত ১ টা পযন্ত ৤ ছিল বাচ্চাদের ফেস পেন্টিং ৤ বাচ্চারা মুখে নানান কারেকটার একে মজা করে ঘুরে বেড়ায় ৤
খাবার চলাকালে মঞ্চে চলে আসেন ৯৩ ব্যাচের সফি , টিপু ও দিপু ৤ তিন জন ব্যান্ডের অসাধারন জনপ্রিয় গান পরিবেশন করেন ৤ প্রায় দেড় ঘন্টা এক নাগারে দিপু , টিপু ‍ও সফি গান পরিবেশন করেন ৤ তাদের গান পরিবেশনের সময় অনেক বাচচা মঞ্চে নেচে আনন্দ করে ৤ রাত তখন দেড় টা গান চলে সাথে চলে আড্ডা কেউ বাসায় যেতে রাজি নন ৤ আমরা ৯০ ব্যাচের চার জন বেলাল, আহবাব, মোরশেদ ,জুয়েল মিলিত হলাম ২৮ বছর পর ৤ মিলন মেলা যখন পুরোপুরি শেষ হল তখন ঘড়ির কাটা ২ টায় ৤ অনেকের ফেরার পালা,যারা কানাডা ও বিভিন্ন ষ্টেট থেকে ড্রাইভ করে এসেছেন তারা সেখান থেকেই একটি সুন্দন স্মুতি নিয়ে যাত্রা করেন ৤ আবার দেখা হবার প্রত্যয় ব্যাক্ত করে আমরা সবাই বাড়ির পথ ধরি ৤

আরও পড়ুন



কমলগঞ্জে গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বাংলাদেশ স্কুল, মাদ্রাসা...

দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রশাসনের জাতীয় শোক দিবস পালন

সিলেট এক্সপ্রেস ডেস্ক : দক্ষিণ সুরমা...

সৈয়দ মহসীন আলী : ক্ষণজন্মা রাজনীতিক

মোহাম্মদ আবু তাহের  খ্যাতিমান রাজনৈতিক,...

শিশুতোষ লেখকরা মায়ের দায়িত্ব পালন করেন

নাসিম আহমদ লস্কর: শিশুদের মনে...